এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > কর্ণাটকের জোট-সরকারের স্থায়িত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলে জল্পনা বাড়ালেন অমিত শাহ

কর্ণাটকের জোট-সরকারের স্থায়িত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলে জল্পনা বাড়ালেন অমিত শাহ

বিজেপি সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমান করতে পারেনি। ইস্তফা দিয়েচে বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী ইয়াদুপ্পা। খুশির আমেজে এখন জোট তাই সরকার গড়ার উদ্দেশ্যে মাঠে নেমেছে কিন্তু সবকিছুই ঠিক ছিল। তাল কাটছে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের একটি প্রশ্নে ? তিনি এদিন প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে বলেন জোটের উত্‍সবের মেয়াদ কতদিন? এদিন এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে কর্ণাটকের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে মুখ খোলেন অমিত শাহ। সেখানে বিজেপির বিরুদ্ধে কংগ্রেসের তোলা বিধায়ক কেনার অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করে জানান যে তাঁর দল কোনও অনৈতিক কাজে জড়িত নয়। পাশাপাশি তিনি কংগ্রেসের দিকে আঙ্গুল তুলে বলেন যে, ” কংগ্রেস ঘোড়া কেনাবেচা করেছে। শুধু তাই নয় ওরা আস্ত একটা আস্তাবলও কিনে নিয়েছে।”
আর এর পরেই তিনি বলেন, ”আমি জানি না কতদিন এই সরকার টিকে থাকতে পারবে। কিন্তু অশুভ জোট নিয়ে গঠিত সরকারের স্থায়িত্ব বেশিদিন হয় না।” যা নিয়ে নতুন করে জল্পনা ছড়িয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

উঠেছে প্রশ্ন তবে কি বিজেপিতে তলে তলে বিজেপিতে ঝুঁকেছেন কংগ্রেসের অনেক বিধায়ক। কিংবা জেডি(এস) এর বিধায়করা। বা দলের অন্দরেই চরয়েছে ক্ষোভ জোট নিয়ে আর তার খবর পেয়েই অমিত শাহের এই মন্তব্য। তবে কি সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমান করতে পারবে না জোট ? পর্বে জোটের সরকার আর আবার নির্বাচন হবে কর্নাটকে ? যদিও সেই প্রসঙ্গে কিছু না বলে মোর ঘুরিয়ে রহস্য রেখে দাবি করেছেন যে কণাটকে মানুষ বিজেপির পক্ষে রায় দিয়েছে আর তাই কর্ণাটকে সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসাবে বিজেপি ১০৪টি আসন পেয়েছে। এদিকে কংগ্রেসকে আক্রমণ করতেও ছাড়েননি এদিন তিনি। অভিযোগের সুরে বলেন যে ”কংগ্রেস পিছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় কেন্দ্রবিন্দুতে আসতে চাইছে।” আর শেষে রাহুল গান্ধী-র প্রধানমন্ত্রীর প্রসঙ্গে কটাক্ষ করে জানান যে, ”পরের বছর নির্বাচনে কংগ্রেস সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে দেখাক। তখনই বোঝা যাবে কত ধানে কত চাল? তবে অমিত শাহ যাই বলুন না কেন রাজনৈতিকমহল তাঁর কর্ণাটকের জোটের সরকারের স্থায়িত্ব নিয়ে করা মন্তব্যকে এত সহজে গুরুত্বহীন বলতে নারাজ। তাদের নজর এখন জোটের সরকারের দিকে।

Top
error: Content is protected !!