এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > সংখ্যালঘু উন্নয়ন নিয়ে ‘গোঁসা’, ‘গোঁজের কাঁটা’ হয়ে ঘুম ওড়াতে চলেছে শাসকদলের

সংখ্যালঘু উন্নয়ন নিয়ে ‘গোঁসা’, ‘গোঁজের কাঁটা’ হয়ে ঘুম ওড়াতে চলেছে শাসকদলের

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার ক্ষমতায় এসে বারবার সংখ্যালঘুদের উন্নয়নের কথা বলেছেন এবং তাদের বিভিন্ন সুবিধার কথা ঘোষণা করা সত্ত্বেও তার শাসকদলের বিরুদ্ধে সংখ্যালঘুদের বঞ্চনা করার অভিযোগ উঠল।অভিযোগ উঠেছে পুরুলিয়ার একাধিকব আসনে,মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর।অভিযোগটি হল-যে আসন সংখ্যালঘুদের পাওয়ার কথা ছিল সেটা তারা পায়নি কিংবা মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার পর সেখানে প্রার্থী হিসাবে অন্য কেউ সুযোগ পেয়েছেন।ফলে ‘গোঁজের কাঁটা’ মতো সমস্যা এসে বিঁধেছে শাসকদলের বুকে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

পুরুলিয়ারর জেলা পরিষদে শাসকদলের ভেতর থেকেই সংখ্যালঘুদের জন্য আওয়াজ তোলা হয়েছিলো।বলা হয়েছিলো ৩৮ টি আসনের ভিতর ১ টি আসন সংখ্যালঘুদের দেওয়া হোক,বিশেষ করে পাড়া ব্লকের সংখ্যালঘু আসনটি।গত সোমবার একই আসনে( ৩৩ নম্বর জেলা পরিষদের আসন)দুজনের মনোনয়নপত্র জমা পড়া নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ায়। একজন তৃণমূল নেতা রিয়াজ আহমেদ এবং অন্যজন পাড়া ব্লকের তৃণমূল কার্যকারী সভাপতি মনোজ সাহা।স্থানীয়দের থেকে জানা যায়,২০১৩ সাল থেকেই পাড়া ব্লকের দুবড়া অঞ্চল সভাপতি তিনি।গত বিধানসভা ভোটে তাঁর জন্যেই তৃণমূল ভালো ফলাফল করেছিলো।সংখ্যালঘুদের অঞ্চল হরিপুর এলাকায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় কয়েকটি আসনে জয় হয়েছে তৃণমূলের তাঁরই জন্য। তবুও সাথে কেন গোঁজের কাঁটা সেটা নিয়েই প্রশ্ন উঠছে বারবার।দলের লোকজনের থেকেই কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে যে রিয়াজবাবুকে সরিয়ে ওই স্থানে মনোজ সাহাকে প্রার্থী নিলে নির্বাচনের আগেই পিছিয়ে যাবে শাসকদল।ওই এলাকায় ৪২% সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের।তাই রিয়াজ আহমেদ দাঁড়ালেই তাদের লাভ হবে।সংখ্যালঘুদের ভোট পাওয়া যাবে।কিন্তু মনোজ সাহা বা রিয়াজ আহমেদের এখনো মুখ খোলেননি।এখন দল কাকে প্রার্থী হিসাবে নেয় সেটাই দেখার।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!