এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ভোটের আগে ত্রিফলা আক্রমনে ছিন্নভিন্ন গেরুয়া শিবিরের রক্ষণ

ভোটের আগে ত্রিফলা আক্রমনে ছিন্নভিন্ন গেরুয়া শিবিরের রক্ষণ

বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের অনুগত দুই বিজেপি নেতাকে বেআইনি টাকা লেনদেনের অভিযোগে পুলিশ গ্রেফতার করলো। এর আগেও চাকরী দেওয়ার নাম করে মুকুল রায় ঘনিষ্ঠ এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। একাধিক নেতার দুর্নীতি গ্রস্ততার অভিযোগে গ্রেফতার হওয়ার কারণে স্বাভাবিক ভাবেই প্রাক নির্বাচন পর্বে চাপের মুখে গেরুয়া শিবির। বিশেষত উত্তরবঙ্গের জলপাইগুড়ি ও আলিপুরদুয়ার জেলার বিজেপি নেতৃত্ব খুবই সঙ্কটজনক অবস্থানে। প্রসঙ্গত এই দুই জেলাকে বিশেষ নজরে রেখেছিলো বিজেপি। কিন্তু উল্লেখযোগ্য ভাবেই পঞ্চায়েত নির্বাচনের অল্প দিন আগে বিজেপি দুই শীর্ষ নেতা   জলপাইগুড়ি জেলা বিজেপির সহ সম্পাদক শুভঙ্কর ঘোষ এবং আলিপুরদুয়ার জেলা বিজেপির সহ সভাপতি রাজু ঘোষ টাকার বেআইনি লেনেদেনের জেরে গ্রেফতার হয়েছেন। এছাড়া প্রাক নির্বাচন পর্বে বিজেপির বিরুদ্ধে বেআইনিভাবে টাকা ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

যদিও এই দুই জেলার বিজেপির শীর্ষ নেতা গ্রেফতারের প্রসঙ্গে বিজেপির আলিপুরদুয়ার জেলা সভাপতি তাঁর প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বললেন, “বিজেপি নেতারা ব্যাঙ্ক থেকে টাকা তুলে আনছিলেন পার্টি ফান্ড থেকে। তাঁদের মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়েছে। নির্বাচন কমিশনকে তাঁরা ওই টাকা দিয়ে দেবেন।” উল্লেখ্য কয়েকদিন আগেই জলপাইগুড়িতে সাত লক্ষ টাকা প্রতারণার ঘটনায় প্রবাল রাহা নামক জনৈক  মুকুল রায় ঘনিষ্ঠ ব্যক্তিকে পুলিশ গ্রেফতার করে। তদন্তের প্রয়োজনে এরপর ধৃত ব্যক্তিকে জেরা করে পুলিশ জানতে পারে বিজেপি প্রচারে তিনি অনেক টাকা দিয়েছেন। এইভাবে পুলিশ শুভঙ্কর ঘোষের নাম জানতে পারে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বিজেপি নেতা শুভঙ্কর ঘোষ ১৩ লক্ষ টাকা নিয়ে আলিপুরদুয়ার যাচ্ছিলেন। তিনি তা থেকে তিন লক্ষ টাকা কালচিনির বিজেপি নেতা অতুল সুব্বাকে দেন। বাকি ১০ লক্ষ টাকা নিয়ে তিনি আলিপুরদুয়ারের একটি রিসর্ডে আসেন সেখানে তাঁর জন্যে অপেক্ষা করছিলেন আলিপুদুয়ারের বিজেপি নেতা রাজু ঘোষ। এদিন ঐ টাকা হাত বদলেরই কথা ছিলো। এবং পরিকল্পনা ছিলো ওই টাকা বিজেপির আলিপুরদুয়ার জেলা সভাপতি গঙ্গাপ্রসাদ শর্মাকে দেওয়ার । অবশ্য  বিজেপির জলপাইগুড়ি জেলার সভাপতি দেবাশিস চক্রবর্তী এই বেআইনি ভাবে টাকা হাত বদলের কথা অস্বীকার করেছেন। উলটে তাঁর দাবি, পঞ্চায়েত ভোটের আগে তাঁদের নেতাদের মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হচ্ছে ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!