এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > এবার ‘প্রার্থীপদ প্রত্যাহারের’ জন্য সন্ত্রাস শুরু হয়ে গেল শাসকের, অভিযোগ বিরোধীদের

এবার ‘প্রার্থীপদ প্রত্যাহারের’ জন্য সন্ত্রাস শুরু হয়ে গেল শাসকের, অভিযোগ বিরোধীদের

মনোনয়নের পর এবার ‘প্রার্থীপদ প্রত্যাহারের’ জন্য সন্ত্রাস শুরু হয়ে গেল শাসকের, অভিযোগ বিরোধীদের। রবিবার রাতে সন্দেশখালির আতাপুরে জেলা পরিষদের ৪৭ নম্বর আসনের বিজেপি প্রার্থী পুষ্পিতা প্রামাণিকের বাড়িতে গিয়ে শাসকদলের দুষ্কৃতিরা তাঁর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের জন্যে হুমকি দিয়ে শুধু তাঁর বাড়িই নয় পার্শ্ববর্তী এলাকার কিছু বাড়ি ভাঙচুর, লুঠপাট করে বলে বিরোধী শিবিরের অভিযোগ উঠেছে। একইসাথে হিঙ্গলগঞ্জের যোগেশগঞ্জ গ্রামের অধিবাসী স্বপন দলুই এদিন সংবাদমাধ্যমের মারফত দাবি করে বললেন, তিনি স্থানীয় বিডিওর দফতরে বিজেপি-র প্রার্থী হিসাবে মনোনয়নপত্র পেশ করতে গিয়েছিলেন । মনোনয়নপত্র পত্র পেশ করে তিনি রাস্তায় বের হতেই কয়েকজন তাঁকে ঘিরে ধরে।তাঁকে যত শীঘ্র সম্ভব প্রার্থীপদ প্রত্যাহার করতে বলা হয়।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এর পর তাঁর কাগজপত্র কেড়ে নিয়ে কান ধরে ওঠবোস করানোও হয় বলে অভিযোগ। এদিন মনোনয়নপত্র পেশ করতে আসা আরও কয়েকজনকে দুষ্কৃতীদের সামনে পড়ে একই ভাবে কান ধরে ওঠবোস করতে হয়েছে। শনিবার বসিরহাট-১ ব্লকের বিডিওর দফতরে এক বিজেপি প্রার্থী ফর্ম তুলতে গিয়েছিলেন। ব্লকের সামনেই এক দুষ্কৃতী তাঁর গালে চড় মেরে প্রার্থী হওয়ার প্রয়োজনীয় নথি কেড়ে নিয়ে পালায় বলে বিরোধী শিবিরের অভিযোগ। শনিবার এক দল দুষ্কৃতী বসিরহাট মহকুমা আদালতের আইনজীবীদের ঘরে ঢুকে হামলা চালিয়েছিল। আবার অও যাতে একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয় সে প্রসঙ্গে সচেতন থাকার জন্যে রবিবার বসিরহাট পুলিশ জেলার পুলিশ সুপার কে শবরি রাজকুমারের সঙ্গে আইনজীবীদের আলোচনা হয়। এদিনের আলোচনা সভায় স্থির হয়,সোমবার মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিনে কোনও অবস্থাতেই মনোনয়ন জমা দিতে আসা প্রার্থীর সঙ্গে দু’জনের বেশি ব্যক্তিকে মহকুমা শাসকের দফতরে ঢুকতে দেওয়া হবে না। দফতরের সামনেও বাইরের কাউকে ঘেঁষতেও দেওয়া হবে না। পুলিশকর্তাদের একটি দল দফতরের সামনে থাকবে। চারিদিকে এত অশান্তির মধ্যেও গোবিলা গ্রামের দুই কংগ্রেস প্রার্থী আনিসুর রহমান ও ইউসুফ মল্লিক বসিরহাট মহকুমা শাসকের দফতরে শান্তিপূর্নভাবে নিজেদের মনোনয়নপত্র পেশ করতে পেরে বেজায় আনন্দিত।উল্লেখ্য তাঁরা গত ক’দিন ধরে চেষ্টা করেও দুষ্কৃতীদের ভয়ে বিডিও অফিসে মনোনয়নপত্র পেশ করতে পারেননি। তবে এ বার মহকুমা শাসকের দফতরে গিয়ে মনোনয়নপত্র পেশ করতে কোনও অশান্তিতে পড়তে হয়নি তাঁদের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!