এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > সীমান্তবর্তী এলাকাগুলিতে ভোটার সংখ্যা ‘অস্বাভাবিক বেশি’, আসরে কমিশন

সীমান্তবর্তী এলাকাগুলিতে ভোটার সংখ্যা ‘অস্বাভাবিক বেশি’, আসরে কমিশন

জনসংখ্যার তুলনায় ভোটার সংখ্যা অস্বাভাবিক হারে বেশি। জানা গেছে মূলত বাংলাদেশের সীমান্ত লাগোয়া অঞ্চলগুলিতে এমনটা বেশি। বনগাঁ ও বসিরহাটের বাড়তি ভোটার ছাড়াও কোচবিহার, জলপাইগুড়ি, মুর্শিদাবাদ, নদীয়া, দুই ২৪ পরগনা, কাটোয়া, কানলা ও বীরভূমের অধিকাংশ এলাকায় প্রচুর বাড়তি ভোটার রয়েছে। অনেকের মতে বাংলাদেশী অনুপ্রবেশকারীদের মদতের কারণে এমনটা হয়েছে। জনসংখ্যা ও ভোটার সংখ্যার অনুপাতের বিষয় নিয়ে প্রশ্ন ওঠাতে এদিন নির্বাচন কমিশনের এক করতে জানান, “এ রাজ্যের ক্ষেত্রে এই গড় অনুপাত হল ০.৬৯।

আরো নতুন খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

অর্থাত্‍, কোনও বিধানসভা এলাকায় জনসংখ্যা ১০০ জন হলে ভোটদাতা হবেন ৬৯ জন বা তার কাছাকাছি। কিন্তু এই ১৩২টি কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা অনেক বেশি। কোথাও তো জনসংখ্যার ৮৪%-ই ভোটার।” এদিন তিনি উদাহর সহকারে বলেন, “২০১১ সালের আদমসুমারির সঙ্গে জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার যোগ করলে ২০১৮-র ১ জানুয়ারি কোচবিহারের দিনহাটা কেন্দ্রের জনসংখ্যা দাঁড়ায় ৩ লক্ষ ৬৬ হাজার ৮০। রাজ্যের জনসংখ্যা-ভোটার গড় অনুপাতের হিসাবে সেখানে ভোটার সংখ্যা হওয়া উচিত ২ লক্ষ ৫২ হাজার ৫৯৫। কিন্তু সদ্য প্রকাশিত ভোটার তালিকা বলছে, ওই কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা ২৯ হাজার ৬৩১ জন বেশি। বাকি ১৩১টি কেন্দ্রেও কম-বেশি এমন ঘটনা ঘটেছে।” সূত্রের খবর, উপযুক্ত তথ্য প্রমান ছাড়া বাড়তি ভোটার চিহ্নিতকরণও সম্ভব নয়। আর তাই বিষয়টি নিয়ে যথেষ্ট চিন্তিত নির্বাচন কমিশন।

Top
error: Content is protected !!