এখন পড়ছেন
হোম > 2019 > April (Page 2)

বিক্ষিপ্ত কিছু ঘটনা ছাড়া মোটের উপর বাংলার চতুর্থ দফার ভোট শান্তিপূর্ণ

প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় দফার পর গতকাল রাজ্যের চতুর্থ দফার লোকসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। যেখানে এরাজ্যের আটটি লোকসভা কেন্দ্রের নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। মূলত চতুর্থ দফার ভোটকে ঘিরে এদিন টানটান উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল রাজ্যের রাজনৈতিক মহলে। কেননা এই চতুর্থ দফার ভোটে বীরভূম, আসানসোলের মত কেন্দ্রগুলিতে নির্বাচন ছিল। কিন্তু কিছু বিক্ষিপ্ত অশান্তি ছাড়া

প্রধানমন্ত্রী এত মিথ্যা কথা বলে যে কল্পনা করতে পারবেন না! বাচ্চারা কি শিখবে? – মমতা ব্যানার্জি

প্রথম দ্বিতীয় তৃতীয় দফার ভোট শেষে যখন চতুর্থ দফার ভোটকে ঘিরে সরগরম রাজ্য রাজনীতি ঠিক তখনই ফের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে কড়া ভাষায় আক্রমণ শানালেন তৃণমূল নেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বস্তুত, এবারের নির্বাচনে বাংলা থেকে 42 টি আসনের মধ্যে 42 টি আসনই নিজেদের দখলে রেখে যখন কেন্দ্রের মসনদ

তৃণমূলেই ভোট পড়ছে কিনা জানার অন্যতম উপায় বের করে ফেলল শাসকদল

ইতিমধ্যেই ভোটের বাদ্যি বেজে গিয়েছে। তিন দফায় ভোটের পর আজ চতুর্থ দফার ভোট সম্পন্ন হল। আর যত ভোট হচ্ছে, ততই প্রতিটি আসনে তারাই জয়লাভ করবে বলে আত্মবিশ্বাসের সুর শোনা যাচ্ছে শাসক-বিরোধী সমস্ত রাজনৈতিক দলের গলাতেই। কিন্তু জিতবে তো যে কোনো একজনই! তাই কে সেই ভাগ্যবান তা দেখবার জন্য অপেক্ষা করতেই

ফের বাবুলের বিরুদ্ধে এফআইআর কমিশনের, বড়সড় চাপে বিজেপি প্রার্থী

প্রথম থেকেই গন্ডগোলের কিছুটা আশঙ্কা ছিল। আর ভোটপর্ব শুরু হওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই সেই গন্ডগোল চরম আকার নিল আসানসোলে। বস্তুত, চতুর্থ দফায় এই আসানসোল লোকসভা কেন্দ্রের নির্বাচনেকে কেন্দ্র করে প্রথম থেকেই রাজনৈতিক মহলে তীব্র উত্তাপ ছড়িয়ে পড়েছিল। কেননা গতবার আসানসোল লোকসভা কেন্দ্রে বিজেপি দখল করলেও এবার এই কেন্দ্রে ঘাসফুল ফোটাতে মরিয়া তৃনমূল

নজরবন্দি থাকলেও স্বমহিমায় ছিলেন অনুব্রত – জেনে নিন

বরাবরই খবরের শিরোনামে থাকতে পছন্দ করেন তিনি। আর এবার লোকসভা নির্বাচনের আগে নকুলদানা খাওয়ানোর দাওয়াই দিয়ে ফের বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন তিনি। হ্যাঁ ঠিকই ধরেছেন, তিনি বীরভূম জেলা তৃণমূলের সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। যা নিয়ে বরাবরই বীরভূমকে সন্ত্রাস কবলিত এলাকা হিসেবে তুলে ধরে এখানকার নির্বাচনের আগে প্রায় প্রতিটি বুথেই যাতে কেন্দ্রীয় বাহিনী

বুথের মধ্যে ফোনে কথা বলে বিতর্কে জড়ালেন বিজেপি প্রার্থী, তীব্র উত্তেজনা কেষ্ট গড়ে

নির্বাচনের দামামা বাজবার অনেক আগে থেকেই বীরভূম জেলাকে সন্ত্রাস কবলিত এলাকা বলে দাবি করে এসেছে বিরোধীরা। এমনকি নির্বাচনের দিন সেই বীরভূমের দুটি লোকসভা কেন্দ্রের প্রায় প্রতিটি বুথেই যাতে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা যায়, তার জন্য কমিশনের কাছে আবেদনও জানিয়েছে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো। বিরোধীদের অভিযোগ ছিল বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের

প্রকাশ্য রাস্তায় ছুটলেন অধীর, কিন্তু কেন? জেনে নিন বিস্তারিত

আজ চতুর্থ দফার নির্বাচনে মুর্শিদাবাদের নজরকাড়া কেন্দ্র বহরমপুরে ভোটগ্রহণ পর্ব অনুষ্ঠিত হচ্ছে। বস্তুত এই কেন্দ্রের দীর্ঘদিনের সাংসদ কংগ্রেসের অধীর রঞ্জন চৌধুরী এবারও কংগ্রেসের তরফে প্রার্থী হয়েছেন। ইতিমধ্যেই এই অধীর রঞ্জন চৌধুরীর কাছ থেকে বহরমপুর লোকসভা কেন্দ্রটি দখল করবার জন্য কংগ্রেসের উদ্দেশ্যে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন তৃনমূলের শুভেন্দু অধিকারী। আর সেই মত আজ

শুরু থেকেই অশান্তি, কিন্তু দেখা নেই তৃণমূল প্রার্থীর – জানুন বিস্তারিত

চতুর্থ দফার নির্বাচনে আজ রাজ্যের অন্যান্য কেন্দ্রের সঙ্গে আসানসোল লোকসভা কেন্দ্রের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। আর শুরু থেকেই এই আসানসোল লোকসভা কেন্দ্রে বিক্ষিপ্ত অশান্তির ঘটনা ঘটলে তীব্র উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। প্রসঙ্গত, গত 2014 সালে এই আসানসোল লোকসভা কেন্দ্র দখল করেছিল বিজেপি। জয়ী হয়েছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। আর এবার সেই কেন্দ্র দখলে বাড়তি উদ্যোগ

অনুব্রত মন্ডলের সঙ্গে সাক্ষাৎকার নিয়ে মুখ খুললেন অনুপম হাজরা, জেনে নিন

আজ যখন চতুর্থ দফার ভোটকে ঘিরে সরগরম রাজ্য রাজনীতি, ঠিক তখনই বীরভূমে ভোট দিতে এসে অনুব্রত মণ্ডলকে ফোন করেন বিজেপির অনুপম হাজরা। আর তারপরই সটান তিনি সেই অনুব্রত মণ্ডলের বাড়িতে চলে যান। আর এরপরই অনুব্রতবাবুর পায়ে হাত দিয়ে প্রণাম করে একসাথে বসে মাছের ঝোল এবং পোস্ত দিয়ে ভাত খান অনুব্রত

বিনা অনুমোদনে অনুপম-কেষ্টর ‘সৌজন্য সাক্ষাৎ’, দ্রুত কেন্দ্রে ফেরার কড়া বার্তা দলীয় পর্যবেক্ষক শঙ্কুর

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া এক্সক্লুসিভ - আজ সারাদেশের সঙ্গে বাংলার পাঁচ জেলার ৮ লোকসভা আসনে ভোটগ্রহণ ছিল। আজই প্রথম উত্তরবঙ্গের গন্ডি ছাড়িয়ে দক্ষিণবঙ্গের সীমানায় পৌছালো বাংলার ভোটগ্রহণ পর্ব। বিগত নির্বাচনগুলোতে দেখা গেছে দক্ষিণবঙ্গ মানেই অধুনা শাসকদল তৃণমূলের গড়, কিন্তু এবারের ভোট পূর্ববর্তী বিভিন্ন সমীক্ষায় দেখা গিয়েছিল - এখানে গেরুয়া শিবিরের তুমুল

Top
error: Content is protected !!