এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বিমানবন্দরেই আটক তিন হেভিওয়েট তৃণমূল সাংসদ, তুঙ্গে রাজনৈতিক চাপানউতোর

বিমানবন্দরেই আটক তিন হেভিওয়েট তৃণমূল সাংসদ, তুঙ্গে রাজনৈতিক চাপানউতোর

২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদী প্রধামন্ত্রীর কুর্সিতে বসার সঙ্গে সঙ্গেই নিজেকে মোদী-বিরোধী প্রধান মুখ হিসাবে তুলে ধরতে তৎপর হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর ২০১৯ সালের নির্বাচনের আগে তো আরও একধাপ এগিয়ে, নরেন্দ্র মোদিকে প্রধানমন্ত্রীর কুরসী থেকে সরিয়ে, সেখানে দলীয় নেত্রীকে বসানোর স্বপ্ন দেখতে শুরু করে তৃণমূল কর্মী-সমর্থকরা।

তৃণমূলের সেই রাজনৈতিক পরিকল্পনা সফল না হলেও, তৃণমূল-বিজেপি লড়াই বাংলার গন্ডি ছাড়িয়ে ছড়িয়ে পরে সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে। বিজেপিকে যেরকম বাংলাতে আটকাতে চেষ্টার কোনো কসুর ছাড়ছে না ঘাসফুল শিবির, তেমনই বাংলার বাইরে গিয়েও বিজেপির অস্বস্তি বাড়াতে তৎপর তারা। আর সেই রাজনৈতিক লড়াইয়ের রেশ ধরেই এবার উত্তরপ্রদেশের রাজনীতিতে নিজেদের অস্তিত্ব জাহির করতে হাজির তৃণমূল শিবির।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

হিংসার ঘটনায় ইতিমধ্যেই খবরের শিরোনামে উত্তর প্রদেশের সোনভদ্র। সূত্রের খবর, হিংসার ঘটনায় ইতিমধ্যেই প্রাণ গিয়েছে বেশ কিছুজনের, হাসপাতালেও ভর্তি বহু। আহত ও নিহতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে ইতিমধ্যেই বাধাপ্রাপ্ত কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। মির্জাপুরের একটি গেস্ট হাউসে তাঁকে প্রথমে আটক করার পর, রাতে তাঁকে চুনার দুর্গে আটক করে রাখে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ।

আর এবার ডেরেক ও’ব্রায়েন, সুনীল মন্ডল ও আবিররঞ্জন বিশ্বাস সোনভদ্রে যাওয়ার চেষ্টা করলে, তাঁদের বারাণসী বিমানবন্দরেই আটক করে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। যে ঘটনায় ট্যুইট করে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন ডেরেক ও’ব্রায়েন। তিনি জানিয়েছেন, তিন সদস্যের প্রতিনিধিদল হওয়াই তাঁরা ১৪৪ ধারা ভাঙছেন না। এমনকি পুলিশ সুপারও জানাতে পারেননি কোন ধারায় তাঁদের আটক করা হয়েছে। এদিকে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে সোনভদ্রে উত্তেজনা এখনও চরমে, তাই কোনোরকম অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতেই এই সিদ্ধান্ত।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!