এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ভোট-কোর্টের লড়াইয়ে সুখবর সরকারি কর্মচারীদের জন্য

ভোট-কোর্টের লড়াইয়ে সুখবর সরকারি কর্মচারীদের জন্য

Priyo Bandhu Media


আসন্ন ত্রিস্তরীয় অঞ্চায়েত নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বহু রাজনৈতিক চাপান উতরের সাক্ষী রাজ্যবাসী। মনোনয়নপত্র পেশের সময়ে দু পক্ষের সন্ত্রাসের ঘটনায় রাজ্য জুড়ে ব্যাপক চাঞ্চল্য তৈরী হয়। বিরোধীপক্ষ আদালতে ন্যায় বিচারের আশায় মামলা দায়ে করেন। এসবের মধ্যে ও পঞ্চায়েত নির্বাচনে রাজ্য সরকারী কর্মচারীদের জন্যে টানা কয়েকদিন কর্ম বিরতির মতন খুশির খবরও নিঃসন্দেহে রয়েছে। রাজ্য নির্বাচন কমিশনের প্রথমে প্রকাশিত নির্বাচনের সময়সূচী অনুযাই ১লা মে প্রথম দফায় ভোট গ্রহণের দিন ধার্য হয়েছিলো। কিন্তু ঐ দিন  ‘আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস’ এর দিন হওয়ার জন্যে বাম শিবির যথেষ্ট আপত্তি জানায়।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

রাজ্য সরকারের সাথে আলোচনার মাধ্যমেই রাজ্য নির্বাচন কমিশন নির্বাচনের সময় সূচী নির্ধারণ করে। কিন্তু ‘আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস’ এর দিন প্রথম দফার ভোট গ্রহণ পর্ব হওয়ার জন্যে রাজ্যের শাসক দলকে বাম শিবির ‘শ্রমিক-বিরোধী’ বলে অ্যাখ্যায়িত করতে থাকে। ৩১ শে মার্চ নির্বাচনের সময়সূচী প্রকাশ করে রাজ্য নির্বাচন কমিশন। ঐ দিনই সন্ধেতে নবান্ন থেকে বিজ্ঞপ্তি জারী করে বলা হয় নির্বাচনের কাজে অনেক সরকারী কর্মীই ১ লা মে ব্যস্ত থাকবেন। সেক্ষেত্রে  তাঁরা ১ লা মে’র ছুটি পাবেনা তাই ২’রা মে রাজ্য সরকারী অফিসগুলিতে ছুটি থাকবে। শুধু রাজ্য সরকারী অফিসই নয়, স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, পুরসভাগুলিতেও ছুটি থাকবে ২’রা মে। ২’রা মে হচ্ছে বুধবার। ২৮ শে এবং ২৯ শে এপ্রিল শনিবার ও রবিবার এমনিতেই রাজ্য সরকারী অফিসে ছুটি থাকে। তারপরে ৩০ শে এপ্রিল, সোমবার, বুদ্ধ পূর্ণিমার ছুটি। মঙ্গলবার মে দিবসেও সরকারী অফিসে ছুটি। তাই বুধবার রাজ্য সরকার বিজ্ঞপ্তি জারী করে ছুটির কথা ঘোষণা করায় যেসব সরকারী কর্মচারীরা নির্বাচনের কাজে অংশ গ্রহণ করছেন না তাঁদের জন্যে এক টানা ৫ দিন ছুটি কাটানোর মতন দারুণ একটা সুযোগ তৈরী হয়। কিন্তু এখন হাইকোর্টের নির্দেশে নির্বাচনের সময় সূচী বদল হওয়ার কথা জানা গেছে। দিন ঘোষিত না হলেও ১লা মে প্রথম দফার নির্বাচন যে হচ্ছেনা সে বিষয়ে নিশ্চিত রাজ্যবাসী। তাহলে ঐ দিন রাজ্য সরকারী কর্মচারীদের নির্বাচনের কাজে যুক্ত থাকার ও কোনো সম্ভবনা থাকছেনা। এমত অবস্থায় ২ রা মে বিজ্ঞপ্তি জারী করে ঘোষিত ছুটি কী রাজ্য সরকার প্রত্যাহার করে নেবে সে নিয়ে অনেক প্রশ্ন তৈরী হচ্ছে। অবশ্য নবান্ন সূত্রে জানা যাচ্ছে এইরকম সম্ভবনাই প্রবল।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!