এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > টিকেট পেয়ে ফের বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে নেত্রী

টিকেট পেয়ে ফের বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে নেত্রী

২০১০ সালে সিপিআই (মাওবাদী) হামলায় খুন হওয়া তৃণমূল নেতা রাজেন্দ্রনাথ মাহাতোর স্ত্রী মণিকা মাহাতো, যিনি পুরুলিয়ার জঙ্গল মহলের তৃণমূল পরিচালিত বলরাম পুর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ছিলেন, তিনি তাঁর দল থেকে টিকিট না পাওয়ায় গত শুক্রবার দুপুর দুটো নাগাদ বিজেপির জেলা কার্যালয়ে যোগদান করেন। কিন্তু ২৪ ঘন্টা পার না হতেই শনিবার পুরুলিয়া জেলা তৃণমূল কার্যালয় সীতারাম ভবনে এসে পুনরায় তৃণমূলে যোগদান করেন এবং জেলা সভাপতি তথা রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চলের উন্নয়ন মন্ত্রী শান্তিরাম মাহাতো তাঁর হাতে ঘাস ফুলের পতাকা

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবং বলরাম পুর পঞ্চায়েত সমিতির ১৪ নং আসনের টিকিট ও হাতে তুলে দেন। ফলস্বরূপ ঐ দিন ব্লকে তিনি মনোনয়ন ও পেশ করেন, আশ্চর্যের বিষয় হোলো তৃণমূল তাকে এবার পঞ্চায়ের সমিতির টিকিট দিতে চায়নি। এদিকে বলরামপুর, মন্ত্রী শান্তিরাম মাহাতোর খাসতালুক এবং পুরুলিয়া জেলা পরিষদের সভাধিপতি সৃষ্টিধর মাহাতোর গড় সেখান থেকে হওয়ায় তৃণমূলের হেভিওয়েট নেত্রী মণিকাদেবীর বিজেপিতে যোগদানের ফলে বেশ চাপের মুখেই পরেন তাঁরা। তাই দলের রাজ্য নেতৃত্বের নির্দেশে পুণরায় তাকে নিজেদের দলে ফিরিয়ে আনেন মন্ত্রী শান্তিরাম মাহাতো এবং বলেন “বিজেপি ঐ মহিলা তৃণমূল নেত্রীকে ভুল বুঝিয়ে নিয়ে যায়, যেটা ঐ নেত্রী বুঝতে পেরে আবার দলে ফেরেন। ” এদিন তৃণমূলে ফিরে এসে তিনি জানান,”একটা ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল,এখন সেসব মিটে গিয়েছে, আর কোন সমস্যা নেই। ” পুনরায় তৃণমূলে ফিরে যাওয়ায় হতবাক বিজেপি জেলা সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী বলেন “ঐ নেত্রীকে ভয় দেখিয়ে তৃণমূলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। গোটা রাজ্যেই এইরকম চলছে, গণতন্ত্র বলে কিছু নেই। ” প্রসঙ্গত, নেত্রীর সাথে বিজেপিতে যোগদানকারী এক হাজার জন মানুষ পুনরায় নেত্রীর পথ অনুসরণ করেছেন বলে জানা গেছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!