এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মুখ্যমন্ত্রীর নজরে ‘দূর্ণীতিগ্রস্থরা’, প্রয়োজনে মামলা করে তদন্ত হবে

মুখ্যমন্ত্রীর নজরে ‘দূর্ণীতিগ্রস্থরা’, প্রয়োজনে মামলা করে তদন্ত হবে

সোমবার পৈলানে অনুষ্ঠিত হলো প্রশাসনিক বৈঠক। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ ঐ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মহেশতলা পুরসভার চেয়ারম্যান দুলাল দাস, ও প্রশাসনের অন্যান্য কর্তা ব্যক্তি ও দলীয় জনপ্রতিনিধিরা। এদিন মহেশতলা পুরসভার চেয়ারম্যান দুলাল দাস মুখ্যমন্ত্রী-কে প্রকাশ্য সভায় জানালেন ,”মহেশতলায় বজবজ ট্রাঙ্ক রোডের উপরে উড়ালপুল তৈরি হচ্ছে। রাস্তার পাশের নিকাশি নালা বন্ধ হয়ে গিয়েছে। সরকারের জমি ভূমি রাজস্ব দফতরের কর্মীরা রায়তি সম্পত্তি হিসাবে দেখিয়ে দিয়েছেন।বেআইনি ভাবে নথি তৈরি করে জমির চরিত্র বদল করা হয়েছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

যার জেরে এলাকায় নিকাশি নালা প্রায় বন্ধ হয়ে পরিস্থিতি জটিল হয়ে উঠেছে।” পুরসভার চেয়ারম্যানের এ হেন অভিযোগে কার্যতই মেজাজ হারিয়ে উত্তেজিত হয়ে ওঠেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী বললেন , ”প্রায় সব জেলা থেকেই ভূমি রাজস্ব দফতরের বিরুদ্ধে নানা বেআইনি কার্যকলাপের অভিযোগ আসছে। আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ করা হচ্ছে।” এরপর সাথে সাথেই রাজ্যের মুখ্যসচিব মলয় দে-কে উদ্দেশ্য করে মুখ্যমন্ত্রী নির্দেশ দেন , ”আপনি দুর্নীতি দমন শাখার মাধ্যমে ওই অফিসারদের উপরে নজরদারির ব্যবস্থা করুন।” নির্দেশ পাওয়া মাত্রই মুখ্যসচিব বৈঠকে উপস্থিত ভূমি রাজস্ব দফতরের কর্তাদের বললেন, ”অফিসে কাজের তালিকা ঝুলিয়ে দিন। কোন কাজ কত দিনে, কী ভাবে করা হচ্ছে- তার উপরে নজরদারি করুন।” এদিন মুখ্যমন্ত্রী কেবলমাত্র সরকারী অফিসারদের কাজের নির্দেশ দিয়েই থেমে থাকলেন না এরসাথে বৈঠকে উপস্থিত জনপ্রতিনিধিদেরও ‘সময় সাথী’ প্রকল্পে অভিযোগ দায়ের করার পরামর্শ দিলেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!