এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পঞ্চায়েতে প্রার্থী পেতে শেষে বিয়েই করে ফেললেন বিজেপি নেতা

পঞ্চায়েতে প্রার্থী পেতে শেষে বিয়েই করে ফেললেন বিজেপি নেতা

উত্তর দিনাজপুরের করণদিঘির রসাখাওয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের আসনটি এবার মহিলা প্রার্থীর জন্যে সংরক্ষিত। বিজেপির তরফে মহিলা প্রার্থী মনোনীতও ছিলো। কিন্তু মনোনয়নপত্র পেশের কিছু সময় আগেই তিনি বিজেপি মনোনীত প্রার্থী হতে অনিচ্ছা প্রকাশ করলেন। অবস্থা অনুকূলে নেই দেখে শনিবার রাতেই রসাখাওয়াতে সালিশি সভা বসলো। সেখানে উপস্থিত ছিলেন গ্রামের ছেলে শাহাজান আলম। এদিন এলাকার মুরুব্বিরা জানালেন যে যদি আসনটি মহিলাদের জন্যে সংরক্ষিত না হতো তাহলে শাহজানবাবু ঐ আসনে শুধু প্রার্থীই হতেন না অনায়াসেই জয়লাভ ও করতেন।এরপর এই কথাটা ধীরে ধীরে আলোচনার গতিপথ অন্য দিকে চালিত করে। এই সময়ে কেউ একজন কথা প্রসঙ্গে বললেন যদি শাহজানবাবু বিবাহিত হতেন তাহলে সহজেই ওনার স্ত্রী’কে প্রার্থী করা যেত । এই সব কথপোকথনে কিঞ্চিৎ হতবাক হলেও শাহজানবাবু বললেন, “বিয়ে ইয়ার্কি নাকি! চাইলাম আর বিয়ে করে নিলাম?” তখনই সভায় উপস্থিত সকলে একসাথে গলা মিলিয়ে বললেন, ”বিয়ে আমরা দেব। তারপর তোমার বৌকে প্রার্থী করব।” ওমনি শাহজানবাবু ও ঠাট্টাকে আরোও একটু উস্কে দিয়ে জানালেন, ”ঠিক আছে, মেয়ে দেখুন।” আর যেই না এ কথা শাহজানবাবু বললেন এলাকার বিজেপি নেতা মহম্মদ জলিল সিদ্ধান্ত নিয়েই ফেললেন যেভাবেই হোক শাহজানবাবুর বিয়ে দিতেই হবে। এখন মুশকিল হলো গ্রামে বিবাহযোগ্য কোনো মেয়ে পাওয়া যাচ্ছেনা। এমত অবস্থায় পাশের গ্রাম ছাগলগাছির প্রতি নজর পরতেই পাওয়া গেলো শাহেনা খাতুনের। শাহেনাদেবী শিক্ষিত , স্নাতকোত্তীর্ণ। এলাকায় পরিচিতিও রয়েছে।সেই রাতেই শাহেনাদেবীর বাড়ি গিয়ে উপস্থিত হলেন বিজেপি নেতারা। শাহেনাদেবী এমনিতেই বিজেপি মনোনীত প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেওয়া যেত। কিন্তু শাহজানবাবুর এলাকায় জনপ্রিয়তার কথা খেয়াল করলে শাহেনাদেবীর সাথে শাহজানবাবুর অবিলম্বে বিবাহ হওয়া জরুরী। পাত্র-পাত্রী বা উভয় পরিবারের স্বার্থে না হলেও বিজেপির দলীয় স্বার্থে তো বটেই। এসবের মধ্যেও শাহেনাদেবীর পরিবার দেখলেন পাত্র হিসেবে শাহজানবাবু ভালো। নিজের মুদির দোকান আছে। এলাকার লোকজনের সাথেও সুসম্পর্ক রয়েছে। আর শাহেনাদেবী আচমকা এই প্রস্তাব শুনে অস্বস্তিতে পড়লেও অল্প সময়েই তাঁর সম্মতি জানিয়ে দেন। এইভাবেই কোনো পূর্ব পরিকল্পনা ছাড়াই কয়েক ঘন্টার সিদ্ধান্তে রবিবার শাহেনাদেবী এবং শাহজানবাবুর বিবাহ সুসম্পন্ন হলো। সোমবারই রসাখাওয়া ২ গ্রাম পঞ্চায়েতে মনোনয়নপত্র পেশ করলেন শাহেনাদেবী ।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

নিজের বিবাহ প্রসঙ্গে শাহজানবাবু সংবাদমাধ্যমকে বললেন,”আমি কোনও দিন ভাবতে পারিনি এ ভাবে আমার বিয়ে হবে। সত্যি সবটাই ভাগ্য।” আর শাহেনাদেবী বললেন, ”খুব ভাল লাগছে। জয়ী হলে আরও ভাল লাগবে। সবার আশীর্বাদ আছে। নিশ্চয়ই জয়ী হব।” হঠাৎ করে শাহজানবাবুর সাথে বিবাহ প্রস্তাবে রাজী হওয়ার বিষয়ে শাহেনাদেবী বললেন , ‘পরিবারের সকলে মিলেই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আমারও কোনও আপত্তি ছিল না।” এছাড়াও শাহজানবাবু বললেন ,”ভোটের পর বিয়ের প্রীতিভোজ হবে। আর শাহেনাদেবী জিতলে আয়োজন তো অনেক বড় করে করতেই
হবে।” তবে বিজেপির ধর্মের নামে রাজনীতি করার কৌশলকে গুরুত্ব না দিয়েই শাহজানবাবু বললেন,”আমাদের সেটা মনে হচ্ছে না। কোনও অসুবিধাও হচ্ছে না। সবাই গুরুত্ব দিচ্ছে।” সব মিলিয়ে নির্বাচনের উত্তেজনার মধ্যেও এলাকার বাড়ি বাড়ি প্রচারে যাওয়া নব দম্পতিকে এলাকার মানুষ খাতির যত্ন করতে কোনো ত্রুটি করছেন না ।

Top
error: Content is protected !!