এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নতুন প্রজন্মকে কাছে টেনে ঘুরে দাঁড়াতে যুগান্তকারী পদক্ষেপ বামফ্রন্টের

নতুন প্রজন্মকে কাছে টেনে ঘুরে দাঁড়াতে যুগান্তকারী পদক্ষেপ বামফ্রন্টের

কিছুদিন আগে অবধি নতুন প্রজন্মের মধ্যে বাম রাজনীতি ও বাম দল গুলির প্রতি বিশেষ অনীহা ছিল না। রাজ্যে বাম দলের শাখা সংগঠন এসএফআই, ডিওয়াইএফআই তে ব্যাপক হারে নতুন প্রজন্ম যোগ দান করতো।কিন্তু বাং আমলের আবাসনের পর থেকে গত কয়েক বছর ধরে এই পরিসংখ্যানে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাচ্ছে। বর্তমানে বাম দলের শাখা দলগুলিতে নতুন প্রজন্মের অংশ গ্রহণের হার উল্লেখ্যযোগ্য ভাবে কমে গেছে। এই ঘটনায় রীতিমতো চিন্তিত দলের বরিষ্ঠ নেতৃত্ব। রাজ্যবাসীর মনে দলীয় জনমত গড়ে তুলতে আজও নানা সভা সম্মেলনে দলের বরিষ্ঠ নেতৃবর্গকে সক্রিয় ভূমিকা নিলেও তেমনভাবে জনমত গড়ে উঠছে না আর তাই সব দিক বিবেচনা করে এবার ঘুরে দাঁড়াতে নবীন প্রজন্মকে হাতিয়ার করতে চাইছে সিপিআইএম।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

আর তার জন্য সোস্যাল মিডিয়াকে মাধ্যম করতে চাইছে বাম শিবির। নতুন প্রজন্মের মধ্যে সময় ও বয়োসোচিত কারণে সোস্যাল মিডিয়াকে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করার প্রবণতা রয়েছে। তাই নতুন প্রজন্মের নজরে আনতে ইন্টারনেট টিভি চ্যানেলের সূচনা করা হচ্ছে। বাম দলীয় সূত্রের খবর অনুসারে বামদল এখন রাজ্যের প্রধান বিরোধীদল এমতো অবস্থায় ব্যায়বহুল স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেল এর উদ্বোধন ও পরিচালনা করা সম্ভবপর নয়। তার থেকে অনেক অল্প ব্যয়ে ইন্টারনেট টিভি চ্যানেল পরিচালনা করা সহজ। আর এলইডি টিভি র সাথে ইন্টারনেট সংযোগ ঘটিয়ে বা স্মার্ট ফোনের সাহায্যে অতি সহজেই ইন্টারনেট টিভি চ্যানেলর উপযোগ পাওয়া যাবে। বিষেষ সূত্রের খবর আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে এই পদক্ষেপের মহড়া হয়ে যাবে। এবং আগামী বছরে লোকসভা নির্বাচনের আগে বাস্তবায়িত হবে পার্টির নিজস্ব ইন্টারনেট টিভি চ্যানেল। এই চ্যানেলকে হাতিয়ার করে নতুন ভাবে জন্মত গঠন করে উদ্যোগী বাম শিবির। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য এর আগেই সিপিএমের নিজস্ব পোর্টাল ছিলো । এর সাথে ইন্টারনেট টিভি চ্যানেল যুক্ত হয়ে গেলে দলীয় ও বিরোধী শিবিরের নানা খবর সম্প্রচারিত করা অনেকটা সহজ হয়ে যাবে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!