এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ২১ সে জুলাই নিয়ে তৃণমূলকে ‘হুমকি’ দেওয়ার অভিযোগ দিলীপ ঘোষের, দায়ের এফআইআর

২১ সে জুলাই নিয়ে তৃণমূলকে ‘হুমকি’ দেওয়ার অভিযোগ দিলীপ ঘোষের, দায়ের এফআইআর

Priyo Bandhu Media

আজ ২১ সে জুলাই, তৃণমূলের শহীদ দিবস। আর তার আগের দিন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে তৃণমূলকে ‘হুমকি’ দেওয়ার অভিযোগ উঠলো।

জানা যাচ্ছে যে, শনিবার বাঁকুড়ার ওন্দায় বিজেপির সভায় দিলীপবাবু বলেন, ”তৃণমূল নেতারা কলকাতা যাওয়ার জন্য কাল রাস্তায় বেরোবেন। তাদের বাস আটকে আগে কাটমানির টাকা ফেরত চাইতে হবে। আমাদের কর্মীরা সঙ্গে থাকবেন। নেতারাটাকা ফেরত না দিলে ব্যাটাদের গ্রাম ছাড়া করতে হবে।” তাঁর আরও মন্তব্য, ”কাল কলকাতায় সার্কাস হবে। এ বার কি এ-দিক থেকে কেউ যাবেন? গেট, ঝান্ডা কিছুই তো নেই! মনে হচ্ছে, তৃণমূলের শোকসভা হবে।”

আর এর পরেই তৃণমূলের নেতা মন্ত্রীরা পাল্টা দিতে শুরু করেছেন। তৃণমূলের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম জানিয়ে দেন, ”আমাদের লক্ষ লক্ষ কর্মী কাল রাস্তায় থাকবেন। বাস আটকানোর চেষ্টা করলে বিজেপির লোকেদের পিষে মেরে দেবে। দিলীপবাবুরা সন্ত্রাস ছড়ালে জেলে যেতে হবে।” তাঁর আরও মন্তব্য, ”এ বার আমরাও বিজেপির ব্ল্যাক মানির হিসেব চাইব। তৃণমূল কর্মীরা কাটমানি নেন না।”

তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ”সিপিএমের হার্মাদরা এখন দলে দলে বিজেপিতে ঢুকেছে। যাদের রাজনীতি নেই, সঙ্গে মানুষ নেই, সন্ত্রাসই তাদের অস্ত্র। ভাটপাড়ার মানুষ এখন যেমন বুঝতে পারছেন, বিজেপি কী বস্তু!” পার্থবাবুর আরও মন্তব্য, ”দিলীপবাবুর মতো জোকারের পক্ষেই এ ধরনের উস্কানি দেওয়া সম্ভব।”

আর এর পরেই রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য হিংসাত্মক প্ররোচনার অভিযোগে হেয়ার স্ট্রিট থানায় এফআইআর দায়ের করেন।

যদিও তাতে দমেননি দিলীপবাবু। পাল্টা সুর চড়িয়ে দাবি করেছেন যে, ”এফআইআর যখন করেছে তখন তো আটকাতেই হবে। শুধু বাস নয়, সরকারটাকেই আটকে দেব।”

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

রাজনৈতিকমহলের মতে, ২১ সে জুলাই রাজনৈতিকউত্তাপ এর ফলে আরো অনেক গুন্ বেড়ে গেলো। এদিকে এই নিয়ে বিজেপির দাবি তৃণমূল ভয় পেয়েছে তাই দিলীপবাবুর বিরুদ্ধে এফআইআর করা হয়েছে। কেননা প্রশাসনের সমস্ত ক্ষমতা তো শাসকদলের হাতে বাস আটকানো হলে তা আটকাতে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নেবে সরকার। তার জন্য এফআইআর করার কি আছে।

এদিকে তৃণমূলের দাবি বিজেপি ভয় পেয়েছে তাই এফআইআর হতেই পিছিয়ে গেছে।তবে কি হয় তার জন্য তাকিয়ে থাকতে হবে আজকের সমাবেশের দিকে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!