এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উলটপুরাণ – পঞ্চায়েত সমিতি সহ তিন আসনে প্রার্থীই দিতে পারল না শাসকদল

উলটপুরাণ – পঞ্চায়েত সমিতি সহ তিন আসনে প্রার্থীই দিতে পারল না শাসকদল

অবিশ্বাস্য হলেও ঘটনাটি সত্যি !  আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনে হুগলির পান্ডুয়ার ইটাচুনা-খন্যান পঞ্চায়েতের দু’টি আসনে কোনো প্রার্থীই মনোনীত করতে পারেনি রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। আবার পঞ্চায়েত সমিতির একটি আসন নিয়েও দলের দুই প্রার্থীর মধ্যে বিরোধ চলছে। শাসকদলের স্থানীয় নেতা কর্মীদের একটি বড় অংশের মতে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের কারণেই দলের এই অবস্থা। পান্ডুয়ার অধিবাসী দলীয় ব্লক স্তরের এক নেতা এই প্রসঙ্গে সংবাদমাধ্যমকে বললেন, পঞ্চায়েতের যে দু’টি আসনে প্রার্থী দেওয়া যায়নি, সে দু’টি এ বার সংরক্ষিত হয়ে গিয়েছে। সেখানে সময়মতো প্রার্থীর শংসাপত্র মেলেনি। আর পঞ্চায়েত সমিতির আসনটিতে কে প্রার্থী হবেন, সেই নাম ঠিক সময়ে আসেনি।  প্রসঙ্গত উল্লেখ্য গত বিধানসভা নির্বাচনে গোটা হুগলী জেলার মধ্যে একমাত্র পান্ডুয়াতেই বামেরা জয়লাভ করেন।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

গত পঞ্চায়েত নির্বাচনেও এই ব্লকে তৃণমূল কংগ্রেস পরাজিত হয়। এখানে মোট ১৬টি পঞ্চায়েতের মধ্যে ১৩টি তে বামেরা জয়লাভ করে। পরে অনাস্থা এনে তৃণমূল আরও সাতটি পঞ্চায়েত এবং পঞ্চায়েত সমিতি ‘দখল’ করে। পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য শেখ আতাউর রহমান মণ্ডল তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে মনোনয়ন পাবেন না জানতে পেরে কংগ্রেস মনোনীত প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পত্র পেশ করেছেন। গত বার পঞ্চায়েত সমিতির একটি আসনে জিতেছিলেন তৃণমূল নেতা অসিত চট্টোপাধ্যায়।তিনি পঞ্চায়েত সমিতির বিদায়ী সহ-সভাপতি। কিন্তু এবারে ঐ আসন টি সংরক্ষিত হয়ে যাওয়ায় অসিতবাবু বোসপাড়া-তেতেরপাড় এলাকার আসনে মনোনয়নপত্র পেশ করেন। কিন্তু ঐ  বোসপাড়া-তেতেরপাড় এলাকার আসনে গতবার নির্বাচনের বিজয়ী প্রার্থী রিতা চৌধুরী এবারেও একই আসনে মনোনয়নপত্র পেশ করলে অশান্তির সৃষ্টি হয়। এখন ঐ আসনে কে দলীয়ভাবে স্বীকৃতি পাবে সেই নিয়ে উদ্বিগ্ন গোটা পান্ডুয়া। এদিকে শাসকদলের ভেতরের খবর অনুযাই মনোনয়ন পাওয়ার জন্যে দুই প্রার্থীই দলীয় নেতৃত্বের কাছে আবেদন করেন। অসিত বাবুর কথা অনুযাই দলের সিদ্ধান্তেই তিনি মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। অন্যদিকে রিতা দেবী বললেন, ”দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, গতবারের জয়ী প্রার্থীদের টিকিট নিশ্চিত। অথচ, এখন শুনছি আমার পরিবর্তে অসিতবাবু টিকিট পেতে পারেন।” আবার তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় সূত্রের খবর অনুসারে রিতা দেবী দলের পর্যবেক্ষক তথা মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের কাছে গিয়েছিলেন। অরূপ বাবু পান্ডুয়ায় দলের টিকিট বণ্টনের দায়িত্বে থাকা অসীমা পাত্রকে একটি চিঠি লিখে দেন। অসীমা দেবীর কাছ থেকে জানা জানা গেছে আজ সোমবার দলের জেলা বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হবে ও সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!