এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বঙ্গে পঞ্চায়েত রঙ্গ: গোটা পঞ্চায়েতে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব ঠেকাতে নতুন পরিকল্পনা তৃনমূলের

বঙ্গে পঞ্চায়েত রঙ্গ: গোটা পঞ্চায়েতে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব ঠেকাতে নতুন পরিকল্পনা তৃনমূলের

পঞ্চায়েত ভোটের আবহে নিজেদের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব ঠেকাতে করল পরিকল্পনা নিলো তৃণমূল। বিরল নজির দেখা গেল উওর দিনাজপুরের ইসলামপুর ব্লকের গোবিন্দপুর গ্রাম পঞ্চায়েতে।এখানে সবাই প্রার্থী হতে চায় আর তাই ১৬ টি আসনে মনোনয়ন পত্র পড়েছে একাধিক তৃণমূল প্রার্থীর। নেতৃত্বের অনুরোধ ,হুঁশিয়ারি কোনো কিছুতেই কাজ হয় নি প্রার্থীদের বোঝানো যায়নি মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষদিন অব্দি। এ অবস্থায় নতুন পন্থা নিল শাসকদল। সরকারি ভাবে কাউকেই প্রার্থী করল না।তৃণমূল নেতৃত্ব পরিস্কারভাবে জানিয়ে দিল যে যারা জিতে আসবেন তাঁদেরই সরকারিভাবে দলীয় প্রতীক দেওয়া হবে। এই সিদ্ধান্তের ফলে নিশ্চিত হয়ে গেলো যে গ্রাম পঞ্চায়েতের নির্বাচনের ব্যালটে কোনো দলীয় প্রতীক থাকবে না।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

তবে গোষ্ঠী কোন্দল নিয়ে প্রশ্ন ঘনীভূত হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। প্রসঙ্গত এখানে ইসলামপুরের বিধায়ক কানাইলাল আগরওয়াল ও চোপড়ার বিধায়ক হামিদুল রহমানের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব-এর জেরেই এমন ঘটনা ঘটেছে। উভয়েই দাপট দেখাতে গিয়ে তাঁদের অনুগামীদের ঠেলে দিয়েছেন। ফলে উভয় দলের অনুগামীরাই ভোটের টিকিট পাওয়ার দাবীদার হয়ে ওঠেন। কিন্তু বিরোধ মিটিয়ে কাউকেই প্রার্থী করা সম্ভব হয়নি। এরকম পরিস্থিতিতে উভয় বিধায়ক এর বক্তব্য হল একাধিক দক্ষ প্রার্থী ছিল একই আসনে। সেই কারণেই নাকি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে সবাইকে লড়াবার। সবাই তৃণমূলের হয়ে লড়বে কিন্তু কারো কাছেই দলীয় প্রতীক থাকবে না। যদিও তৃণমূলের দাবী এটাকে গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব বলা মোটেই ঠিক নয়।

 

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!