এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > ‘বিশ্ববাংলা’ মামলায় অভিষেক ব্যানার্জির বিরুদ্ধে বড় জয় মুকুল রায়ের

‘বিশ্ববাংলা’ মামলায় অভিষেক ব্যানার্জির বিরুদ্ধে বড় জয় মুকুল রায়ের

তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েই প্রথম প্রকাশ্য জনসভা থেকে মুকুল রায় কিছু নথি তুলে ধরে জানিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের ব্র্যান্ড ‘বিশ্ববাংলা’ আসলে রাজ্য সরকারের সম্পত্তিই নয়, তা আদতে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইপো তথা ডায়মন্ড-হারবারের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ব্যক্তিগত মালিকানাধীন। আর মুকুলবাবুর এহেন অভিযোগের পরেই তাঁর বিরুদ্ধে আলিপুরদুয়ার আদালতে ‘সম্মানহানির’ মামলা করেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তার আগে মুকুল রায়কে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের তরফে আইনি নোটিশ পাঠিয়ে ওই বক্তব্যের জন্য নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে বলা হয়, মুকুল রায় তা না করায় অভিষেকবাবুর আইনজীবী সেই মামলা করেন।

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

কিন্তু কলকাতা থেকে এতদূরে আলিপুরদুয়ারে গিয়ে ওই মামলা করায় তখন একাধিক প্রশ্ন ওঠে। বিশেষ করে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বা মুকুল রায় কেউই যখন সেখানকার অধিবাসী নন, বা মুকুলবাবুর বক্তব্যের স্থানও আলিপুরদুয়ার না হওয়া সত্ত্বেও সেখানে মামলা করায় অনেকেই অবাক হন। মুকুলবাবুর ঘনিষ্ঠ এক অনুগামী সেই সময় জানিয়েছিলেন, দাদার অভিযোগের ভিত্তি আছে, তাই মুখ বাঁচাতে মামলা করেছে। কিন্তু এই মামলায় হার নিশ্চিত – কলকাতায় এই ঘটনা ঘটলে আর মুখ দেখাবার জায়গা থাকবে না, তাই আলিপুরদুয়ারে গিয়ে মামলা করতে হচ্ছে। আর অবশেষে  এদিন  ‘বিশ্ববাংলা’ মামলায় বড় রায় দিল আলিপুরদুয়ার আদালত। আলিপুরদুয়ারের নগর দায়রা আদালতের বিচারক তাঁর রায়ে স্পষ্ট জানিয়ে দেন – মুকুল রায়ের মন্তব্যের যথার্থ ব্যাখ্যা করা হয়নি, ওই মন্তব্য মোটেই অভিযোগকারীর মানহানি করেনি, ফলে আদালত এই মামলা খারিজ করে দিচ্ছে। যদিও এই রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বা মুকুল রায় কারোর তরফেই এখনো কোনো সরকারি প্রতিক্রিয়া জানা যায় নি।

Top
error: Content is protected !!