এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পঞ্চায়েত ভোটের আগে পঞ্চায়েতের দুর্নীতি বন্ধে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নতুন উদ্যোগ

পঞ্চায়েত ভোটের আগে পঞ্চায়েতের দুর্নীতি বন্ধে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নতুন উদ্যোগ

সামনেই পঞ্চায়েত নির্বাচন আর তার আগে গ্রাম পঞ্চায়েতের লাগাম ছাড়া দুর্নীতির রাশ টানতে উদ্যোগী হলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়।সূত্রের খবর, রাজ্য পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দফতরের তরফ থেকে একটি নির্দেশিকা জারি করে জানানো হয়েছে গ্রাম পঞ্চায়েত এখন থেকে সরাসরি ২৫০০০ টাকার বেশি খরচ করতে পারবে না।তার ঊর্ধ্বে খরচ করবার জন্য বিডিও ও জেলাশাসকের কাছ থেকে ছাড়পত্র নিতে হবে৷ নবান্নের পক্ষ থেকে সকল গ্রাম পঞ্চায়েতকে ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম পোর্টাল(জিপিএমএস) নামক একটি অনলাইন পোর্টালের সঙ্গে যুক্ত করা হয়েছে; যার সাহায্যে খুব সহজেই কোনো গ্রামের প্রকল্প,যাবতীয় খরচকে নজরে রাখতে পারবে তারা।একেই সঙ্গে সকল পঞ্চায়েতকেও সমস্ত তথ্যাদি আপলোড করবার নির্দেশ দিয়েছে নবান্ন।নবান্নের এক শীর্ষ কর্তার কথায়, ‘‘বিভিন্ন প্রকল্পে এখন একেকটি গ্রাম পঞ্চায়েত কোটি টাকার ওপর পেয়ে থাকে৷ অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সরাসরি গ্রাম পঞ্চায়েতগুলি সেই টাকা খরচ করতে পারত৷ ফলে বহু ক্ষেত্রেই দুর্নীতির অভিযোগ উঠত৷ দুর্নীতিতে লাগাম পড়াতেই তাই মুখমন্ত্রীর এই ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত৷’’

ভোটার আগে মুখ্যমন্ত্রীর এই সিদ্ধান্তে দল কার্যত দুটি ভাগে বিভক্ত হয়েছে একদল ভিতরে সকলেই যথেষ্ট ক্ষুব্ধ।তাদের বক্তব্য একটি সংগঠন ধরে রাখবার জন্য বেশ টাকার প্রয়োজন হয় আর মুখ্যমন্ত্রী এই ভাবে আমলামুখী হয়ে পড়লে নিচুতলার নেতৃত্বরা কোথায় যাবেন? তাঁদের কথায় মুখ্যমন্ত্রী ক্রমশই যেভাবে আমলা নির্ভর হয়ে উঠছেন, তাতে আগামীদিনে নিচুতলায় দল করাটাই সমস্যা হয়ে দাঁড়াবে৷ অন্য একটি অংশের মতে, ‘পাইয়ে দেওয়ার রাজনীতি’ বন্ধ করতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে৷ পরবর্তী পঞ্চায়েত নির্বাচনকে দুর্নীতি মুক্ত করে স্বচ্ছ ভাবে তা চালিত করবার উদ্যেশেই এই প্রয়াস।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!