এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > নানুর গণহত্যাকারীদের আত্মীয়রা এখন তৃণমূল প্রার্থী, তুমুল ক্ষোভ বীরভূমে

নানুর গণহত্যাকারীদের আত্মীয়রা এখন তৃণমূল প্রার্থী, তুমুল ক্ষোভ বীরভূমে

বীরভূমের নানুরে আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস মনোনীত প্রার্থী নিয়ে এবার মুখ খুললেন খোদ শাসকদলেরই অঞ্চল সভাপতির। তৃণমূল কংগ্রেসের অঞ্চল সভাপতি আব্দুল খালেক এদিন অভিযোগ করে বললেন নানুরে পঞ্চায়েত নির্বাচনে প্রার্থী করা হয়েছে খুনের অভিযোগে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্তদের পরিবার থেকে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

কিন্তু ঐ এলাকায় দলীয় সংঘর্ষে শহীদের পরিবারগুলি কোনো মর্যাদাই পায়নি। উল্লেখ্য ২০০০ সালের ২৭ জুলাই বীরভূম জেলার নানুর থানা এলাকার সূচপুরে একটি গণহত্যা সংঘটিত হয়েছিল। সেখানে এগারো জন ভূমিহীন ক্ষেতমজুরকে হত্যা করা হয়েছিল। অভিযুক্ত ছিল স্থানীয় সিপিএম সদস্যরা।আর এই ঘটনার প্রধান সাক্ষী ছিলেন আব্দুল খালেক।অভিযোগ এই গণহত্যায় অভিযুক্ত সিপিএম কর্মীরা এখন তৃণমূলের সদস্যপদ গ্রহণ করে এলাকা শাসন করছে। প্রসঙ্গত ২০০০ সালে গণহত্যার অল্প সময়ের মধ্যেই সিপিএম নেতৃবৃন্দ দাবি করেন নিহতেরা ডাকাত। যদিও পরে মেনে নেয় নিহতেরা ক্ষেত মজুর ছিলেন। এই অঞ্চলের তৎকালীন সাংসদ সোমনাথ চট্টোপাধ্যায় নিহতদের ভাড়াটে গুন্ডা, ডাকাত ও কুখ্যাত সমাজবিরোধী হিসেবে বর্ণনা করেছিলেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!