এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > অন্ধকারে আক্রমন তৃণমূল নেতার উপর, ৮৫ জন বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ

অন্ধকারে আক্রমন তৃণমূল নেতার উপর, ৮৫ জন বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ

শুক্রবার রাত প্রায় সাড়ে দশটা টা নাগাদ উত্তরদিনাজপুরের কালিয়াগঞ্জের তরঙ্গপুর বাজারের নিকট নিজের বাসভবনের সামনে বিরোধীপক্ষের নিযুক্ত দুষ্কৃতিদের হাতে জখম হলেন তৃণমূলের রাজ্য সম্পাদক অসীম ঘোষ। ঐদিন রাতে কালিয়াগঞ্জের তরঙ্গপুর বাজারে নিজেরই তেলকলের অফিসে দলীয় প্রার্থীদের সঙ্গে বৈঠক সেরে বাড়ি ফিরছিলেন অসীম বাবু । বাড়ি থেকে একশো মিটার দূরে গাড়ি থেকে নামেন। ঐসময়ে এক দল দুষ্কৃতী হাতে তির, ধনুক, হাসুয়া ও তলোয়ার সহ তাঁর ওপর হামলা করে। কোনোমতে প্রাণ বাঁচিয়ে অসীম বাবু বাড়ি চলে গেলেও তাঁর ঘনিষ্ঠ টিএমসিপি-র কালিয়াগঞ্জ ব্লক সভাপতি স্নেহাশিস ভট্টাচার্য জখম হন। স্নেহাশিস বাবুর ডান হাতে আঘাত লেগেছে বলে জানা গেছে। শুধু এইটুকুই নয় অভিযোগ এরপরে দুষ্কৃতীরা অসীমবাবুর বাড়ির পাশে তৃণমূল প্রভাবিত একটি ক্লাবে ঢুকে চেয়ার-টেবিল ও ক্লাবের সামনে রাখা তৃণমূল কর্মীদের তিনটি মোটরবাইক ভাঙচুর করে। উত্তর দিনাজপুর তৃণমূলের প্রাক্তন জেলা সভাপতি অসীম বাবু অভিযোগ করে বললেন গোটা ঘটনার পিছনে বিজেপির হাত আছে। সেদিন রাতেই তাঁকে খুনের চেষ্টার অপরাধে তিনি কালিয়াগঞ্জ ব্লকের বিভিন্ন এলাকার অধিবাসী ৮৫ জন বিজেপি নেতা কর্মীর বিরুদ্ধে কালিয়াগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

শনিবার সকালে পুলিশ বিজেপির তিন কর্মীকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে। এদিন পুলিশ সুপার শ্যাম সিংহ বললেন, ”যদি অসীমবাবুকে খুনের চেষ্টা-সহ অভিযোগগুলিতে জড়িত থাকার প্রমাণ মেলে ওই তিন জনের বিরুদ্ধে, তা হলে তাঁদের গ্রেফতার করা হবে।” শুক্রবার রাতেই তৃণমূলের রাজ্য নেতৃত্বের পক্ষ থেকে এই ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়ে জেলা নেতৃত্বকে বলা হয়েছে, এই বিপদের সময়ে তাঁরা যেন অসীম বাবুর পাশে থাকেন। এদিকে এদিনের ঘটনার সব অভিযোগ কার্যত অস্বীকার করে বিজেপির জেলা সভাপতি নির্মল দাম বললেন ,” দলের কোনও নেতা-কর্মী অসীমবাবুর বাড়ি বা অন্য কোথাও হামলা চালাননি। এ সবই তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফল। আর না হলে অসীমের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধের ঘটনা।” বরং পালটা অভিযোগ এনে তিনি বললেন ,””নজর ঘোরাতে বিজেপির নেতা-কর্মীদের মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়েছে তৃণমূল।” একই সুরে শাসকদলের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে কালিয়াগঞ্জের কংগ্রেস বিধায়ক প্রমথনাথ রায় ও সিপিএমের জেলা সম্পাদক অপূর্ব পাল বললেন,”মনোনয়নপত্র তোলার প্রথম দিন থেকেই জেলার ন’টি বিডিও অফিসে বিরোধীদের বাধা দিচ্ছে তৃণমূল। তাই গণপ্রতিরোধ হতেই পারে। তৃণমূল নেতাদের বাড়িতে হামলার ঘটনাও অপ্রত্যাশিত কিছু নয়।” এত কিছুর পরেও আত্মবিশ্বাসী অসীম বাবু সংবাদমাধ্যমকে এদিন বললেন, “কংগ্রেস, সিপিএম ও বিজেপি একজোট হয়েও তৃণমূলকে হারাতে পারবে না।”

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!