এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > উপনির্বাচনে হারের জের, কঠিন সিদ্ধান্ত নিলেন যোগী আদিত্যনাথ

উপনির্বাচনে হারের জের, কঠিন সিদ্ধান্ত নিলেন যোগী আদিত্যনাথ

Priyo Bandhu Media

শনিবার উত্তর প্রদেশের গোরক্ষপুর ও ফুলপুরের উপনির্বাচনে হারের পর রাজ্যের ৩৭ জন আইএএস অফিসারকে বদলি করলো মুখ্যমন্ত্রী আদিত্যনাথ যোগীর সরকার। এই ৩৭ জন কেন্দ্রীয় সরকারী উচ্চ পদস্থ কর্মচারীর মধ্যে রয়েছেন ১৬ জন জেলাশাসক। এদের মধ্যে পদোন্নতি করে ডিভিশনাসল কমিশনার পদাভিষিক্ত করে দেবীপাতানে বদলী করা হলো গোরক্ষপুরের জেলাশাসক রাজীব রাউটেলাকে। অনুপ চন্দ্র পান্ডে ছিলেন শিল্প ও পরিকাঠামো উন্নয়ন কমিশনার। তিনি এখন এনআরআই ডিপার্টমেন্টের ও গ্রেটার নয়ডার অ্যাডিশনাল চার্জে রয়েছেন। অলোক সিনহাকে করা হয়েছে নতুন প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি (কমার্শিয়াল ট্যাক্স)। নীতিন রমেশকে দেওয়া হয়েছে প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি (হাউজিং)-এর চার্জ। মুকুল সিংহলকে রিপ্লেস করেছেন তিনি। মুকুলকে পাঠানো হয়েছে সিল্ক ডিপার্টমেন্টে। সিনিয়র ব্যুরোক্র্যাফ্ট রাজীব কাপুরকে PICUP চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। অলোক ট্যান্ডনকে দেওয়া হয়েছে নয়ডার চেয়ারম্যানের পদ। বারাণসীর ডিভিশনাল কমিশনার হিসেবে নিযুক্ত হয়েছেন দীপক আগারওয়াল। চন্দ্র প্রকাশ ত্রিপাঠিকে সাহারানপুরের কমিশনার নিযুক্ত করা হয়েছে। রবীন্দ্র নায়ককে শিল্প বিভাগের ডিরেক্টর করা হয়েছে। সৌম্য আগারওয়ালকে কানপুর ডেভলপমেন্ট অথরিটিক দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। চন্দ্র ভূষণ সিংকে আলিগড় দেলার ম্যাডিস্ট্রেট হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে। আজমগড়ের কমিশনার নিয়োগ করা হয়েছে এস ভি রঙ্গরাওকে। আজমগড়ের জেলাশাসক হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে শিবকান্ত দ্বিবেদীকে। রাজেন্দ্র প্রসাদকে করা হয়েছে ভাদোনির জেলাশাসক। এছাড়া কৃষ্ণ করুনেশ (বলরামপুর), প্রমোদ কুমার উপাধ্যায় (হাপুর), হেমন্ত কুমার (আমরোহা), নবনীত চাহুল (চান্দৌলি), রাম শঙ্কর মৌর্য (হাথারস) ও অমিত সিং (সোনেভদ্র)-কেও জেলাশাসক হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!