এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > আসন্ন উপনির্বাচন কি কার্যত এই হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার অগ্নিপরীক্ষা? বাড়ছে জল্পনা

আসন্ন উপনির্বাচন কি কার্যত এই হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার অগ্নিপরীক্ষা? বাড়ছে জল্পনা

 

সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনের উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রে কানাইয়ালাল আগরওয়ালকে প্রার্থী করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যেখানে শেষ পর্যন্ত জয়লাভ করতে পারেনি তৃণমূল। কংগ্রেসের শক্ত ঘাঁটি রায়গঞ্জে দাঁত ফুটিয়েছে পদ্মফুল। বিজেপির তরফে জয়ী হয়ে সাংসদ এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হয়েছেন দেবশ্রী চৌধুরী।

আর রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্র দখলে না আসার পরই রীতিমতো হতাশ হয়ে উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃণমূল সভাপতি পদে পরিবর্তন আনেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রায়গঞ্জে তৃণমূলের পরাজিত প্রার্থী কানাইয়ালাল আগরওয়ালকে জেলা তৃণমূলের সভাপতির দায়িত্ব দেন তিনি। কিন্তু এবার ফের অগ্নীপরীক্ষা দিতে হবে সেই কানায়ালাল আগরওয়ালকে।

কেননা উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ বিধানসভায় আগামী 25 নভেম্বর উপনির্বাচন রয়েছে। যেখানে দলীয় প্রার্থী তপন দেব সিংহকে জয়লাভ করানোর দায়িত্ব রয়েছে জেলা তৃণমূল সভাপতি কাঁধেই। তাই এমতাবস্তায় লোকসভা নির্বাচনে পরাজয় স্বীকার করলেও এখন দলীয় প্রার্থীকে জেতাতে ঠিক কতটা সক্ষম হন কানাইয়ালাল আগরওয়াল, সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত, সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে যদি বিধানসভা ভিত্তিক ফলাফল দেখা যায়, তাহলে কালিয়াগঞ্জে বিজেপি প্রার্থী পেয়েছিলেন 1 লক্ষ 18 হাজার 895 টি ভোট। অন্যদিকে তৃণমূল 62 হাজার 133 টি ভোট পেয়েছিল। তাই বর্তমানে এখানে দলীয় প্রার্থীকে জেতাতে বিপুল ভোটের মার্জিন ওতরানো করে কিভাবে জয়লাভ সম্ভব হবে, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে অনেক তৃণমূল নেতাকর্মীদের মধ্যেই।

বিশেষজ্ঞদের একাংশ বলছেন, জেলা তৃণমূলের সভাপতির দায়িত্ব নেওয়ার পর এই প্রথম কোনো নির্বাচন শেষ করতে হবে কানাইলাল আগরওয়ালকে। তাই তার কাছে এই নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তবে দীর্ঘ রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা থাকায় দলীয় প্রার্থীকে জেতাতে কানাইলাল আগরওয়াল অনেকটাই সক্ষম হবেন বলে মনে করছেন তার অনুগামীরা। কিন্তু এই ব্যাপারে ঠিক কি বলছেন উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের সভাপতি!

এদিন এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “জেলা সভাপতি হওয়ার পরে কালিয়াগঞ্জের প্রতিটি অঞ্চলে আমি গিয়েছি। সকলের সঙ্গে কথা বলেছি। সংগঠনকে মজবুত করার কাজ করছি। এই নির্বাচন আমার কাছে চ্যালেঞ্জ।” তবে কংগ্রেসিদের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত কালিয়াগঞ্জে একদিকে কংগ্রেসের ভোট কমানো, আর অন্যদিকে বিজেপির উত্থান রুখতে এবং তপন দেব সিংহের জয় নিশ্চিত করার জন্য কানাইলাল আগরওয়াল দলনেত্রীর কাছে পরীক্ষায় পাস করেন কি না, সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!