এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > এলাকা দখলে এবার বিজেপির দিকে সন্ত্রাসের অভিযোগ নিয়ে এল তৃণমূল কংগ্রেস

এলাকা দখলে এবার বিজেপির দিকে সন্ত্রাসের অভিযোগ নিয়ে এল তৃণমূল কংগ্রেস

শনিবার রাতে দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার গোসাবার পুঁইজালি এলাকা তৃণমূলের সভায় আক্রমণ চালালো দুষ্কৃতীরা অভিযোগের তীর বিজেপির দিকে। দুষ্কৃতীদের আক্রমন চালানোর ঘটনায় আকষ্মিক ভাবেই উত্তেজিত হয়ে উঠলো এলাকা। এই ঘটনায় ১০ জন তৃণমূল কংগ্রেস দলীয় কর্মীও সমর্থক আহত হন। পুলিশকে লক্ষ্য করে বোমা ছোড়া হয় বলে অভিযোগ। তাতে পুলিশের কেউ হতাহত হননি বলে জানা গিয়েছে। এদিনের হামলায় জড়িত তরনামূলের অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ ঐ রাতেই বিজেপি নেতা সুকুমার বর – সহ সাত জনকে গ্রেফতার করে। ধৃতদের কাছ থেকে একটি পাইপগান ও গুলি উদ্ধার হয়েছে বলে পুলিশ শুতে জানা গেছে। যদিও বিজেপির বিরুদ্ধে আনা এই আক্রমনের অভিযোগ তারা অস্বীকার করেছে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর, কয়েক দিন আগে পুঁইজালি এলাকার বেশ কিছু তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী-সমর্থক বিজেপিতে যোগ দেন। এরপর থেকেই এলাকায় প্রচ্ছন্ন অস্থিরতা লক্ষ্য করা যায়।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এ দিন তৃণমূল যখন নির্বাচনী ‘বুথ মিটিং’ করছিল তখন দুষ্কৃতীরা হামলা চালায় এবং বোমাবাজি করে বলে অভিযোগ। এর জেরে সভায় উপস্থিত দলীয় নেতাদের মধ্যে আমতলি পঞ্চায়েতের বিদায়ী তৃণমূল প্রধান বিশ্বজিত্‍ সর্দার, উপপ্রধান ছবিরানি মণ্ডল গুরুতর আহত হন। আহতদের সকলকে প্রথমে ছোট মোল্লাখালি ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করানো হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজনে চার জনকে কলকাতার হাসপাতালে স্থানান্তরিত করানো হয়। এদিনের ঘটনা প্রসঙ্গে গোসাবার তৃণমূল বিধায়ক জয়ন্ত নস্কর অভিযোগের সুরে বললেন, ”বিজেপি এলাকা দখল করতে সন্ত্রাস সৃষ্টি করছে। ওদের দলে কিছু বাম কর্মী যোগ দেওয়ার পর থেকেই গোলমাল বেড়েছে।” উল্টোদিকে জেলা বিজেপির সাধারণ সম্পাদক প্রতিশ্রুতি দেবনাথ অভিযোগ দস্তুর মতো অস্বীকার করে পালটা আঘাত হেনে বললেন, ”কিছু তৃণমূল কর্মী বিজেপিতে আসায় ওদের রাগ ছিল। তৃণমূলই পরিকল্পিত ভাবে আমাদের নেতা সুকুমার বরের বাড়িতে হামলা করতে যায়। তখন সাধারণ মানুষই ওদের বাধা দেন।”

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!