এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > শর্টকার্ট রাস্তা নিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী? পুরোনো শরিকের তীব্র তোপ গেরুয়া শিবিরকে

শর্টকার্ট রাস্তা নিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী? পুরোনো শরিকের তীব্র তোপ গেরুয়া শিবিরকে

ফের একবার শিবসেনার কোপের মুখে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মুখোমুখি না বসে,সংবাদমাধ্যমকে ই-মেলে সাক্ষাৎকার দেখা নিয়ে মোদীজির তীব্র সমালোচনা করল শিবসেনা। এর আগেও বিভিন্ন ইস্যুতে বিজেপির সঙ্গে সরাসরি সংঘাতে জড়িয়েছেন শরিকদল শিবসেনা। এবার ই-মেলে সাক্ষাৎকার প্রসঙ্গে শিবসেনার কটাক্ষের শিকার মোদীজি। শরিকদলের কর্মকর্তা জানিয়েছেন,এটি কোনো সাক্ষাৎকারই নয়। বরং এটাকে আত্মপ্রচার বলা যেতে পারে। সাক্ষাৎকারের এই রীতি আসলে একধরণের স্বগতোক্তি যা সাধারনত চীন ও রাশিয়ার মতো কমিউনিস্ট দেশে হয়।

এদিন শিবসেবার মুখপাত্রের সম্পাদকীয়তে লেখা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর উচিৎ ছিল ই-মেলে সাক্ষাৎকার না দিয়ে সরাসরি মানুষের প্রশ্নের সম্মুখীন হওয়া,জবাব দেওয়া।  ২০১৪ সালের লোকসভা ভোটের আগে মিডিয়াকেই বন্ধু করে রেখেছিলেন তিনি। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর কুর্সিতে বসার পর নিজের চালটাই বদলে ফেলেছেন মোদীজি। সাধারণ মানুষরা যাতে তাঁর কাছে পৌছাতে না পারে তার জন্য অদৃশ্য দেওয়াল তৈরি করে রেখেছেন, এমনটাই অভিযোগ। মোদীজির ব্যক্তিত্বের সঙ্গে এটা মানায় না। এভাবে সাক্ষাৎকার দেওয়া শুরু করলে তো সাংবাদিকরা কর্মহীন হয়ে পড়বে বলেই দাবী শিবসেনার।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে।

এর পাশাপাশি এটা জানিয়েছে, মুখোমুখি সাক্ষাৎকার হলে সাংবাদিকরা কোনো ভিত্তিহীন দাবী নিয়ে প্রশ্ন তুলতে পারতেন। কিন্তু সেই প্রশ্নের সম্মুখীন হওয়ার সম্ভাবনাকেই প্ল্যান করে ভেস্তে দিলেন মোদীজি। শুধুমাত্র নিজের পছন্দের প্রশ্নের উওর দিয়েছেন তিনি। এর জেরে দেশের কর্মসংস্থানের মতো গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুগুলো নিয়ে মানুষের মনে প্রশ্ন রয়ে গেছে। মোদীজি যেখানে নিজেকে দেশবাসীর ‘ প্রধান সেবক’ বলে দাবী করেন সেখানে কীকরে  বিতর্কিত প্রশ্নগুলো এড়িয়ে গেলেন তিনি?

প্রশ্ন ছুঁড়ে দিলেন শরিকদলের আধিকারিক। পাল্টা দাবীতে এটাও জানালেন,মানুষের প্রশ্নের জবাব না দিয়ে সাক্ষাৎকারের ক্ষেত্রে ‘শর্ট কাট’ রাস্তাই বাছলেন তিনি। উল্লেখ্য,শুধু শিবসেনাই নয় বিরোধী রাজনৈতিকদলগুলোও প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে এই ইস্যুতে সরব হয়েছে বলেই জানা যাচ্ছে। তবে শরিকদল তথা বিরোধীদের যোগ্য জবাব দিতে কোনো প্রকাশ্য প্রতিক্রিয়া এখনো আসেনি মোদীজির তরফ থেকে।

Top
error: Content is protected !!