এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ‘শঙ্কিত’ রাজ্যপালের ডাক বিজেপি সভাপতিকে, তীব্র কটাক্ষ তৃণমূল মহাসচিবের

‘শঙ্কিত’ রাজ্যপালের ডাক বিজেপি সভাপতিকে, তীব্র কটাক্ষ তৃণমূল মহাসচিবের

মনোনয়নপত্র জমা দিতে গিয়ে বারংবার সন্ত্রাসের সম্মুখীন হচ্ছে প্রার্থীরা। অভিযোগের তীর বারবারই তৃণমূলের দিকে। এই নিরাপত্তার অভাব ও বারংবার আক্রান্ত হওয়ার অভিযোগ নিয়ে এদিন রাজভবনের দ্বরস্থ হলেন বংগো বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায় সহ অন্যান্য নেতারা। এদিন রাজ্যপালের সাথে দেখা করার পর রাজভবন থেকে বেরিয়ে এসে দিলীপ বাবু বলেন, ”অশান্তির ঘটনায় রাজ্যপাল শঙ্কিত। কাল রাজ্য নির্বাচন কমিশনারকে ডেকে পাঠিয়েছেন রাজ্যপাল। সব ঘটনা শোনার পর রাজ্যপাল রাজ্যের মুখ্যসচিব ও স্বরাষ্ট্রসচিবকে ফোন করেন।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

কিন্তু তাঁরা কলকাতার বাইরে রয়েছেন।” এদিন তিনি অভিযোগ সহকারে বলেন, ‘বীরভূমে বিডিও অফিসের সামনে বিজেপির জেলা সাধারণ সম্পাদককে ছুরি মারা হয়েছে। মুর্শিদাবাদে জেলা সভাপতিকে রাস্তায় ফেলে লাঠি দিয়ে মারা হয়েছে। ৩২০টি বিডিও অফিসেই টার্গেট বিজেপি। গত দুদিন ধরে রাজ্যে সন্ত্রাস চলছে। নির্বাচন রক্তাক্ত হতে চলেছে। বিজেপি পিছিয়ে আসবে না।’ এরপরই দিলীপবাবুর রাজ্যপালের সাথে দেখা করার প্রসঙ্গ টেনে এনে তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় তৃণমূল ভবনে বলেন, ”রাজ্যপাল কাউকে ডেকে পাঠিয়েছেন এমন কথা কোনওদিন শুনিনি। রাজ্যপাল কি চাইছেন তা অন্য কারও জানা সম্ভব নয় বা প্রকাশ্যে আসাও কাম্য নয়। দিলীপ বাবুরা প্রমাণ করে দিলেন, রাজ্যের মানুষ আর রাজ্যপালকে নিরপেক্ষ ভাবতে পারছেন না।” এদিন তিনি কটাক্ষ করে আরো বলেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে রাজ্যে যে উন্নয়নের রথ ছুটছে তাকে ব্যাহত করবার চেষ্টা করছে কংগ্রেস-বিজেপি যৌথভাবে। গতকাল অধীরবাবু দেখা করেছিলেন, আজ মুকুল, দিলীপ ঘোষরা রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করেন। রাজভবন থেকে বেরিয়ে এসে তাঁরা বললেন, রাজ্যপাল ডেকে পাঠিয়েছেন। এমন হয় কোনওদিন শুনিনি দেখিওনি। এটা গণতন্ত্রের পক্ষে কতটা শুভ তা রাজ্যের মানুষ ভেবে দেখুক।’

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!