এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > মতুয়া ভোটের দিকে লক্ষ্য রেখে বড়সড় “মাস্টারস্ট্রোক” গেরুয়া শিবিরের – জানুন বিস্তারিত

মতুয়া ভোটের দিকে লক্ষ্য রেখে বড়সড় “মাস্টারস্ট্রোক” গেরুয়া শিবিরের – জানুন বিস্তারিত

“মতুয়া তুমি কার” – দীর্ঘদিন ধরেই এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজছে বাংলা। মতুয়া মহাসঙ্ঘের পাশে একমাত্র তারাই দাঁড়িয়েছে এই দাবি তুলে বর্তমানে তীব্র দড়ি টানাটানিতে নেমেছে রাজ্যের বর্তমান শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস বনাম বিরোধী দল বিজেপি। কেননা সামনেই লোকসভা নির্বাচন। আর সেই লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় দাগ কাটতে হলে সেই মতুয়ারা যে বড় ফ্যাক্টর তা ভালই জানেন এই দুই রাজনৈতিক দলের নেতা-নেত্রীরা।

মতুয়াদের উন্নয়নে একাধিক প্রকল্প নেওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন উদ্যোগ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ও রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে নেওয়া হলে এবার সেই মতুয়া ভোটব্যাংকে থাবা বসাতে সচেষ্ট হল বিজেপিও। সূত্রের খবর, রাজ্যের মতুয়া সম্প্রদায়ের মন জয় করতে এবার মতুয়াদের গুরুদেব গুরুচাঁদ ঠাকুরকে ভারতরত্ন সম্মান দেওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছেন রাজ্য বিজেপির অন্যতম সহ-সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদার, সাধারণ সম্পাদক প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় এবং সায়ন্তন বসুরা।

তবে শুধু মতুয়াদের গুরুদেবকে ভারতরত্ন সম্মান দেওয়ার দাবিই নয়, ঠাকুরনগর স্টেশনের নাম পরিবর্তন করে শ্রীধাম ঠাকুরনগর এবং সেই স্থানে একটি লেভেল ক্রসিংয়ের দাবিও কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী পীযুশ গোয়েলের কাছে জানিয়েছেন বিজেপির রাজ্য নেতারা। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের পক্ষ থেকে বারে বারেই অভিযোগ করা হয়েছে যে, এই রাজ্যে আগত শরণার্থীদের উৎখাত করবার জন্য চক্রান্ত করছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার।

 

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

কিন্তু এবারে রাজ্যের শাসকদলের সেই অভিযোগকে নস্যাৎ করতে সেই মতুয়াদের গুরুদেবকে ভারতরত্ন দেওয়ার দাবি তুলে মতুয়াদের মন পাওয়ার চেষ্টা করল গেরুয়া শিবির। এদিন এই প্রসঙ্গে রাজ্য বিজেপির জয়প্রকাশ মজুমদার, প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় এবং সায়ন্তন বসুরা বলেন, “মতুয়াদের স্বার্থ রক্ষার ক্ষেত্রে রাজ্যের তৃণমূল সরকার দ্বিচারিতা শুরু করেছে। একদিকে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরোধিতায় সরব হয়েছে, আবার অন্যদিকে মতুয়াদের পাশে থাকার বার্তা দিচ্ছে। এইভাবে দুটো জিনিস চলতে পারে না।”

এদিকে লোকসভা ভোটের আগে নিজেদের ভোটব্যাংককে শক্ত করতে উত্তরবঙ্গের বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠীগুলির সাথে সমঝোতায় রাস্তায় হাঁটার উদ্যোগ নিল বিজেপি। জানা গেছে, ইতিমধ্যেই কামতাপুর প্রগ্রেসিভ পার্টির নেতা অতুল রায়কে সঙ্গে নিয়ে বিজেপির প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায়, সায়ন্তন বসু পশ্চিমবঙ্গের ভারপ্রাপ্ত বিজেপির নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীর সাথে দীর্ঘক্ষন ধরে বৈঠক করেছেন। এমনকি উত্তরবঙ্গের কামতাপুরী ভোটকে কাছে টানতে সেই কামতাপুরী ভাষার স্বীকৃতির জন্য কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের কাছেও একটি চিঠি পাঠিয়েছেন রাজ্য বিজেপির নেতারা।

আর এই সমস্ত পৃথক পৃথক কর্মসূচি নিয়েই এবার লোকসভা নির্বাচনের আগে নিজেদের গড় শক্তিশালী করে নিতে চাইছে পদ্ম শিবির। একাংশের মতে, সম্প্রতি এই রাজ্যে গণতন্ত্র বাচাও নামক রথযাত্রা কর্মসূচি নিলেও সরকারের অসহযোগিতার জেরে তা ভেস্তে গিয়েছে। যাতে মুখ পুড়েছে বিজেপি নেতৃত্বদেরও। কিন্তু এতে করে যাতে রাজ্যে বিজেপির ধারালো আন্দোলন কোনো রকম গতি না কমে সেই জন্য এই মতুয়া ও কামতাপুরী ভোটব্যাংক কাছে টানতে নতুন করে উদ্যোগ নিল গেরুয়া শিবির।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!