এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মনোনয়নের ‘সন্ত্রাস’ প্রচার পর্বে, এড়াতে অভিনব পদক্ষেপ নিতে চলেছে রাজ্য বিজেপি

মনোনয়নের ‘সন্ত্রাস’ প্রচার পর্বে, এড়াতে অভিনব পদক্ষেপ নিতে চলেছে রাজ্য বিজেপি

রাজ্যের মনোনয়ন পর্বে যে সন্ত্রাস চলছে ভোটের প্রচারে যে সেই সন্ত্রাসের মুখোমুখি হবে না দলের নেতা কর্মীরা তা নিশ্চিতভাবে বলতে পারছে না কেউই। এদিকে পঞ্চায়েত ভোট জিততেও মারিয়া বিজেপি। ফলে নতুন উপায় বের করে প্রচার সারতে চলেছে বিজেপি।আর তাই আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনে সাফল্য পেতে বিজেপির কেন্দ্রীয় আইটি সেলের প্রস্তাবনায় এক বিশেষ কর্ম পদ্ধতি অবলম্বন করলো রাজ্য বিজেপি।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

গ্রাম বাংলার যুবা সম্প্রদায়কে দলীয় আদর্শে অনুপ্রাণিত করতে এই অভিনব পদক্ষেপ গ্রহণ বলে মনে করা হচ্ছে। ফেসবুক, ইউটিউব, টুইটার, হোয়াটসঅ্যাপ, ইনস্টাগ্রাম প্রভৃতির মতন সোস্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটের মাধ্যমে প্রচার চালানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। গ্রাম শহর নির্বিশেষে রাজ্যের যুবা সম্প্রদায় এখন স্মার্টফোন ব্যবহার করে।রাজ্য বিজেপি তাই অনলাইনে ভোটের প্রচারকে গুরুত্ব দিচ্ছে । এর মধ্যেই এই বিষয়ে দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সাথে রাজ্য বিজেপির সভাপতি ভিডিও কনফারেন্স করেছেন। জানা গেছে দিলীপবাবুকে সোশাল মিডিয়ায় ভোটের প্রচারের বিষয়ে বিস্তারিত গাইড লাইন দিয়েছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। এরপরেই দলের আইটি সেল ফেসবুকে দিলীপ ঘোষের একটি অফিসিয়াল পেজ তৈরী করে দিয়েছে।পঞ্চায়েত নির্বাচনে দলীয় কর্মীদের বার্তা দিতেও সোস্যাল মিডিয়াকে বিজেপি ব্যবহার করবে বলে জানা গেছে। জানা গেছে দিলীপবাবু এবার পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রচারে ফেসবুক লাইভ প্ল্যাটফর্ম করবেন। শুধু রাজ্য সভাপতি নন, দলের রাজ্য কমিটির অন্য নেতারাও পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রচারে ফেসুবক লাইভ-এর সুবিধা নেবেন বলে জানা গিয়েছে। এছাড়া প্রার্থীরাও অনলাইনে নিজেদের প্রচার করবেন। কেন্দ্রের শাসক দলের রাজ্য স্তরের নেতা নেত্রীদের মধ্যে জয়প্রকাশ মজুমদার, বিশ্বপ্রিয় মজুমদার, সায়ন্তন বসু, রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায়, দেবশ্রী চৌধুরি, সঞ্জয় সিং, লকেট চট্টোপাধ্যায় প্রমুখকে সোস্যাল মিডিয়ায় প্রচার কার্যের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এ প্রসঙ্গে বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু বললেন, “দলের কেন্দ্রীয় আইটি সেল অনলাইনে প্রচারের বিষয়ে একটি গাইড লাইন দিয়েছে। সেই নির্দেশিকা মেনে পঞ্চায়েত ভোটে সোশাল মিডিয়াকে হাতিয়ার করে আমরা প্রচারে নামছি। পঞ্চায়েত ভোটের চূড়ান্ত দিন ঘোষাণার পর সোশাল মিডিয়ায় প্রচার শুরু করে দেব।” পঞ্চায়েত নির্বাচনেত প্রচার কার্য ছাড়াও রাজ্যের উন্নয়নের জন্যে বিজেপির বিভিন্ন পরিকল্পনার কথাও এইভাবে মানুষের মধ্যে সম্প্রচারিত হবে হবে জানা যাচ্ছে।

Top
error: Content is protected !!