এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ভয় দেখিয়ে প্রাণে মারার হুমকি দিচ্ছেন দলীয় নেতারাই, বিস্ফোরক অভিযোগ তৃণমূলের অন্দরে

ভয় দেখিয়ে প্রাণে মারার হুমকি দিচ্ছেন দলীয় নেতারাই, বিস্ফোরক অভিযোগ তৃণমূলের অন্দরে

ভয় দেখিয়ে প্রাণে মারার হুমকি দিচ্ছেন দলীয় নেতারাই, বিস্ফোরক অভিযোগ তৃণমূলের অন্দরে। পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে শাসকদলের বিরুদ্ধে বিরোধীদের যে অভিযোগ ছিল এবার সেই একই অভিযোগ উঠলো তৃণমূলের তরফ থেকেও।আর এর মাঝেই তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল ফের প্রকট হয়ে উঠলো। দলের অন্দর থেকে অভিযোগ উঠছে যে দলের অন্য নেতারাই দলীয় কর্মীদের হুমকি দিচ্ছেন। কারণ কি ? কারণ হলো গোঁজের কাঁটা। প্রয়োজনের থেকে বেশি মনোনয়ন জমা পড়েছে। আর তাই এবার অনেক অনুনয় বিনয় করেও মনোনয়ন প্রত্যাহার করেননি প্রার্থীরা ফলে গোঁজের কাঁটা সরাতেই তাঁরা হামলা,মারধোর এমনকি প্রাণে মারার হুমকিও দিয়ে আসছেন বাড়ি গিয়ে অভিযোগ এমনটাই। এদিন ভাতারে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরে প্রাণ হারান এক টিএমসির সমর্থক রমজান মোল্লা এছাড়া গলসির টিএমসির প্রার্থী সুকুমার রুইদাসের বাড়িতেও হামলা চালানো হয় কারণ নাকি সেই গোঁজ প্রার্থী। অভিযোগ যে দলের কথা না শুনে মনোনয়ন পত্র জমা করেছিলো তাঁরা।যদিও রমজান মোল্লার মৃত্যুতে টিএমসির গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের কোনো যোগসূত্র নেই এমনটাই জানিয়েছেন তৃণমূল নেতৃত্বরা। রাজনৈতিক সূত্রের খবর থেকে জানা যায়, সুকুমার রুইদাস গতবারের পঞ্চায়েত ভোটে যে কংগ্রেস প্রার্থী স্বপন বাগচীকে হারিয়ে তৃণমূলের মানরক্ষা করেছিলো সেই স্বপণ বাগদীকে এবার তৃণমূলে টেনে ভোটের টিকিট দেওয়া হল অথচ বাদ পড়েছিলেন সুকুমারবাবু।তাই তিনি আলাদ করে মনোনয়ন পত্র জমা দেন।এরপর থেকেই নাকি তাঁর উপর মনোনয়ন প্রত্যাহারের চাপ আসে তাঁরই দলের পক্ষ থেকে।বাড়িতে বাইকবাহিনী হামলার পাশাপাশি ব্যাপক ভাঙচুরও করা হয় বলে অভিযোগে জানিয়েছেন গলসির লোয়া রামগোপালপুর গ্রাম পঞ্চায়েতে শিল্যা গ্রাম থেকে দাঁড়ানো গতবারের বিজেতা তৃণমূলপ্রার্থী সুকুমার রুইদাস।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এছাড়া গলসিরই নবখন্ড গ্রাম এলাকায় এক নির্দল প্রার্থীর বাড়িতেও হামলা চালায় তৃণমূলের দুষ্কৃতিরা।জানা গেছে মন্দিরা ঘোষ হলেন এখানের তৃণমূল প্রার্থী। এছাড়া অভিযোগে জানা যায় পারাজের ১৩ নম্বর সংসদে নির্দল প্রার্থী জয়ারানি দাসের স্বামীকে বেধড়ক মারধোর করা হয়,জয়াদেবী মনোনয়ন প্রত্যাহার না করায়।গলসি-১ সভাপতির অনুগামীরাই এই হামলা করিয়েছে বলে অভি্যোগে জানিয়েছেন জয়া দেবী। গলসির মতোই এরকম গোষ্ঠী কোন্দলের জেরে হিংসার নজির দেখা যায় মন্তেশ্বরের কুসুমপুর গ্রামে।তৃণমূল নেতা বাকু শেখের বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়ি ভাঙচুর করে তৃণমূলেরই অপর গোষ্ঠীর লোক।
তবে গলসি-১ ব্লকের ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ওখানেরই সংখ্যালঘু সেলের চেয়ারম্যান জাহির আব্বাস মন্ডল হামলা অভিযোগ নাকচ করে দিয়ে জানিয়েছেন যে তৃণমূলের কেউ কোনোরকম হামলা, হানাহানির সঙ্গে নাকি যুক্ত নেই। সুকুমার রুইদাসের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ থাকার জন্যেই তাকে এবার প্রার্থী করা হয়নি। এই বক্তব্যের সঙ্গে গলা মেলালেন ব্লকসভাপতি জাকির হোসেনও।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!