এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > গুণ্ডাবাহিনী নামিয়ে গণতন্ত্রের কন্ঠরোধ করে ‘উন্নয়ন’ দেখাচ্ছেন অনুব্রত, অভিযোগ বিরোধীদের

গুণ্ডাবাহিনী নামিয়ে গণতন্ত্রের কন্ঠরোধ করে ‘উন্নয়ন’ দেখাচ্ছেন অনুব্রত, অভিযোগ বিরোধীদের

মনোনয়ন পর্ব শুরু হতে না হতেই বীরভূমের বিভিন্ন প্রান্তে সন্ত্রাসে হামলা শুরু অভিযোগের তীর শাসকদলের দিকে। এরই মধ্যে এদিন বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মন্ডল তথা কেষ্ট বিনা লড়াইয়ে তৃণমূলের পঞ্চায়েত জেতার কথা বলেন। বিরোধীদের অভিযোগ পুলিশ সব কিছু জেনে শুনেও নির্বাক দর্শকের ভূমিকা পালন করেছে। এদিন কেষ্টবাবু বিরোধীদের উদ্যেশ্য করে বলেন, “কী ভাবে প্রার্থী পাবে বিরোধীরা! মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কন্যাশ্রী, যুবশ্রী, শিক্ষাশ্রী, চাল, সাইকেল, রাস্তা, জল সব দিয়েছেন। তা দেখেই মানুষ খুশি। বিরোধীরা বাড়ি বাড়ি ঘুরেও প্রার্থী পাচ্ছেন না। তাই বীরভূমের অধিকাংশ আসনেই তৃণমূল বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় জিতবে।”

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

লড়াই না হওয়ার প্রশ্ন উঠলে তিনি এর জবাবে বলেন, ”কোনও বাধা না মেনে যে সব প্রার্থী তৃণমূলের বিরুদ্ধে লড়তে চাইবেন তাঁরা যখনই মনোনয়ন করতে বেরবেন, দেখবেন রাস্তায় ‘উন্নয়ন’ দাঁড়িয়ে আছে। কখনও বা ব্লক অফিসে ‘উন্নয়ন’ দাঁড়িয়ে থাকবে। চারদিকে এত উন্নয়ন দেখে ইচ্ছা থাকলেও ওই ব্যক্তিরা আর মনোনয়ন জমা দিতে যাবেন না।” এরপরই তিনি পাল্টা প্রশ্ন করে বলেন, “যদি উন্নয়ন দেখে কেউ মনোনয়ন জমা না দেন, তার দায় কি তৃণমূলের? বিরোধীদের কোনও কাজ নেই তাই আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা সন্ত্রাসের অভিযোগ তুলছেন।” কেষ্ট বাবুর উন্নয়ন কৌশল খাড়া করার প্রসঙ্গ টেনে এনে বিজেপি নেতা শমীক ভট্টাচার্য বলেন, ”রাস্তায় উন্নয়ন দেখে আমাদের কর্মীরা না হয় ঘরে ঢুকে যাবেন, কিন্তু যে দিন উন্নয়ন কেষ্টবাবুর ঘরে ঢুকবে সে দিন উনি কোথায় যাবেন?”

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!