এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > আসামের নাগরিক পঞ্জী নিয়ে বিস্ফোরক অভিযোগ সামনে আনলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

আসামের নাগরিক পঞ্জী নিয়ে বিস্ফোরক অভিযোগ সামনে আনলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্পূর্ণ রাজনৈতিক বিভেদ ঘটিয়ে নিজেদের মুনাফা লোটার উদ্দেশ্যে বিজেপি সরকার আসামে বসবাসকারী বাঙ্গালীদের বিদেশি তকমা লাগিয়ে দিচ্ছে। এমনই অভিযোগ করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক করে অসম ইস্যুতে উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি বলেছেন উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে বেছে বেছে শুধুমাত্র বাঙালি পদবি দেখেই তাঁদের নাম নাগরিক পঞ্জীর তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

তাঁর বক্তব্যের সপক্ষে একাধিক বাঙালি ব্যক্তির নাম এবং নথি বের করে প্রমাণ দেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি আরও বলেন যে এনআরসির নজরদারিতে তালিকা তৈরি হচ্ছে বলে বিজেপি জানাচ্ছে  কিন্তু সেই এনআরসি তো বিজেপিরই তৈরি। তাহলে স্বচ্ছতা কি করে থাকবে?

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে।

দিল্লিতে এই ইস্যুতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের কাছে প্রতিবাদ জানানোর পাশাপাশি সংসদে তৃণমূল সাংসদরা সরব হবেন বলে জানিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। তিনি বলেন পশ্চিমবঙ্গেও একাধিক রাজ্যের বাসিন্দা চার-‌পাঁচ পুরুষ ধরে বাস করছেন। তাঁদের কি হটাৎ করে বিদেশি বলে তাড়িয়ে দেওয়া যায়? এ কোন ধরনের আইন?  মুখ্যসচিবকেও জানায়নি, DG-কেও জানায়নি
এত বড় ঘটনা অথচ আমাদের সঙ্গে কেউ কথা বলেনি। আমরা অসমবাসীর সঙ্গে রয়েছি ।ওখানে ইচ্ছা করে ইন্টারনেট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে । এই ৪০ লাখ মানুষ এখন কোথায় যাবেন ? বাংলাদেশ যদি এদের না নেয়, তখন কী হবে ? এরাজ্যের সীমানা অসম লাগোয়া, এটা খুবই উদ্বেগের, ওরা কেউ রোহিঙ্গা নয়। আমরা অসমে সংসদীয় দল পাঠাবো মানবতা ও আগুন নিয়ে খেলবেন না বলেও সতর্ক করলেন বিজেপিকে।  সাথেই বললেন যারা রিফিউজি হয়ে গেল তারা আমার ভাই, বোন।

উত্তরবঙ্গের একাধিক বাসিন্দা যাদের মধ্যে শিশু এবং মহিলাও আছেন বেআইনি ভাবে দেশে অনুপ্রবেশ করেছে অভিযোগ দিয়ে জেলে আটকে রেখেছে অসম সরকার। মুর্শিদাবাদের যে সব বাসিন্দা আসামে আছেন তাঁদের ওপর রোহিঙ্গা ট্যাগ লাগান হচ্ছে। এই নীতির তিনি তীব্র প্রতিবাদ করেন। সাথে এও বলেন অসম থেকে বিতাড়িত বাসিন্দাদের পশ্চিমবঙ্গে বসবাসের সুযোগ করে দেবেন। একটি মাত্র তালিকায় নাম না থাকার কারণে মুহূর্তে উদ্বাস্তু তকমা পেয়েছেন যাঁরা তাঁদের পাশে থাকতে প্রয়োজনে নিজে অসম যাবেন বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!