এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > আবারো শিক্ষামন্ত্রীর বাড়িতে বৈঠকে শোভন-বান্ধবী বৈশাখী! রাজনৈতিক জল্পনা অব্যাহত!

আবারো শিক্ষামন্ত্রীর বাড়িতে বৈঠকে শোভন-বান্ধবী বৈশাখী! রাজনৈতিক জল্পনা অব্যাহত!

শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় একসাথে এই দুটি নাম রাজ্য রাজনীতিতে আলোড়ন সৃষ্টি করার জন্য যথেষ্ট। আবারও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় এর নাম রাজনৈতিক মহলে উঠে এল। কারণ, এদিন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় সরাসরি গিয়ে হাজির হলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে। এদিন সকাল দশটা নাগাদ শিক্ষামন্ত্রীর বাড়িতে বৈঠক করতে যান বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রায় ঘন্টাখানেক ধরে বৈঠক হয় তাঁদের মধ্যে। তবে সূত্রের খবর, বৈশাখীর কলেজের সমস্যা নিয়ে শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন তিনি।

মিল্লি আল আমিন কলেজ এর রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অধ্যাপিকা হলেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। দীর্ঘদিন ওই কলেজে টিচার ইনচার্জ এর দায়িত্বে ছিলেন তিনি। কিন্তু গত বছর যখন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় এবং শোভন চট্টোপাধ্যায় দুজনেই বিজেপিতে যোগদান করেন, সেসময় রাজনৈতিক জটিলতার পরিপ্রেক্ষিতে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর পদ থেকে পদত্যাগ করতে চান। সেই অনুযায়ী তিনি ইস্তফা পত্র জমা দিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রীর কাছে। যদিও প্রাথমিকভাবে সেই ইস্তফাপত্র গ্রহণ না হলেও পরবর্তীতে আবার তিনি কয়েক মাস পর এই ইস্তফাপত্র পাঠান শিক্ষামন্ত্রীর কাছে।

এত কিছুর মধ্যেও শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় মিটিং হয়। এবং রুদ্ধদ্বার বৈঠকের কলে সমস্যা মোটামুটি ভাবে মিটে যায় বলেই জানা গিয়েছিল। তারপর এদিন কাজে যোগ দিতে যান বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় মিল্লি আল আমিন কলেজে কিন্তু কাজের জায়গায় গিয়ে তিনি বুঝতে পারেন কিছু একটা গন্ডগোল হয়েছে কারণ বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেছেন সোমবার মিলিয়ান আমিন কলেজের পরিচালন সমিতির পক্ষ থেকে নতুন টিচার ইনচার্জ নিয়োগ করার ব্যাপারে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে আর এই নিয়েই উঠেছে আপত্তি বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

যদিও কলেজ কর্তৃপক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, টিচার ইনচার্জ এর নিয়োগ করার ক্ষমতা পরিচালন সমিতির হাতেই ঠিক থাকে। তাই বেআইনি কোন কিছু ঘটেনি। অন্যদিকে, বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় এর নাম না করেই তাঁকে রীতিমতন কটাক্ষ করা হয়েছে মিল্লি আল আমিন কলেজের পরিচালন সমিতির পক্ষ থেকে। এদিন বলা হয়, টিচার্স ইনচার্জের পদে থেকে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় প্রায়দিনই ইস্তফা পত্র জমা দেন, যার ফলে কলেজের কাজে বিড়ম্বনার সৃষ্টি হচ্ছে। সেই সঙ্গে তিনি দীর্ঘদিন কলেজেও আসেননা, অন্য কাজে ব্যস্ত থাকেন। ফলে কলেজ চালাতে গেলে যে পরিমাণ দায়িত্ব থাকে, সেই দায়িত্ব যে নিতে পারবে সেরকম কাউকেই চেয়ারে বসানো হবে।

উল্লেখ্য, বেশ কয়েক মাস আগেও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় মিল্লি আল আমিন কলেজে যান। নিজের কলেজে গিয়ে তিনি অন্য আরেক অধ্যাপিকার সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে বচসায় জড়িয়ে পড়েন। এরফলে কলেজ কর্তৃপক্ষ যারপরনাই লজ্জিত হন। কারণ কলেজের ছাত্রীদের সামনে যে বাদানুবাদ তৈরি হয়েছিল, তাতে ছাত্রীরাও স্তম্ভিত হয়ে যায় বলে খবর। এদিন শিক্ষামন্ত্রীর বাড়ি থেকে বেরিয়ে বৈশাখী বন্দোপাধ্যায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে জানিয়েছেন, তিনি শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এর সঙ্গে শুধুমাত্র কলেজের সমস্যা নিয়ে কথা বলতে এসেছেন। অন্যদিকে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এ প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, ‘বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় অধ্যাপিকা। আমি শিক্ষামন্ত্রী। উনি আসতেই পারেন। এর মধ্যে কোনও নতুনত্ব নেই।’

সম্প্রতি বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় এবং শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বিজেপি থেকে তৃণমূলে ফেরা নিয়ে যথেষ্ট আলোচনা চলছে রাজনৈতিক মহলে। এদিন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এর সঙ্গে দেখা করতে আসা প্রসঙ্গে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় শিক্ষা ক্ষেত্রে সমস্যা সমাধানের জন্য পার্থ চট্টোপাধ্যায় এর সঙ্গে দেখা করতে আসছেন এটাও যেমন সত্যি, তেমন বিজেপি থেকে এই মুহূর্তে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় ও শোভন চট্টোপাধ্যায় তৃণমূলে ফেরার রাস্তা খুঁজছেন। সম্প্রতি কিছু ঘটনায় তাঁদের আচরণে তা স্পষ্ট । আপাতত দেখার মিল্লি আল আমিন কলেজ এর অধ্যক্ষার চেয়ারে কবে বসতে পারেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!