এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > গুরুতর অসুস্থ অর্থমন্ত্রী অরুন জেটলিকে সরিয়ে নতুন কেউ দায়িত্ত্বে? জল্পনা চরমে

গুরুতর অসুস্থ অর্থমন্ত্রী অরুন জেটলিকে সরিয়ে নতুন কেউ দায়িত্ত্বে? জল্পনা চরমে

Priyo Bandhu Media

কিডনির অসুখ ও সংক্রমণ নিয়ে গুরুতর অসুস্থ্ অবস্থায় গতকাল সন্ধ্যেয় দিল্লির এইমস হাসপাতালে ভর্তি হলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুন জেটলি। আজ তাঁর কিডনি প্রতিস্থাপন হওয়ার কথা। সফল অস্ত্রপ্রচারের পরে এইক্ষেত্রে তাঁর প্রায় তিন মাস সম্পূর্ণ বিশ্রাম প্রয়োজন। উল্লেখ্য কিছুদিন আগে বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের কিডনি প্রতিস্থাপন হয়। সেই সময় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তাঁকে বিদেশমন্ত্রীর পদ থেকে সরাননি। কিন্তু অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির ক্ষেত্রে শিল্পপতিদের একটি অংশ খুব চাইছে তাঁকে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর পদ থেকে চিরতরে অপসারন করতে। যেহেতু বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের দীর্ঘ অসুস্থতার সময়ে প্রধানমন্ত্রী এইরকম কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেননি তাই এইক্ষেত্রেও সেই সম্ভবনা প্রায় নেই। সূত্রের খবর অনুযাই কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীকে অপসারনের দাবির পশ্চাৎ এ রয়েছে টেলিযোগাযোগ দুই শিল্পগোষ্ঠীর মধ্যে বিবাদ। তাদের মধ্যে মোবাইলের কল-রেট, ডেটা-প্ল্যান নিয়ে বহু দিন ধরেই প্রতিযোগীতা চলেছে। শিল্পমহলের অনেকের মতে একটি সংস্থা যে ভাবে যথেচ্ছ হারে মোবাইলের কল-রেট কমিয়ে দিচ্ছে, তাতে বাকিদের ব্যবসায়িক ক্ষতির পাশাপাশি টেলিযোগাযোগ শিল্পও বিপদে পড়তে পারে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

ঐ কোম্পানীর এই ব্যবসায়িক নীতিতে পূর্ণ সমর্থন আছে অরুন জেটলির। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য প্রধানমন্ত্রীর প্রিন্সিপাল সেক্রেটারির কাছে জেটলির পাঠানো একটি নোট প্রকাশ্যে এসেছে। যেখানে ভোডাফোন-সহ বিভিন্ন সংস্থার বিরুদ্ধে বিদেশে চলা মামলায় সরকারের ভূমিকা নিয়ে স্বভাবতই প্রশ্ন তুলে জেটলি বলেছেন, “ওই সংস্থাগুলির কাছে কেন্দ্রের কোটি কোটি টাকা পাওনা। তাই বিভিন্ন মন্ত্রকের মধ্যে আরও বেশি সমন্বয় জরুরী।” একদিকে সরকারের মধ্যের এক অংশের যুক্তি জেটলির অনুপস্থিতিতে অর্থসচিব হাসমুখ আঢিয়াই কাজ সামলে নিতে পারবেন। তিনি প্রধানমন্ত্রীর আস্থাভাজন। অন্যদিকে অর্থমন্ত্রীকে অপসারণের দাবিতে অনড় শিল্পমহলের ঘনিষ্ঠ সরকারের অন্য অংশের দাবি অনুযাই, গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে একজন সচিবের তুলনায় এক জন মন্ত্রীর অবশ্যই প্রয়োজন আছে। এখন দেখার বিষয় এই যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী অভিজ্ঞ রাজনীতিবিদ ও বর্তমান কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর স্থায়িত্বের বিষয়ে কী সিদ্ধান্ত নেন।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!