এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > সুশান্ত ঘোষ, লক্ষ্মণ শেঠকে ‘ঢাল’ করে আরাবুল কাণ্ডের ‘সাফাই’ দিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়

সুশান্ত ঘোষ, লক্ষ্মণ শেঠকে ‘ঢাল’ করে আরাবুল কাণ্ডের ‘সাফাই’ দিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়

সম্প্রতি ভাঙরে পঞ্চায়েত নির্বাচনে নির্দলপ্রার্থীদের প্রচার মিছিলে গিয়ে  মাছিভাঙার হাফিজুল মোল্লা নামক এক ব্যক্তিকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা করা হয়। আর এই হত্যার অভিযোগে ওই এলাকারই তৃণমূল কর্মী আরাবুল ইসলামকে গ্রেফতার করে পুলিশ, তাও খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর নির্দেশে। এই হাফিজুল  হত্যার প্রতিবাদ করতেই এদিন মৌলালি থেকে ধর্মতলা অব্দি মিছিল করে বামফ্রন্ট। লালশিবিরের চেয়ারম্যান বিমান বসু গর্জে উঠে বলেন,”আরাবুলকে শাস্তি দেওয়ার জন্য পুলিশ ওকে ধরেনি, জনরোষ থেকে বাঁচাতেই ধরেছে।” ”মুখ্যমন্ত্রীর অঙ্গুলি হেলনেই ভাঙড়ে আরাবুল-বাহিনীর সন্ত্রাস চলছে।” এমনটাই বলেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র। ভাঙড়ের জমি জীবিকা বাস্তুতন্ত্র ও পরিবেশ রক্ষা কমিটির নেত্রী শর্মিষ্ঠা চৌধুরীরও প্রশ্নের আঙুল  তোলেন শাসকদলের দিকে, ”আরাবুল এত দিন নাগাড়ে সন্ত্রাস চালালেও পুলিশ কি ঘুমোচ্ছিল? তার ভূমিকা হঠাত্‍ এখন মুখ্যমন্ত্রী জানতে পারলেন?”

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

বিরোধীদের ক্ষোভ দেখে মুখ খোলেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও। তিনি জানান যে বামেরা কখনোই নিজেদের দলের লোকেদের দোষ দেখেনি। সুশান্ত ঘোষ,লক্ষণ শেঠ, দীপক সরকারের বিরুদ্ধে হাজার খুনের অভিযোগ থাকলেও তাদের গ্রেফতার করা হয়নি।তাই তাঁদের পক্ষে মুখ্যমন্ত্রীর রাজধর্ম পালনের মর্ম বোঝা সম্ভব নয়। অন্যদিকে হাফিজুল খুন প্রসঙ্গে বারুইপুর পুলিশ জেলার সুপার অরিজিৎ সিং এর বক্তব্য,”এই খুনে আরাবুলের জড়িত থাকার কিছু প্রমাণ মিলেছে বলেই ওঁকে গ্রেফতার করেছি। বাকিরাও গ্রেফতার হবে।”

 

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!