এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > তেলের দামই কি ২০১৯-এ ঘুলিয়ে দেবে সব অঙ্ক? তীব্র আশঙ্কায় গেরুয়া শিবির

তেলের দামই কি ২০১৯-এ ঘুলিয়ে দেবে সব অঙ্ক? তীব্র আশঙ্কায় গেরুয়া শিবির

সাম্প্রতিক কালে বেশ কয়েকটি উপ নির্বাচন , বিধানসভা নির্বাচনে ধরাশায়ী হয়ে  জ্বালানি তেলের দাম কমানো নিয়ে বিজেপি ও সঙ্ঘ পরিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে দরবার শুরু করছে। কদিন আগেই কেন্দ্রীয় পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান একটি বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছিলেন তেলের দাম এক ধাক্কায় অনেকটা কমানো সম্ভব নয়। এরপরে গত সপ্তাহে বুধবার তেলের দাম এক পয়সা কমানো হলে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী এই নিয়ে গেরুয়া শিবির কে কেন্দ্র করে বিদ্রুপাত্মক সমালোচনা শুরু করলে তার জের গিয়ে পৌঁছোয় বিজেপি দলের অন্দরে। দলের নেতাদের মনেই এখন প্রশ্ন দেখা দিচ্ছে যে  মূল্য বৃদ্ধির জন্যে উত্তেজিত মানুষের কাছে নিজেদের হাসির পাত্র করে এক পয়সা মূল্য হ্রাসের কারণ কী আর এতে করে দলের বা সরকারের কি উপকার হলো! উল্লেখ্য ২০১৬-১৭ সালে পেট্রোপণ্য খাতে সরকারের রাজকোষে রাজস্ব ঢুকেছিল ২.৭ লক্ষ কোটি টাকা।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

যা প্রাক্তন সরকারের শাসন কালের তুলনায় ১১৭ গুণ বেশি। জানা যাচ্ছে বিশ্ববাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম বৃদ্ধির জন্যে জকোষে ওই পরিমাণ বাড়তি লাভ হয়েছে।কিন্তু বর্তমানে তেলের দাম নিয়ে চাপানউতোরে সরকারের কাছে একমাত্র পথ হলো উৎপাদন শুল্ক কমানো। কিন্তু সেটা করলে আবার রাজকোষ ঘাটতির সম্ভবনা। এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় সরকারের আয়ের প্রধান উৎস তেল থেকে সংগৃহীত রাজস্বের পরিমান কমাতে রাজী নয় মোদী সরকার। উৎপাদন শুল্ক কমিয়ে তেলের দাম স্থির করলে এই রাজস্ব আয়ের অঙ্কে আকষ্মিক ঘাটতি দেখা যাবে। নৈতিক ভাবে এই কাজে কোন সম্মতি নেই মোদী সরকারের। একই সাথে রয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের ওপরে রয়েছে প্রবল রাজনৈতিক চাপ। প্রসঙ্গত রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তীসগঢ় প্রভৃতি বিজেপি শাসিত রাজ্যে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের আগে তেলের মূল্য হ্রাসের বিষয়ে দলের অন্দরে চিন্তা ভাবনা চলছে বলে জানা যাচ্ছে। এতে করে ঐসব রাজ্যে নির্বাচনে বিজেপি দলের রাজনৈতিক লাভের সম্ভবনা রয়েছে। এরই মধ্যে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী চিদম্বরম দেশের সাধারণ মানুষের ক্ষোভ উস্কে দিয়ে বলেন সরকার চাইলে তেলের দাম ২৫ টাকা কমানো সম্ভব।  এদিকে বিজেপি শিবির কে এক হাত দিয়ে কেরলে বাম গণতান্ত্রিক জোট সরকার তেলের দাম এক টাকা কমালেন। এখন মূল্য বৃদ্ধি নিয়ে দেশের উত্তাল পরিবেশে কেন্দ্রের মোদী সরকার সরকারীর আয়ের উৎস উৎপাদন শুল্কের সাথে কি উপায়ে আপোষ করে সেদিকে তাকিয়ে আপামোর দেশবাসী। তবে এখন দেশের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে সরকারের ভূমিকা নিয়ে হার মানতে নারাজ বিজেপি দলের একাংশের বক্তব্য বিপর্যয়ের ঠিক পরেই দাম কমানো হলে কংগ্রেস তথা বিরোধীরা দাবি করবেন যে তাঁদের চাপে সরকার ওই পদক্ষেপ করতে বাধ্য হয়েছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!