এখন পড়ছেন
হোম > 2019 > November

আদিবাসী মনে এখনও যে তৃণমূল ফিরে আসেনি, মুখ্যমন্ত্রীর সফরের আগেই আবার প্রমাণ হয়ে গেল!

  বিরোধীনেত্রী থাকার সময় জঙ্গলমহলের আদিবাসী অধ্যুষিত অঞ্চলে দিনরাত এক করে থেকে সেখানকার মানুষের মন জয় করেছিলেন বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে ক্ষমতায় আসার পর সেই আদিবাসীদের সমর্থন তৃনমূল কংগ্রেসের পাশে থাকলেও যতদিন গিয়েছে, ততই যেন সেই সমর্থন কমতে শুরু করেছে। লোকসভায় যার প্রকৃষ্ট উদাহরণ দেখতে পেয়েছেন সকলেই। জঙ্গলমহলে আদিবাসী অধ্যুষিত অঞ্চলে

যুব তৃণমূল নেতার “দাদাগিরির” প্রতিবাদে এককাট্টা হয়ে বৃহত্তর আন্দোলনে 12 পঞ্চায়েতের কর্মীরা

  সাধারণ মানুষ বড্ড নিরীহ। ভোটের সময় তাদের কাছে গিয়ে সমস্ত রাজনৈতিক দলের নেতারাই বুঝিয়ে তাদের ভোট নিতে সক্ষম হন। কিন্তু ভোটের পর সেই তাদেরকেই তাচ্ছিল্য করতে দেখা যায়। তবে কথায় আছে, যারা যত বেশি নিরীহ, তাদের রুদ্রমূর্তি তত কঠিন। নিরীহ মানুষদের ক্ষেত্রেও তাই। জনবিক্ষোভ যে ঠিক কি আকার ধারণ করতে পারে,

চিটফান্ড কাণ্ডে সংসদে তৃনমূলকে তীব্র আক্রমন বিজেপির, উঠলো মমতা-অভিষেক প্রসঙ্গও

  সারদা থেকে নারদা বিভিন্ন চিটফান্ড কাণ্ডে তৃণমূল বনাম বিজেপির তরজা নতুন কিছু নয়। আর এই সমস্ত চিটফান্ডের ঘটনায় বিজেপি তৃণমূলের অনেক হেভিওয়েট নেতা থেকে মন্ত্রী এবং সাংসদদের শ্রীঘরে যেতেও দেখা গেছে। যার ফলে চিটফান্ডকে ইস্যু করে বিজেপির তরফে তৃণমূলকে আক্রমণ করার প্রবণতা আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। আর এবার সংসদের অধিবেশনের প্রথম

বিজেপির জমি কাড়তে এবার গেরুয়া ঘাঁটিতে উন্নয়নের জোয়ার নিয়ে আসতে চান তৃণমূল নেত্রী

  দক্ষিণপন্থীদের ঘাঁটি ছিল মালদা জেলা। কিন্তু সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে সেই মালদায় দাঁত ফুটিয়েছে পদ্মফুল। দক্ষিণ মালদহ লোকসভা কেন্দ্র কানের পাশ দিয়ে কংগ্রেস বেরিয়ে গেলেও উত্তর মালদহে তৃণমূলকে অনেকটাই পিছনে ফেলে জয়লাভ করেছেন বিজেপির খগেন মুর্মু। তবে মালদহে বিজেপির উত্থানে এবার প্রবল আতঙ্কিত হয়ে উঠেছে তৃণমূল কংগ্রেস। আর তাইতো সেই গেরুয়া ঝড়কে

মুখ্যমন্ত্রীর প্রশাসনিক সভায় থাকছেন না একাধিক হেভিওয়েট! ক্রমশ বাড়ছে জল্পনা

  ক্ষমতায় আসার পর থেকেই মিনি মহাকরন নিয়ে জেলায় জেলায় প্রশাসনিক বৈঠক করতে পৌঁছে যান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে সরকারের এই প্রশাসনিক বৈঠকে স্থানীয় বিরোধীদলের জনপ্রতিনিধিদের ডাকা হয় না বলে মাঝেমধ্যেই অভিযোগ ওঠে। এতদিন দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় সেই অভিযোগ না উঠলেও, এবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশাসনিক বৈঠকের আগে সেই অভিযোগই সরকারের বিরুদ্ধে প্রকট

রাজ্যপালকে তৃণমূল কেন “ভয়” পাচ্ছে, সংসদে দাঁড়িয়ে “ফাঁস” করে দিলেন দিলীপ ঘোষ!

  অবশেষে আশঙ্কাই সত্যি হল। রাজ্য বনাম রাজ্যপালের সম্পর্কের তিক্ততার ঘটনা এবার পৌঁছে গেল লোকসভা এবং রাজ্যসভার অন্দরমহলে। যে ঘটনা এতদিন রাজ্য রাজনীতিকে উত্তপ্ত করেছিল, এবার সেই ঘটনা উত্তপ্ত করে দিল জাতীয় রাজনীতিকেও। বস্তুত, রাজ্যের রাজ্যপাল হিসেবে জাগদীপ ধনকার দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন ইস্যুতে সরকারের সঙ্গে তার দূরত্ব বাড়তে শুরু করে।

পয়লা ডিসেম্বর থেকে মোবাইল ব্যবহারকারীদের জন্য দুঃসংবাদ

সব জল্পনার অবসান। শেষে এবার ভোডাফোনের সিদ্ধান্ত ট‍্যারিফ বাড়াবে তাঁরা। সম্প্রতি ভারতীয় টেলিকম বাজারে ভোডাফোনকে নিয়ে একটি জল্পনা তৈরি হয়েছিল। বলা হচ্ছিল ভারত থেকে নাকি এবার বৃহত্তম টেলিকম অপারেটর ভোডাফোন আইডিয়া নিজেদের ব্যবসা গুটিয়ে নিতে চলেছে। কারণ হিসাবে দেখানো হচ্ছিল, ভোডাফোনের ঘাড়ে বৃহৎ আর্থিক বোঝার কারণে তাঁরা এরকম সিদ্ধান্ত নিতে পারে।

এবার তৃণমূল সাংসদের সমর্থন ছিনিয়ে নিতে তাঁদের বাড়ি বাড়ি যাবে গেরুয়া শিবিরের একাংশ!

  2019 সালের সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে সারাদেশে যেমন মোদি ঝড় বয়ে গিয়েছে, ঠিক তেমনই বাংলাতেও সেই ঝড় প্রত্যক্ষ করা গেছে। তৃণমূলের চিন্তা বাড়িয়ে দিয়ে আঠারোটি আসন নিজেদের দখলে নিয়েছে গেরুয়া শিবির। আর তারপর বাংলায় 22 টি আসন পাওয়া তৃণমূল কিভাবে নিজেদের সমর্থন ফিরে পাবে, তা নিয়ে নানা চেষ্টা চালাচ্ছে। আর

রাজ্যপাল বনাম সরকারের সম্পর্কের তিক্ততা নিয়ে নতুন কৌশল বিজেপির, জোর শোরগোল

  কথায় আছে, বোবার কোনো শত্রু নেই। আর এবার রাজ্য বনাম রাজ্যপালের সম্পর্কের তিক্ততায় সেই নীরবের ভূমিকাতেই অবতীর্ণ হতে দেখা যাবে ভারতীয় জনতা পার্টিকে। বস্তুত, রাজ্যের সাংবিধানিক পদে শপথ নেওয়ার পর থেকেই রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকারের সাথে বিভিন্ন ইস্যুতে দূরত্ব তৈরি হতে শুরু করে রাজ্য সরকারের। জিয়াগঞ্জ কান্ড থেকে শুরু করে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের

মুকুলের প্রশংসা, তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতার মুখে – জেনে নিন বিস্তারিত

  গত 2016 সালের বিধানসভা নির্বাচনে খড়্গপুরে দাঁড়িয়ে বিজেপির জয় নিশ্চিত করেছিলেন দিলীপ ঘোষ। আর তারপরই সেই দিলীপ ঘোষের হাত ধরে রাজ্যে বিজেপির উত্থান ঘটতে শুরু করেছিল। যতদিন গিয়েছে, ততই বিভিন্ন জায়গায় ফুটেছে পদ্মফুল। তবে এবার দিলীপ ঘোষ এই আসন ছেড়ে মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ হওয়ায় আগামী 25 নভেম্বর এই খড়গপুর

Top
error: Content is protected !!