এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পঞ্চায়েতের আগে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব সামলাতে নতুন ‘আশায়’ শাসকদলের শীর্ষনেতৃত্ত্ব

পঞ্চায়েতের আগে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব সামলাতে নতুন ‘আশায়’ শাসকদলের শীর্ষনেতৃত্ত্ব

দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূল কংগ্রেস ,দলের মধ্যে গোষ্ঠী বিরোধ রুখতে ব্লক ও বুথস্তরে সাত সদস্যের কমিটি গঠন করলো। জানা গেছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূল কংগ্রেস আগামী ৬ এপ্রিল মনোনয়ন পত্র জমা দেবে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য ২০১১ সালে রাজ্যের শাসনকার্যের দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকেই একপক্ষে দলের জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্র গোষ্ঠী ও অপরপক্ষে তপনের বিধায়ক বাচ্চু হাঁসদা, শংকর চক্রবর্তী ও সত্যেন রায়দের গোষ্ঠীর মধ্যে শুরু হয় অসন্তোষ।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

দুই গোষ্ঠীর মধ্যে এই অশান্তির কারণে গত বিধানসভা নির্বাচনে জেলার ছয়টি আসনের মধ্যে তপন ও কুমারগঞ্জ বাদে বাকি চারটিতেই হারতে হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসকে। তাই এই বিধানসভা নির্বাচনে সর্তকতামূলক বিশেষ পদক্ষেপ গ্রহণ করছে তৃণমূল কংগ্রেস। তৃণমূল কংগ্রেস সূত্রে জানা গিয়েছে, দুর্নীতি বা স্বজনপোষণের মত গুরুতর অভিযোগ না থাকলে গত নির্বাচনের বিজয়ী প্রার্থীদেরকে এই নির্বাচনে মনোনয়ন দেওয়া হবে। এ প্রসঙ্গে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দফতরের রাষ্ট্রমন্ত্রী বাচ্চু হাঁসদা বললেন, প্রার্থী নির্বাচন নিয়ে তাঁদের মধ্যে কোনও মতবিরোধ নেই। রাজ্য কমিটির তরফে এসেছে নির্দেশ যে ডিলিমিটেশন বা অন্য কোনও সমস্যা না থাকলে গতবারের জয়ীদেরও এবারে টিকিট দেওয়া হবে। তবে প্রার্থীর নামের তালিকা অবশ্যই বুথস্তর কমিটির মাধ্যমেই জেলা কমিটিতে জমা পড়বে। অন্যদিকে তৃণমূলের জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্র বললেন,” দক্ষিণ দিনাজপুরের ত্রিস্তর পঞ্চায়েতের সব কয়টি আসনই জয় করে, তা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়কে তাঁরা উপহার দেবেন। অতীতের সমস্ত মতানৈক্য দূরে ঠেলে দিয়ে একজোট ভাবেই তাঁরা এই নির্বাচন সম্পন্ন করবেন। প্রার্থী নিয়ে নিজেদের মধ্যে যাতে কোনও বিরোধ বা ভুল বোঝাবুঝি না হয় তার জন্য বুথস্তরের কমিটির উপরেই নামের তালিকা তৈরির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। “

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!