এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > তিন মাসের বেতনের সঙ্গে ভারতীয় সেনাবাহিনীর জন্য আরও বড় প্রতিশ্রুতি উপহার দিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

তিন মাসের বেতনের সঙ্গে ভারতীয় সেনাবাহিনীর জন্য আরও বড় প্রতিশ্রুতি উপহার দিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়


পুলওয়ামা জঙ্গী হামলার প্রসঙ্গ উঠতেই আবেগাপ্লুত হয়ে গিয়ে বড়সড় প্রতিশ্রুতি করে ফেললেন সর্ব ভারতীয় যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি অভিষেকে বন্দ্যোপাধ্যায়। বললেন,’আমি যদি কোনওদিন পুত্রসন্তানের বাবা হতে পারি, তাহলে আমার সন্তানকে ভারতীয় সেনাবাহিনীতে পাঠাব। কারণ ভারতবাসী হিসেবে এটা আমার কর্তব্য বলে মনে করি। আর একজন বাবা হিসেবে আমি সেজন্য গর্বিতও হব।’

প্রসঙ্গত,দক্ষিণ ২৪ পরগণার বজবজের চড়িয়ালে একটি সেতুর শিলান্যাস করতে গিয়েছিলেন ডায়মন্ডহারবারের সাংসদ। সেখানেই পুলওয়ামা জঙ্গী হামলায় শহীদদের শ্রদ্ধাঞ্জলি দিতে গিয়ে নিজের ভাবী পুত্র সন্তানকে ভারতীয় সেনাবাহিনীতে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি করে ফেললেন তিনি। সেইসঙ্গে এটাও উল্লেখ করলেন,’দেশের প্রতিটি পরিবারের একজন সদস্যের সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়া উচিত।’

পাশাপাশি নিজের তিন মাসের বেতন সশস্ত্র সেনাবাহিনীর তহবিলে দান করলেন সাংসদ। এছাড়া পরেরদিন ট্যুইট করে সমস্ত দেশবাসীকে নিজেদের সন্তানকে সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার জন্যে অনুপ্রাণিত করার আবেদনও করেন অভিষেক।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

যুব তৃণমূল সভাপতি সন্ত্রসবাদের বিরুদ্ধে সুর চড়া করে বলেন, ‘উগ্রপন্থার কোনও জাত হয় না। কাশ্মীরের পুলওয়ামায় জঙ্গিদের হাতে ভারতের যে সেনা জওয়ানরা শহিদ হলেন তা অত্যন্ত নিন্দনীয়। সমস্ত ভারতবাসী জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন। উগ্রপন্থীদের এ ধরনের কাজের তীব্র ধিক্কার জানাই।’

তবে এরপরই তিনি এটাও জানান,’আমার সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত অভিমত হল, পরিবারপিছু একজনের সেনাবাহিনীতে যাওয়া উচিত।’ পরের দিনই ট্যুইট করে জানান,দেশের প্রত্যেক জনপ্রতিনিধি,বিধায়ক এবং সাংসদদের নিজেদের সন্তানদের দেশপ্রমে উদ্ধুদ্ধ করা উচিৎ। উচিৎ সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে অনুপ্রেরণা যোগানো। এরজন্যে গোটা দেশে সচেতনতা শিবির,সমালোচনা সভা,প্রশ্নোত্তর পর্বের আয়োজন করার পরামর্শ দেন তিনি।

আর এব্যাপারে স্কুল,কলেজ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিকে সক্রিয় হতে আহ্বান জানালেন অভিষেক। এর পাশাপাশি কেন্দ্রের সমালোচনা করতে ভুললেন না তিনি। বললেন,বুলেট ট্রেনের আগে জওয়ানদের সুরক্ষার জন্যে বুলেটপ্রুফ জ্যাকেটের প্রয়োজনীতা বেশি। এই শোকের সময়ে দেশবাসীকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে অনুরোধ করেন তৃণমূল সাংসদ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!