এখন পড়ছেন
হোম > আন্তর্জাতিক > সুইস ব্যাঙ্কে দাবিহীন অ্যাকাউন্টে পরে আছে ৩০০ কোটি টাকা! তালিকায় বহু ভারতীয়ও!

সুইস ব্যাঙ্কে দাবিহীন অ্যাকাউন্টে পরে আছে ৩০০ কোটি টাকা! তালিকায় বহু ভারতীয়ও!

কালো টাকা উদ্ধারের লক্ষ্যে প্রথমবার ক্ষমতায় এসেই মোদি সরকার আর্থিক সংস্কারের পথে হেঁটেছে। কালো টাকা আটকাতে মোদি সরকার নোট বাতিলের মতো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিল। এরপর জিএসটি চালু করে গোটা দেশে এক কর ব্যবস্থাও প্রচলন করা হয়েছিল। তবে কালো টাকা উদ্ধারের কথা বললেও এখনো পর্যন্ত সেই ব্যাপারে কোনো হিসাব দিতে পারেনি কেন্দ্র। আর এই নিয়ে বারংবার বিরোধীদের আক্রমণের শিকার হতে হয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে। তবে এবার কালো টাকা উদ্ধারের লক্ষ্যে বড়োসড়ো সাফল্য মোদি সরকারের।

সুইস ব্যাংকের পক্ষ থেকে কালো টাকা সংক্রান্ত নানান তথ্য উঠে আসলো আমজনতার সামনে। তবে সুইস ব্যাংকের কথা শুনলে চোখ কপালে উঠতে বাধ্য‌। এই মুহূর্তে সুইস ব্যাংকে দাবিহীনভাবে পড়ে আছে 300 কোটি টাকা। 300 কোটির মতন বিপুল অংক সুইস ব্যাংকে থাকা সত্বেও তার কোনো দাবিদার নেই। সাড়ে তিন হাজার একাউন্টের প্রাপ্ত অর্থ এটি। তবে সেই সাড়ে তিন হাজার জনের মধ্যে রয়েছেন একাধিক ভারতীয়।

সুইস ব্যাংকে অন্তত দশজন ভারতীয়ের অ্যাকাউন্ট রয়েছে। এর সাথে কয়েকজন পাকিস্তান নাগরিকেরও অ্যাকাউন্ট আছে সুইস ব্যাংকে। এছাড়াও অন্যান্য দেশের নাগরিকরা সুইস ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট খুলেছেন। এবার সুইজারল্যান্ড সরকার দীর্ঘদিন অব্যবহৃত হয়ে থাকার ফলে সেই অ্যাকাউন্টগুলি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য নিয়ে এবার হাজির করলো সুইজারল্যান্ড সরকার, যাতে ওই অ্যাকাউন্ট গুলির দাবিদাররা উপযুক্ত তথ্য-প্রমাণ দিয়ে জমা টাকা দাবী করতে পারেন। কিন্তু তার পরেও বহু সময় কেটে যায় অথচ অর্থের দাবীদার কেউ আসেন না।

2015 সালের তথ্য অনুযায়ী, এই মুহূর্তে সুইস ব্যাংকে প্রায় 300 কোটি টাকা জমা হয়ে আছে। জানা গেছে, সুইজারল্যান্ড ব্যাংকে যারা অ্যাকাউন্ট খুলেছিলেন তাঁদের মধ্যে কেউ কেউ ব্রিটিশ শাসনের শেষের দিকে অ্যাকাউন্ট খুলে ছিলেন এমনকি 1955 সালেও সুইস ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট খোলা হয় বলে জানা গেছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

কালো টাকা নিয়ে অভিযোগের মাঝে সুইজারল্যান্ডের সঙ্গে সরকারের চুক্তি অনুযায়ী প্রথম দফার তথ্য প্রকাশ করল এদিন সুইস ব্যাংক। দ্বিতীয় দফার আরও তথ্য দুই হাজার কুড়ি সালে নয়াদিল্লির হাতে আসবে। সম্প্রতি প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী জানা গেছে, লেনদেনহীন অ্যাকাউন্টগুলির মালিক কলকাতা, মুম্বাই, ও দেরাদুনের মত শহরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছেন। এছাড়াও কিছু অ্যাকাউন্টের দাবিদার বিদেশে আছেন বলে জানা গেছে।

তবে এক্ষেত্রে সুইস ব্যাংকের টাকার দাবিদার না পাওয়া গেলে প্রাথমিকভাবে অ্যাকাউন্ট সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য সামনে আনা হয়। যাতে দাবিদার এসে অ্যাকাউন্টের দাবি জানাতে পারেন। কিন্তু এরপরেও যদি কেউ যোগাযোগ না করেন তাহলে অ্যাকাউন্টটি বাতিল বলে ঘোষণা করা হবে।

সূত্রের খবর, সম্প্রতি সুইস ব্যাংকে ট্যাক্স ডিভিশনের ডেপুটি হেডের সাথে ভারতীয় প্রতিনিধিদের একটি বৈঠক হয় ভারতে এবং সেখানেই একটি চুক্তি হয়। চুক্তি অনুযায়ী, সুইস ব্যাংকে একাউন্ট রয়েছে এমন ভারতীয় গ্রাহকদের তথ্য চাওয়া হয় কেন্দ্রীয় বিভাগ থেকে। সেই অনুযায়ী, দীর্ঘদিনের গোপনীয়তা ভেঙে ভারতের হাতে এই তথ্য তুলে দিল সুইস কর্তৃপক্ষ। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে মোদি সরকারের বড় কূটনৈতিক জয় হল বলেই মনে করছে দেশের ওয়াকিবহাল মহল। কালো টাকা উদ্ধারে পরবর্তী পদক্ষেপ মোদি সরকার কি নেয় এবার সেদিকেই নজর থাকবে সবার।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!