এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুগামী কি এবার বিজেপির পথে বাড়ছে জল্পনা

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুগামী কি এবার বিজেপির পথে বাড়ছে জল্পনা

বিজেপিতে যোগ দেবার পর থেকেই মুকুল রায় দাবি করেছিলেন সবাই বিজেপিতে ঝুঁকবেন.তৃণমূল দলটাই থাকবে না। ভোট শুরু আগে দেখা গেলো মুকুল রায়ের হাত ধরে বড় বড় হেভিওয়েট নেতারা যোগ দিয়েছে বিজেপিতে। জানা যাচ্ছে আজ ফের দিল্লিতে মুকুল ম্যাজিক হতে চলেছে আর সেখানে তিন বিধায়ক সমেত, তিন পুরসভার পুরপিতা ও তাঁদের দলবল বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন।

এদিকে এর মাঝেই শাসকদলকে ভাবাচ্ছে অভিষেকের এক অনুগামী। তিনি হলেন রমাপ্রসাদ গিরি। যিনি যুব তৃণমূলের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা সভাপতি। জেলা পরিষদের কৃষি- সেচ কর্মাধ্যক্ষও। তিনি যুব তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ অনুগামী বলেই দলের অন্দরে পরিচিত ছিলেন। শনিবার সন্ধ্যা থেকে তাঁর নাগাল পাওয়া যাচ্ছে না। তৃণমূলের জেলা পরিষদ সদস্যদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে বিদায় নেবার পাশাপাশি কারুর ফোন ধরছেন না বলেও খবর। এদিকে বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন এই আশঙ্কায় দলের তরফ থেকে বার বার তাঁর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়। কিন্তু কোনোভাবেই যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিকে বিজেপিতে যোগদানের জল্পনার আর একটি কারণ হলো এই যুব নেতা নিজেও এক হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ খুলেছিলেন। যার নাম দিয়েছিলেন ‘টিএমওয়াইসি মিডিয়া ইনফো।’ কিন্তু আশ্চর্যভাবে দেখা গেছে যে, সোমবার এই গ্রুপের নামও বদলে গিয়েছে। নামের আগে ‘টিএমওয়াইসি’ তাকে সরিয়ে এখন শুধু রয়েছে ‘মিডিয়া ইনফো’। আগে যে গ্রুপ আইকনে ছিল তৃণমূলের প্রতীক, জোড়াফুলের ছবি। এখন সেখানে নিজের ছবি দিয়েছেন ওই যুব নেতা।ফলে এই সব নিয়েই জোড় জল্পনা ছড়িয়েছে শাসক দলের অন্দরে তবে কি তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে নাম লেখাতে চলেছে রমাপ্রসাদ গিরি?

এই নিয়ে তৃণমূলের জেলা সভাপতি অজিত মাইতি বলেন, ‘‘আমি এ রকম কিছু শুনিনি।’’ পরে তাঁর সংযোজন, ‘‘যে যাওয়ার যাবে, যে থাকার থাকবে।’’

জানা যাচ্ছে যে, তাঁকে অপসারণ করা হতে পারে এই খবর পেয়েই নাকি তিনি তৃণমূলের এক প্রাক্তন ছাত্র নেতা যিনি বর্তমানে বিজিপিতে আছেন তাঁর সাথে যোগাযোগ করেন। সেই নেতা আশ্বাস দেবার পরেই তিনি দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন। যদিও বিজেপি জেলা নেতৃত্বের দাবি যে আসতে চাইলেও বিজেপিতে ওনাকে নেওয়া হবে না।

তবে যে যাই বলুন জল্পনা কিন্তু মিটছে না। অন্যদিকে অভিষেক ঘনিষ্ঠ নেতার এইভাবে বিজেপিতে যোদানের জল্পনায় কিন্তু শোরগোল পরে গেছে রাজ্যে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!