এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কেন তৃণমূল করছিস প্রশ্ন তুলে বেদম প্রহার, অভিযোগ অস্বীকার গেরুয়া শিবিরের

কেন তৃণমূল করছিস প্রশ্ন তুলে বেদম প্রহার, অভিযোগ অস্বীকার গেরুয়া শিবিরের

আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনের মনোনয়নপত্র পেশ পর্ব জুড়েই রাজ্যের শাসকদলের বিরুদ্ধে বিচ্ছিন্ন ভাবে সন্ত্রাস পরিচালনার অভিযোগ উঠেছিলো । অভিযোগকারী ছিলেন প্রধানত বিরোধী দলগুলি। এখন পালটা আক্রমনের ঘটনার সাক্ষী রাজ্যবাসী। রবিবার রাতে নদীয়ার তেহট্টে তৃণমূল সমর্থকদের উপরে আক্রমনের অভিযোগ ওঠে বিজেপির বিরুদ্ধে। পূর্ব বর্ধমানের কালনাতেও তৃণমূল নেতাকে লক্ষ্য করে তির ছোড়া হয়। এই দুই জেলাতেই সন্দেহজনক কয়েকজন বিজেপির কর্মী সমর্থককে পুলিশ গ্রেফতার করেন। অন্যদিকে পশ্চিম বর্ধমানের রানিগঞ্জে আবার সিপিএম কর্মীদের বিরুদ্ধে তৃণমূলের দুই নেতাকে শারীরিক নিগ্রহের অভিযোগ উঠেছে। এদিনের হামলার ঘটনা প্রসঙ্গে তৃণমূলের তেহট্ট ব্লক কার্যকরী সভাপতি দিলীপ পোদ্দার অভিযোগ করে বললেন, রবিবার রাতে সাহাপুরে অনুষ্ঠান বাড়ি থেকে ফেরার পথে বিজেপির লোকজন আচমকাই আক্রমন চালায়। এই ঘটনায় ছ’জন দলীয় কর্মী আহত হন। তেহট্ট মহকুমা হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসার পরে দু’জনকে ছেড়ে দেওয়া হলেও বাকিরা এখনও ভর্তি আছেন। ওই রাতেই তৃণমূল কংগ্রেস তেহট্ট থানায় অভিযোগ দায়ের করে। এই অভিযোগের ভিত্তিতে তিন বিজেপি সমর্থককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এদিকে বিজেপির নদীয়া জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক অর্জুন বিশ্বাস পালটা অভিযোগ জানিয়ে বললেন, বাড়ি-বাড়ি ভোটের প্রচার সেরে ফেরার সময়ে তৃণমূলের লোকজন লাঠি-বাঁশ নিয়ে চড়াও হয়। তিন জন আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এই ঘটনার অভিযোগ জানানোর পরেও পুলিশ কাউকেই গ্রেফতার করেনি।অবশ্য তেহট্ট থানার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে বিজেপি সোমবার বিকেলে অভিযোগ দায়ের করেছে। এখন তদন্তের কাজ চলছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

অন্যদিকে কালনা ১ ব্লকে নান্দাই পঞ্চায়েত এলাকায় আক্রান্ত হন তৃণমূল নেতা শিবাশিস সাহা এদিন অভিযোগের সুরেই নিজের অভিজ্ঞতার কথা জানিয়ে বললেন, রবিবার সন্ধ্যায় বিজেপির লোকজন তাঁকে ধরে ‘কেন তৃণমূল করছিস’ বলে গালিগালাজ ও মারধর করে। গুলতি দিয়ে পাথর ও তির ছোড়া হয়। আঘাতে তিনি জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। এই ঘটনায় পুলিশ দোষী সন্দেহে পরিমল হেমব্রম, মহাদেব সরেন, জামনি মাঝি ও জয়দেব ঘোষ নামে চার বিজেপি কর্মীকে গ্রেফতার করেছে। যদিও বিজেপির দাবি এই ঘটনার সাথে তাঁদের কোনো যোগাযোগ নেই , মিথ্যে অভিযোগে তাঁদের হেনস্থা করা হয়েছে। রবিরাতেই রানিগঞ্জে আমরাসোতা এলাকায় প্রচার সেরে ফেরার সময়ে হামলার মুখে পড়েন মধু ঘোষ ও সমরেশ বাউরি নামে দুই তৃণমূল নেতা। তাঁদের অভিযোগ, রড ও লাঠি নিয়ে চড়াও হয় সিপিএমের কিছু লোকজন। উলেখ্য আমরাসোতা পঞ্চায়েতে গতবার পঞ্চায়েত নির্বাচনে সিপিএম বিজয়ী হয়েছিলো। এবারে ও পাঁচ টি আসনের সব কটি তেই বাম শরিক দল প্রার্থী দিয়েছেন। এদিনের ঘটনায় তাঁদের দাবি নির্বাচনী লড়াই জোড়ালো হবে জেনেই রাজ্যের শাসক দল তাদের মিথ্যে অভিযোগে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে।

Top
error: Content is protected !!