এখন পড়ছেন
হোম > 2020 > January

বৈশাখীর সঙ্গে গোপন বৈঠক পার্থর, শোভনের তৃণমূলে ফেরার ইঙ্গিত! জোর জল্পনা

  এককালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ এবং গুডবুকে ছিলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা বর্তমান বিজেপি নেতা শোভন চট্টোপাধ্যায়। কিন্তু স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা এবং বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা বেড়ে যাওয়ায় তৃণমূলের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হয় শোভনবাবুর। যার পরিপ্রেক্ষিতে পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে গিয়ে দাঁড়ায় যে, শেষপর্যন্ত দীর্ঘদিনের নেত্রী

ভোটে না দাঁড়াতে পারা, 31 টি পৌরসভার চেয়ারম্যানকে নিয়ে নয়া ভাবনায় মমতা

  পৌরসভা ভোট নিয়ে প্রতিটি রাজনৈতিক দলের অন্দরেই এতদিন প্রস্তুতি লক্ষ্য করা গিয়েছিল। কিন্তু ভোটের আগে ওয়ার্ড সংরক্ষণের খসড়া তালিকা প্রকাশ হওয়ার আগেই যেন সেই প্রস্তুতি কিছুটা হলেও থিতিয়ে পড়েছে। কেননা ওয়ার্ড সংরক্ষণের তালিকায় সবথেকে বেশি সমস্যায় পড়েছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। এক্ষেত্রে দেখা গেছে, রাজ্যের অনেক পৌরসভায় তৃণমূলের চেয়ারম্যান,

সৌমিত্র, সায়ন্তনের পর এবার সুভাষের তোপের মুখে বুদ্ধিজীবীরা, জোর সোরগোল!

  নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন লাগু হওয়ার পর থেকেই তার চরম বিরোধিতা করছে তৃণমূল কংগ্রেস। পাশাপাশি বিজেপির বিরুদ্ধে এবং এই ইস্যুর বিরুদ্ধে সরব হতে দেখা গেছে বাংলার একাংশ বুদ্ধিজীবী সম্প্রদায়কেও। কাগজ আমরা দেখাবো না বলেও স্লোগান তুলেছেন তারা আর বুদ্ধিজীবীদের একাংশ কেন্দ্রীয় নীতির বিরোধিতা করায়, সম্প্রতি বেশ কিছুদিন ধরে তাদের প্রবল কটূক্তি

শান্তি নেই তৃণমূল কাউন্সিলরদের,সংরক্ষণ নয়, নয়া গেরো, প্রার্থী হতে পারবেন না অনেকেই

  বর্তমানে পৌরসভা নির্বাচনের আগে ওয়ার্ড সংরক্ষনের তালিকা প্রকাশিত হয়েছে। যার ফলে অনেক সংরক্ষণ হয়ে যাওয়ায়, তৃণমূলের অনেক কাউন্সিলররা সেই সমস্ত ওয়ার্ডে দাঁড়াতে পারবেন না। যা নিয়ে অনেক কাউন্সিলরের মধ্যে শঙ্কা কাজ করেছে। তবে যে সমস্ত কাউন্সিলরদের ওয়ার্ড সংরক্ষণের আওতায় পড়েনি, তারা কিছুটা হলেও চিন্তার বাইরে ছিলেন। কিন্তু তৃণমূলের গঠনতন্ত্র বর্তমানে

এবার কি ছাঁটাই হতে চলেছে রেলকর্মীরা! আশঙ্কার মেঘ সর্বত্র

  দেশে বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই প্রতিটা ক্ষেত্রে কর্মী ছাঁটাই করে দেওয়ার মত তুঘলকী সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করতে দেখা যায় বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকে। আর এবার বিরোধীদের সেই অভিযোগকে সত্যি করেই কি অবসরের আগে রেলে ব্যাপক ছাঁটাই করা হতে চলেছে! এই প্রশ্নই এখন উঠতে শুরু করেছে সর্বত্র। সূত্রের

লক্ষ পুরভোট তাই তৃণমূলকে মাত দিতে আসরে বড়সড় পরিকল্পনা নিয়ে আসরে বিজেপি

দেশের জনসাধারণের মধ্যে ইতিমধ্যে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন ও জাতীয় নাগরিকপঞ্জি নিয়ে নানান বিভ্রান্তি ছড়িয়েছে। শুধু বিরোধী নয়, সাধারণ মানুষেরও অভিযোগ দেশের অস্থির পরিস্থিতিতে এই বিভ্রান্তি দূর করার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার কোনোরকম চেষ্টা করেনি বরং পরস্পরবিরোধী তত্ত্ব ধরা পড়েছে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের গলায়। বিভ্রান্তি জোর করে চাপিয়ে রাখা হচ্ছে। ইতিমধ্যে এনআরসি

ট্যাগড

  দিলীপ ঘোষের নতুন টিমে কে কে জায়গা পেতে চলেছেন ! জোর গুঞ্জন!

  দ্বিতীয়বারের জন্য রাজ্য বিজেপির সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন দিলীপ ঘোষ। আর দীলিপ বাবুর নেতৃত্বেই 2021 এর বিধানসভা নির্বাচন যে বিজেপিকে ফেস করতে হবে, তা জানেন প্রত্যেকেই। কিন্তু বঙ্গ বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ একুশের বিধানসভা নির্বাচনে সাফল্য আনতে তার রাজ্য কমিটিতে কাকে কাকে নিয়ে আসবেন, তা নিয়ে বর্তমানে চরম জল্পনা তৈরি

ফের বড়সড় ভাঙ্গন বিজেপিতে, স্বস্তি তৃণমূলের অন্দরে

  লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি বাংলায় 18 টা আসন পাওয়ার পর, বিভিন্ন জায়গায় গেরুয়া শিবিরের প্রভাব বাড়তে শুরু করে‌। উত্তরবঙ্গ থেকে দক্ষিণবঙ্গের জঙ্গলমহলে এলাকা, বিভিন্ন জায়গায় তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদানের হিড়িক পড়ে যায়। যার জেরে প্রবল অস্বস্তিতে পড়ে তৃণমূল কংগ্রেস। অন্যদিকে স্বস্তি বজায় থাকতে দেখা যায় ভারতীয় জনতা পার্টিতে। কিন্তু বিজেপির সেই

2021 এ রাজ্য বিজেপির মুখ্যমন্ত্রীর মুখ কে? জানালেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি! জেনে নিন!

  লোকসভায় সাফল্য পাওয়ার পর 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনে বাংলার ক্ষমতা দখল করতে এখন তৎপর হয়ে উঠেছে ভারতীয় জনতা পার্টি। ইতিমধ্যেই এই ব্যাপারে তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ইস্যুতে সরব হয়ে রাজ্যজুড়ে নানা রাজনৈতিক কর্মসূচি নিতে শুরু করেছে তারা। কিন্তু তৃণমূলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধান মুখ হলেও ভারতীয় জনতা পার্টির নির্বাচনী বৈতরণী পার করার

ওয়ার্ড সংরক্ষণে ব্যাপক ক্ষোভ তৃণমূলের অন্দরে, অভিযোগ সংরক্ষণ পরিকল্পিত

সম্প্রতি পৌরসভা নির্বাচন উপলক্ষে ওয়ার্ড সংরক্ষণের খসড়া তালিকা প্রকাশ হয়েছে। যেখানে দেখা গেছে, তৃণমূলের অনেক কাউন্সিলররা নিজের ওয়ার্ডে আর দাঁড়াতে পারছেন না। কেননা সেই ওয়ার্ড সংরক্ষিত হয়ে গিয়েছে। আর তার ফলেই এবার সেই সমস্ত কাউন্সিলরদের অনেকেই ক্ষোভে ফুসতে শুরু করেছেন। এক্ষেত্রে গোদের ওপর বিষফোঁড়া হয়ে দাঁড়িয়েছে, বারুইপুর পৌরসভায় চেয়ারম্যান-ভাইস চেয়ারম্যানের

Top
error: Content is protected !!