এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > জেলে যদি যেতেই হয়, খুন করেই জেলে যাব – বিস্ফোরক রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী

জেলে যদি যেতেই হয়, খুন করেই জেলে যাব – বিস্ফোরক রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী

শুক্রবার বহরমপুরে জেলা প্রশাসনিক ভবনের সামনে পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রাক আবহে শাসকদলের সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে অনশন কর্মসূচি নিয়েছিল প্রদেশ কংগ্রেস।
সেই জনসভায় কংগ্রেস নেতা এবং প্রাক্তন মন্ত্রী হুমায়ুন কবির এর হুমকিকে নিয়ে চাঞ্চল্য ছড়াল রাজনৈতিক মহলে।এদিন হুমায়ুনবাবুর সাথে একই মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন প্রদেশ সভাপতি অধীর চৌধুরি এবং অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়।এদিন সভামঞ্চ থেকে প্রকাশ্যে হুমায়ুন কবির পুলিশকে হুমকি দেন।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন যে,-” বিনা কারণে খুন না করে জেলে যাবো না।জেলে যদি যেতেই হয় খুন করেই যাবো। আমরা দেখছি, শাসকদলের সুরক্ষায় আছেন প্রশাসনিক আধিকারিকরা। আপনারা ভাবছেন, শাসকদলের নিরাপত্তায় থেকে যাবেন। ভুল ভাবছেন। যে সব আধিকারিক শাসকদলের দালালি করছেন, তাঁদের সরিয়ে দেব। প্রকাশ্যে বলছি, তাঁদের ওপর আক্রমণ করা হবে। তাঁদের সরিয়ে জেলে যাব। বিনা কারণে জেলে যাব না। খুন করেই জেলে যাব। সুরক্ষিত থাকতে পারবেন না। সুরক্ষিত থাকতে দেব না। আমাদের শিলাদিত্য খুন না করে ৯ মাস ধরে জেলে আছে। বহু কংগ্রেসিকে পুলিস চক্রান্ত করে বিনা কারণে জেলে ভরেছে। আমরাও বদলা নেব। প্রকাশ্যে বলছি। মস্তানি করার হিম্মত আমাদেরও আছে। তৃণমূল নেতাদের ঘরে ঢুকিয়ে দেওয়ার ক্ষমতা আছে আমাদের। দেখতে চান? হুমকি দিলে আমরাও বাহিনী নিয়ে বেরতে হতে পারি, দেখতে চান। কিন্ত আমরা আইন হাতে নিতে চাই না। সরকারি অফিসারদের বলব, এখনও সময় আছে, সমঝে চলুন।”
হুমায়ুণ কবিরের পরিপ্রেক্ষিতে মুখ খুললেন তৃণমূল জেলা সভাপতি সুব্রত সাহা।তিনি জানালেন কংগ্রসের কালচার জনসমক্ষে প্রমাণ হয়ে গেলো।প্রকাশ্য হুমকি দিতেও বাকি রাখছে না।হুমায়ুন কবিরের এই স্বভাবের জন্যেই নাকি তাকে শাসকদল থেকে বের কর দেওয়া হয়েছিলো।ঘাসশিবির তাঁর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও ভাবছেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!