এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে ভুল তথ্য দিয়ে বড়সড় বিপাকে অভিষেক ব্যানার্জি? সমন দিল্লি আদালতের

শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে ভুল তথ্য দিয়ে বড়সড় বিপাকে অভিষেক ব্যানার্জি? সমন দিল্লি আদালতের

এবার নিজের শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে ভুল তথ্য দেওয়ার অভিযোগ উঠল তৃণমূল কংগ্রেসের ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে। যার জেরে তৃণমূল সাংসদকে আদালত ডেকে পাঠালো। আগামী ২৫ শে জুলাই আদালতে হাজিরা দিতে হবে তাঁকে বলে দিল্লি সূত্রে জানা গেছে। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় নিজের শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে ভুল তথ্য দিয়ে নিজের ভোটারদের প্রতারণা করেছেন বলে দিল্লির এক আদালতে তাঁর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

সূত্রের খবর, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সার্থক চতুর্বেদী দিল্লির এক আদালতে অভিযোগ করেন, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ২০১৪ সালে নিজের মনোনয়ন পত্র পেশের সময় যে তথ্য দেন, তাতে তিনি উল্লেখ করেন যে তিনি আইআইপিএম নামক বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠান থেকে ২০০৯-এ এমবিএ ডিগ্রি পেয়েছেন। অথচ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানটি দিল্লি হাইকোর্টে অন্য এক মামলার পরিপ্রেক্ষিতে জানিয়েছে তারা কোনো ডিগ্রি দেয় না। ফলে, ভুল তথ্য দিয়ে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় জনপ্রতিনিধিত্ব আইন ভেঙেছেন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

সার্থক চাতুর্বেদীর এহেন অভিযোগের ভিত্তিতে দিল্লির অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সমর বিশাল জানিয়েছেন, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করার যথেষ্ট কারণ রয়েছে। তাই তাঁকে জনপ্রতিনিধিত্ব আইনের ১২৫এ ধারা ভাঙার অভিযোগে সমন করা হচ্ছে। আগামী ২৫ শে জুলাই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে আদালতে হাজির হতে হবে। সার্থক চাতুর্বেদী তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সরাসরি ‘প্রতারণার’ মামলা করেছেন বলে জানা গেছে।

যদিও, কলকাতার একটি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় শিবির নাকি জানিয়েছে, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্য পরের শুনানির দিন স্পষ্ট করা হবে। তাঁদের যুক্তি, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ডিগ্রির কথা বলেছিলেন ২০১৪-এর হলফনামায়, তা ২০০৯ সালে প্রাপ্ত। কিন্তু, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সংক্রান্ত রায় ২০১৪ সালে বেরিয়েছিল – তাই এক্ষেত্রে তাঁর বিরুদ্ধে সেই রায় প্রযোজ্য নয়। কেননা ২০১৯ সালে নিজের হলফনামায় অভিষেক ব্যানার্জি, ওই বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রাপ্ত স্বীকৃতি অনুযায়ী বেলজিয়ামের একটি সংস্থার ডিগ্রির কথা উল্লেখ করেছেন।

Top
error: Content is protected !!