এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > বোর্ড গঠনের আগে রহস্যময়ভাবে নিখোঁজ হচ্ছেন জয়ী বিজেপি প্রার্থী, পুলিশ ‘কিছু’ জানে না

বোর্ড গঠনের আগে রহস্যময়ভাবে নিখোঁজ হচ্ছেন জয়ী বিজেপি প্রার্থী, পুলিশ ‘কিছু’ জানে না

অজ্ঞাত কারণবশত পঞ্চায়েত বোর্ড গঠনের আগেই আলিপুরদুয়ারের কুমারগ্রামের চ্যাংমারি গ্রাম পঞ্চায়েতের বিজেপির নব নির্বাচিত সদস্য গোপালকৃষ্ণ রায়ের হদিশ পাওয়া যাচ্ছে না। গত ১৫ আগষ্ট থেকে নিখোঁজ তিনি। ঘটনা সামনে আসতেই ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়েছে গোটা এলাকা জুড়েই। অভিযোগে বিজেপি জানিয়েছে, পুলিশ ওই পঞ্চায়েত সদস্যের পরিবারের কাছ থেকে নিখোঁজে এর কোনো ডায়েরি নিতে চাইছে না। এবং দাবীতে জানিয়েছে,তৃণমূল কংগ্রেসের মদতপুষ্ট দুষ্কৃতিরা ওই পঞ্চায়েত সদস্যকে অপহরণ করে লোকচক্ষুর আড়ালে রেখেছে।অভিযোগে একই কথা জানিয়েছেন নিখোঁজের স্ত্রী ঝর্না রায়ও।

তবে কুমারগ্রাম থানার আইসি নরেন্দ্র কালিকোটে বিজেপির সমস্ত অভিযোগকেই ভিত্তিহীন বলে দাবী করলেন। পাল্টা জানালেন,নিখোঁজের পরিবার থেকে কোনো লিখিত অভিযোগ দায়েরই করা হয়নি।  অন্যদিকে,তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি মোহন শর্মা বিজেপির বিরুদ্ধেই অভিযোগের আঙুল তুলে বলেন,বোর্ড গঠনের আগেই বিজেপি মিথ্যা অভিযোগ তুলে তৃণমূলের উপর বাড়তি চাপ সৃষ্টি করতে চাইছে। এবং জানালেন, পঞ্চায়েতের কোনো বিরোধী সদস্যকে তাঁরা অপহরণ করেননি।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

উল্লেখ্য,বিজেপির পঞ্চায়েত সদস্য গোপালকৃষ্ণবাবু চ্যাংমারির ১০/৮৪ বড় দলদলির গছিমারি বুথ থেকে জয়ী হয়েছিলেন। চ্যাংমারি গ্রাম পঞ্চায়েতে মোট ১০ টি আসনের মধ্যে বিজেপি, তৃণমূল উভয়ই ৫ টি আসন পেয়েছে। বিজেপির কুমারগ্রাম-২ মন্ডলের সভাপতি তিমির দাস জানান,যেহেতু পঞ্চায়েতে বিজেপি ও তৃণমূলের একই আসন পেয়েছে,তাই বোর্ড গঠনের আগেই বিজেপি সদস্যকে অপহরণ করে নিয়েছে তৃণমূল। পাল্টা চ্যালেঞ্জ জানিয়ে তিনি জানান,পঞ্চায়েতে বোর্ড বিজেপিই গঠন করবে। ২৪,২৭ এবং ২৮ আগষ্ট কুমারগ্রামে পঞ্চায়েত বোর্ড গঠন আছে। তার আগেই বোর্ড গঠনকে কেন্দ্র করে উত্তেজনার পারদ চড়ছে ক্রমশ দুই যুযুধান গোষ্ঠীর মধ্যে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!