এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ” রাজ্যের কয়েকজন মন্ত্রী রাজ্য নির্বাচন কমিশনারকে মারধরে করেছে “

” রাজ্যের কয়েকজন মন্ত্রী রাজ্য নির্বাচন কমিশনারকে মারধরে করেছে “

” রাজ্যের কয়েকজন মন্ত্রী রাজ্য নির্বাচন কমিশনারকে মারধরে করেছে ” রাজ্যের মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে এমন গুরুতর অভিযোগ করলেন মুকুল রায়। সোমবার রাত্রে রাজ্য নির্বাচন কমিশনার বিজ্ঞাপ্তি জারি করেছিলেন যে,আজকেও মনোনয়ন জমা দেওয়া যাবে। কিন্তু সকল হতে না হতেই তা প্রত্যাহার করে নেন তিনি। আর এর কারণ নিয়ে কথা বলতে হিয়েই মুকুল রায় এদিন সাংবাদিক বৈঠকে এই কথা বললেন। তিনি জানান যে, “আমার কাছে খবর রয়েছে। সত্যি কি না জানি না। গতরাতে রাজ্যের কয়েকজন মন্ত্রী রাজ্য নির্বাচন কমিশনারকে তাঁর বাড়িতে গিয়ে ব্যাপক মারধর করেছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এমন লজ্জাজনক অবস্থায় পরিস্থিতি পৌঁছে গিয়েছে। উনি বাধ্য হয়েছেন গতকালের আদেশনামা বদল করতে।”পাশাপাশি তিনি আরো বলেন যে,তিনি বলেন, “তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের চিঠি পেয়ে নির্বাচন কমিশনার নির্দেশিকা প্রত্যাহার করেন। এই ধরনের কাজ কোনও সুষ্ঠু ও সভ্য সমাজে হয় না।”এদিন তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন যে ,নির্বাচন কমিশনার কাল বিজ্ঞপ্তি দিয়ে মনোনয়নের মেয়াদ বৃদ্ধির কথা জানালেন। আবার আজ সেই নির্দেশিকা প্রত্যাহার করে নিলেন। এটা কোনও পাড়ার ক্লাবেও হয় না। আমরা এর বিরুদ্ধে আইনি ও রাজনৈতিক লড়াই করব। আমরা আবার ভোটে লড়ব। আমরা নির্বাচন থেকে পালিয়ে যাব এটা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাবার কোনও কারণ নেই। আমরা ওঁর চোখে চোখ রেখে বলছি আমরা আগামী নির্বাচনে জয়লাভ করব।
বিজেপি যে রাজ্যে ব্যাপকভাবে আসছে তও তিনি জানান। তিনি এদিন বলেন,রাজ্যের নির্বাচন কমিশনকে দেখে আমার করুণা হচ্ছে। ওনাকে একটা অর্ডার বের করতে হচ্ছে। আবার ভয় পেয়ে সেই অর্ডার ফিরিয়ে নিতে হচ্ছে। বাংলার গণতন্ত্রকে এই জায়গায় এনেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আমরা প্রমাণ করে দেব রাজ্যের মানুষ বিজেপি -কে চাইছে। তাই ভয় পেয়ে এই সরকার এই ধরনের কাজ করছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!