এখন পড়ছেন
হোম > 2019

সিভিকে চাকরি দেওয়ার নাম করে পুলিস আধিকারিকের সই জাল করে তোলাবাজি, গ্রেপ্তার তৃণমূল নেতা

দুর্নীতি যে তৃণমূলের রন্ধ্রে-রন্ধ্রে বাসা বেধেছে, তা সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের খারাপ ফলাফলেই স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল। তবে লোকসভা নির্বাচনে খারাপ ফলাফলের পর শিক্ষা নিয়ে স্বচ্ছ ভাবমূর্তির নেতাদের সামনের সারিতে রাখবার চেষ্টা করেছিল তৃণমূল নেতৃত্ব। কিন্তু তা সত্ত্বেও তাদের মুখরক্ষা হল না। সূত্রের খবর, এবার পুলিশ আধিকারিকের সই জাল করে সিভিক ভলান্টিয়ারের

বিধানসভার ওপিনিয়ন – এই মুহূর্তে ভোট হলে কি হতে পারে বাঁকুড়া জেলার চিত্র?

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া এক্সক্লুসিভ - সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনের পর - আরও জমজমাট বঙ্গভূমির রাজনৈতিক লড়াই। একদিকে, লোকসভায় ১৮ টি আসন ছিনিয়ে নিয়ে গেরুয়া শিবির তাল ঠুকছে, এবার তাদের লক্ষ্য নবান্নের অধিকার ছিনিয়ে নেওয়া। অন্যদিকে, স্বয়ং দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ধরেছেন দলের সাংগঠনিক হাল, সঙ্গে যুক্ত হয়েছে প্রশান্ত কিশোরের মস্তিস্ক। এই পরিস্থিতিতে নিঃসন্দেহে

খুব শীঘ্রই ঢেলে সাজানো হবে তৃণমূলের সংগঠন? জল্পনা বাড়ালেন হেভিওয়েট মন্ত্রী- সাংসদ

লোকসভা নির্বাচনে যে সমস্ত জেলার তৃণমূলের ফলাফল খারাপ হয়েছিল, সেই সমস্ত জেলার সংগঠনে আমূল পরিবর্তন আনতে দেখা গেছে তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। আর বিভিন্ন জেলায় দলের দায়িত্ব পাওয়া নেতানেত্রীরা এবার সেই জেলার সংগঠনকে চাঙ্গা করতে কি নতুন করে কমিটি তৈরি করতে চলেছেন! সূত্রের খবর, খুব শীঘ্রই কৃষ্ণনগর সাংগঠনিক জেলা

দিদিকে বলোর গুঁতোয় এবার আদিবাসীর হেঁসেলে ঢুকে রান্নার সহায়তা হেভিওয়েট মন্ত্রীর!

লোকসভা নির্বাচনে দলের খারাপ ফলাফলের পর দিদিকে বলো প্রকল্প করে দলের নেতা থেকে জনপ্রতিনিধিদের জনসংযোগ করাতে বাধ্য করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যার ফলে সেই দিদিকে বলো প্রকল্পের মধ্যে দিয়ে এখন সাধারণ মানুষের সাথে নিবিড় জণসংযোগে ব্যস্ত হতে দেখা যাচ্ছে তৃণমূল নেতাদের। নেত্রীর দরাজ সার্টিফিকেট পেতে সাধারণ মানুষের খুব কাছাকাছি চলে যাচ্ছেন নেতা-মন্ত্রীরা।

প্রাকৃতিক দুর্যোগকে উপেক্ষা করে মেঝেতে শুয়ে রাত কাটালেন তৃণমূল বিধায়ক – সৌজন্যে দিদিকে বলো

লোকসভা নির্বাচনের পর দলের জনসংযোগে ঘাটতি রয়েছে, তা উপলব্ধি করে প্রশান্ত কিশোরের প্ল্যানে "দিদিকে বলো" প্রকল্প করে সাধারণ মানুষের দুয়ারে দলের জনপ্রতিনিধি থেকে দলীয় নেতাদের পাঠিয়ে দিচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যেখানে তৃণমূলের সেই জনপ্রতিনিধিরা সাধারণ মানুষের অভাব অভিযোগ শোনার পাশাপাশি দলীয় কর্মীর বাড়িতে রাত্রিবাসও করছেন। যা দেখে বিধায়ক থেকে মন্ত্রীদের কাছে

আপোষহীন উন্নয়নের লক্ষ্যে কোমর বেঁধে ময়দানে নামতে আজ বিশেষ বৈঠকে শুভেন্দু অধিকারী

সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের শক্ত ঘাঁটি বলে পরিচিত মুর্শিদাবাদের শুভেন্দু অধিকারীর হাত ধরে কিছুটা হলেও ভালো ফল করেছে তৃনমূল। তবে শুভেন্দুবাবুর মূল টার্গেটে থাকা বহরমপুর লোকসভা কেন্দ্র কংগ্রেসের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিতে পারেনি শাসকদল। আর এই পরিস্থিতিতে সামনেই 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে এবার মুর্শিদাবাদ জেলার সমস্ত দলীয় জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে আজ

মুখ্যমন্ত্রী মুসলিম তোষণ করতে গিয়ে ভোটব্যাঙ্ক চলে গিয়েছে, তাই হিন্দু তোষণ করছেন: দিলীপ

অতীতে বহুবার রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সংখ্যালঘুদের জন্য নানা উন্নয়নের কথা শোনালেও তা তোষণের রাজনীতি বলে কটাক্ষ করতে দেখা যেত বিরোধীদলগুলোকে। কেন মুসলিমদের জন্য ইমাম ভাতা হলেও হিন্দুদের পুরোহিত সমাজের জন্য কোনো ভাতা করা হবে না, তা নিয়ে সোচ্চার হতে দেখা যেত একাংশকে। যার ফলে

বর্ধমানের জন্যে একগুচ্ছ প্রতিশ্রুতি আর প্রকল্প নিয়ে আজ জেলায় যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী

ক্ষমতায় আসার পর থেকেই মিনি মহাকরন নিয়ে জেলায় জেলায় পৌঁছে যেতে দেখা যায় রাজ্যের বর্তমান মা-মাটি-মানুষের সরকার ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। মাঝে লোকসভা নির্বাচন থাকায় সেই প্রশাসনিক বৈঠকে কিছুটা ছেদ পড়েছিল‌। কিন্তু আবার ফের উন্নয়নের ডালি নিয়ে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে যেতে শুরু করেছেন রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান। সূত্রের খবর, খবর আজ

পিতৃপরিচয় নিয়ে হেভিওয়েট বিজেপি সাংসদের ঘুম উড়িয়ে দিলেন ভাতারের গৃহবধূ

এবার বড়সড় অস্বস্তিতে পড়লেন অভিনেতা তথা বিজেপি নেতা জর্জ বেকার। সূত্রের খবর, পিতৃপরিচয় ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানিয়ে এই জর্জ বেকারের বিরুদ্ধে এবার আদালতের দ্বারস্থ হলেন পূর্ব বর্ধমানের ভাতারের গৃহবধূ অঙ্কিতা ভট্টাচার্য। জানা গেছে, সেই গৃহবধূর অভিযোগের ভিত্তিতে আগামী 26 আগস্ট আদালতে হাজির হওয়ার জন্য জর্জ বেকার এবং তার স্ত্রী অর্পিতা

পুলিশের ভূমিকায় ক্ষুব্ধ বিজেপি নেতৃত্বের, সরাসরি রিপোর্ট পাঠানোর ভাবনা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে

কিছুদিন আগেই কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার করে সংসদে বিল পাস করেছে কেন্দ্র। আর এই 370 ধারা অবলুপ্তির পরই তার আনন্দে বিভিন্ন জায়গায় বিজেপির পক্ষ থেকে মিছিল করা হয়েছিল। আর এবার সেই মিছিল পুলিশ রুখে দেওয়ায় পুলিসের ভূমিকায় যারপরনাই ক্ষুব্ধ বিজেপি নেতৃত্ব। তবে বিষয়টিকে হালকা করে দেখতে নারাজ জেলা বিজেপি নেতৃত্ব। ইতিমধ্যেই

Top
error: Content is protected !!