এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোল ও কুরুচিকর পোস্ট আটকাতে বিশেষ উদ্যোগী হচ্ছে কেন্দ্র সরকার

সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোল ও কুরুচিকর পোস্ট আটকাতে বিশেষ উদ্যোগী হচ্ছে কেন্দ্র সরকার

এবার এক বিশেষ উদ্যোগ নিচ্ছেন কেন্দ্র সরকার সোশ্যাল মিডিয়ার ট্রোল এবং কুরুচিকর পোস্ট আটকানোর জন্য। বিষয়টি নিয়ে আপাতত চিন্তায় কেন্দ্রীয় সরকার। তাই এখন এবার ট্রোল নিয়ে মাথা ঘামাতে বাধ্য হচ্ছে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক। দিল্লিতে এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম সামিটে উপস্থিত হয়ে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী স্মৃতি ইরানি ট্রোলের ব্যাপারে নজরদারির কথা জানান।
সেলিব্রিটি থেকে শুরু করে রাজনীতিবিদ,খেলোয়াড়রা সকলেই কমবেশি ট্রোলের শিকার হয়ে থাকেন। এবং মাঝে মধ্যে একশ্রেণির নেটিজেনদের ট্রোল বা বিদ্বেষমূলক মন্তব্য সৌজন্যের সীমারেখা পাড় করে ফেলে। এবং তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী নিজেও সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলের শিকার হয়েছেন।
স্মৃতি বলেন, ট্রোলের উপর কীভাবে নজরদারি রাখা যায় তা নিয়ে সরকার চিন্তা ভাবনা করছে। এর সঙ্গে তিনি সোশ্যাল মিডিয়ার ইতিবাচক দিক নিয়েও আলোচনা করেছেন। তিনি বলেছেন, তথ্যপ্রযুক্তির এই অপব্যবহার ছাড়াও তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহারে অনেকে উদ্ভাবনী প্রতিভা প্রকাশের সুযোগ পায়। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে অনেক বেশি করে আম জনতার সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করা যায়।
সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম আয়োজিত সামিটে সেন্সর বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রসূন যোশীও উপস্থিত ছিলেন। ফলে তাকে পদ্মাবত ইস্যু সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ছবির পরিচালক যখন জানিয়েছিলেন যে ছবির কোনও দৃশ্যে কাঁচি চালানো হয়নি, তখন সেটাকে খবরে প্রকাশ করা হয়নি। কিন্তু, সেন্সর বোর্ডের পক্ষ থেকে পদ্মাবত ছবিতে ৪০০টি দৃশ্যে কাঁচি চালানো হয়েছিল এই খবর সহজেই পরিবেশন করে দেয়া হয়েছিল সংবাদমাধ্যমগুলোতে। প্রসূন যোশীর মন্তব্যকে সমর্থন করেন স্মৃতি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!