এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > ৩১ শে জুলাই-এর মধ্যে এই কাজটি না করলে কিন্তু শাস্তির খাঁড়া নেমে আসতে পারে

৩১ শে জুলাই-এর মধ্যে এই কাজটি না করলে কিন্তু শাস্তির খাঁড়া নেমে আসতে পারে

এবার দীর্ঘদিন ধরে আয়কর ফাঁকি দিয়ে আসছেন যারা তাঁদের জন্য কড়া পদক্ষেপ নিতে দেখা গেল আয়করদপ্তরকে। সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, যাঁদের বার্ষিক আয় ৫ লক্ষ টাকার বেশি তাঁরা যদি ৩১ জুলাই এর আগে রির্টান দাখিল না করেন তাহলে ৫ হাজার টাকা জরিমানা দিতে হবে। আর ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে যদি তা না করা হয় তাহলে গুনতে হবে জরিমানার ১০ হাজার টাকা। ওদিকে যাদের বার্ষিক আয় ৫ লাখ টাকার কম, তাঁদের জন্য জরিমানার টাকা স্বাভাবিকভাবেই কম,মাত্র ১০০০ টাকা। আয়করদপ্তরের এই বিজ্ঞপ্তি জারির পর থেকেই রীতিমতো অস্বস্তিতে পড়ে গেলেন বহুদিন ধরে কর না দেওয়া ব্যক্তিরা।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

আয়কর দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, আগে যদি কোনো করদানকারীর কর দিতে দেরি হত তাহলে আয়কর দপ্তর থেকে তাঁর কাছে নোটিশ যেত। সেই নোটিশের পরিপ্রেক্ষিতে আয়করদাতার উওর যদি আয়কর দপ্তরের কর্তাদের সন্তোষজনক মনে হত তবে তাঁর জরিমানা মুকুব হয়ে যাওয়ার একটা সম্ভাবনাও তৈরি হত।কোনো কোনো ক্ষেত্রে তো আয়কর মুকুবও হয়ে যেত অনেক সময়। আগে বিলেটেড রিটার্নের সময়সীমা ছিল ৩১ মার্চ।

এরপর রির্টান দাখিল করলে তাঁদের পেনাল্টি বা জরিমানার শিকার হতে হত। কিন্তু এবার আর সে সুযোগ নেই। ‘পেনাল্টি’ শব্দটিই অবৈধ করে দিয়েছে দপ্তর। তার বদলে এসেছে ‘ফাইন’ শব্দটি। বাংলা অভিধানে দুটি শব্দের একই মানে হলেও আইনিভাবে শব্দদুটির পার্থক্য আছে। পেনাল্টিতে নিজের পক্ষে যুক্তি দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হয় কিন্তু ‘ফাইন’-এ এসব শোনা হবে না। কাজেই এবার যদি আয়করদাতারা কর প্রদানের দেরির জন্য ন্যায্য কারণও উল্লেখ করেন তবুও তা গ্রাহ্য করা হবে না বলেই জানিয়েছেন আয়কর দপ্তর।

আয়করদপ্তরের এক কর্তা জানিয়েছেন, যদি কেউ  ফাইন দিয়ে রিটার্ন দাখিল করেন এবং সেখানেও আয় গোপন করেন তাহলে তিনি ধরা পড়তে পারেন যেকোনো সময়ে। সেক্ষেত্রে তাকে ফাইন দিলেও পেনাল্টি দিতে হবে। আবার এক,পাঁচ,দশ হাজার টাকা না দেওয়ার ছুতোয় কোনো করদাতা যদি আগামী বছরের ৩১ মার্চের মধ্যে রিটার্ন দাখিল না করেন,তাহলে ফাইনের সঙ্গে দিতে হতে পারে সঙ্গত পেনাল্টি। এবার যেখানে আয়কর রিটার্ন নিয়ে কেন্দ্রের এতো মাথাব্যাথা সেখানে বহু মানুষ এমনও আছেন যাদের প্যানকার্ড থাকা সত্ত্বেও রিটার্ন দাখিল করেননা।

 আবার এমনও অনেকে আছেন যাঁদের আয় একসময় করযোগ্য ছিল এবং তাঁরা যথাসময়ে রিটার্নও দাখিল করতেন কিন্তু অবসর নেওয়ার পর আয় আর করযোগ্য রইল না,তখনও কি তাঁরা রিটার্ন দাখিল না করলে আয়কর দপ্তরের কড়া পদক্ষেপের শিকার হবেন? জবাব পাওয়া যাচ্ছে আয়কর দপ্তরের আধিকারিকদের তরফ থেকে। যাঁরা করযোগ্য আয় করেন কেবল তাঁদের জন্যই এই নিয়ম বৈধ। বাকি আর কারোর জন্যই নয়। কাজেই বিনা কারণে ভয় পাওয়ার কোনো কারণই নেই।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!