এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ভোট গণনার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি পেলেন শিক্ষকরা

ভোট গণনার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি পেলেন শিক্ষকরা

৮ ই মেতে জারি করা বিজ্ঞপ্তি বাতিল করা হল উওর দিনাজপুরে। যে সব সরকারি স্কুল শিক্ষককে সুপারভাইজার এবং গণনা অ্যাসিস্ট্যান্ট পদে নিয়োগ করা হয়েছিলো নির্বাচনী গণনার দায়িত্ব পালনের জন্য,তাঁদের সে দায়িত্ব থেকে মুক্তি দেওয়া হল। বুধবার রাতে এক বিশেষ বিজ্ঞপ্তি জারি করে এমনটাই নির্দেশিকা জারি করলেন জেলা পঞ্চায়েত নির্বাচন আধিকারিক এবং জেলাশাসক। কিন্তু হঠাৎ করে কেন এমন সিদ্ধান্ত নিতে হল তাঁদের? উওর জানতে চোখ রাখতে হবে খবরের শিকড়ে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

রাজনৈতিক সূত্রের খবর থেকে জানা গেছে, পঞ্চায়েত ভোটের দিন উওর দিনাজপুরের রায়গঞ্জের ইটাহারের বানবোল প্রাথমিক স্কুলের বুথের প্রিসাইডিং অফিসারের দায়িত্বে ছিলেন করণদিঘির রহতপুর হাইমাদ্রাসার শিক্ষক রাজকুমার রায়। ভোটের দিন সন্ধ্যে থেকেই নিখোঁজ ছিলেন তিনি। তারপর পুলিশি তদন্তে সামনে আসে পরদিন রায়গঞ্জের সোনাডাঙি এলাকার ৩৪ নং জাতীয় সড়ক থেকে তাঁর ক্ষত বিক্ষত দেহ। এই ঘটনার প্রকাশ্যে আসতেই ক্ষোভে ফেটে পড়ে উওর দিনাজপুরের নির্বাচনী দায়িত্বে থাকা শিক্ষক ও সরকারি কর্মচারীরা। প্রতিবাদে সরব হয়ে বিক্ষোভে জমায়েত হন তাঁরা। দাবী ছিল একটাই, পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা তাঁদের জন্যে না থাকলে বৃহস্পতিবার ভোটগণনার দায়িত্ব তাঁরা নেবেন না। পোলিং অফিসার রাজকুমার রায়ের মৃত্যুর জন্য প্রশাসনের নিষ্ক্রিয়তাকেই দায়ী করেছেন তাঁরা। বিক্ষোভ এতোটাই চরম পর্যায়ে পৌছেছিল যে রায়গঞ্জের মহাকুমা শাসক তা ঠেকাতে গেলে তাকেও অপমানের শিকার হতে হয়। জুতো ছোঁড়া থেকে শুরু করে গায়ে জল ঢেলে দেওয়ার মতো কাজও করে বিক্ষুব্ধ জনতা। এরপর বিক্ষোভের পারদ আরো চড়তে থাকে বেলা বাড়ার সাথে সাথে। প্রতিবাদে তাঁরা ৩৪ নং সড়ক পথ অবরোধ করে দেয়। শুধু তাই নয় বিক্ষোভে করতে গিয়ে ভোট গণনার প্রশিক্ষণ নিতেও তাঁরা যাননা। তাঁরা তাঁদের দাবীতে অনড় থাকেন। তাঁদের এই প্রতিবাদী মূর্তি দেখে পরিস্থিতির সামল দিতে বুধবার রাতেই জারি হয় এই নির্দেশিকা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!