এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ২০১৯ এর যুদ্ধে মমতা-অভিষেকের উদ্দেশ্যে চূড়ান্ত ‘চ্যালেঞ্জ’ ছুঁড়ে দিলেন দিলীপ ঘোষ

২০১৯ এর যুদ্ধে মমতা-অভিষেকের উদ্দেশ্যে চূড়ান্ত ‘চ্যালেঞ্জ’ ছুঁড়ে দিলেন দিলীপ ঘোষ

অসমের তিনসুকিয়া গনহত্যাকে ইস্যু করে ফের তৃণমূল- বিজেপি পারস্পারিক কাদা ছোঁড়াছুঁড়ির খেলায় মেতেছে। লোকসভা ভোটের প্রস্তুতি লগ্নে এভাবেই প্রতিপক্ষকে আক্রমণ করার পন্থা বের করেছে রাজ্যের দুই শক্তিশালী রাজনৈতিক দল। অসমে জঙ্গি আক্রমণে বাঙালি নিধনের প্রতিবাদে ধিক্কার মিছিলে নেমে বিজেপিকে চাঁচাছোলা ভাষায় আক্রমণ করতে দেখা গিয়েছিল তৃণমূল যুব কংগ্রেস নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

বললেন,মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উদার তাই বিজেপি পার পেয়ে যাচ্ছে। তবে নেত্রী অনুমতি দিলেই বিজেপিকে যোগ্য জবাব দেবে তৃনমূল। বিজেপির একটা চাকাও বাংলায় গড়াতে পারবে না। অভিষেকের সেই কথার প্রেক্ষিতেই পাল্টা দিতে দেখা যায় রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষকে।

শালীনতার সীমা পেরিয়ে তৃণমূল নেত্রীকে ‘কুকুর’ বলে সম্বোধন করতেও পিছপা হলেন না দিলীপ ঘোষ। বললেন,”কুকুর কামড়াতে পারে না, তারাই বেশি ঘেউ ঘেউ করে। নেত্রীর অনুমতি নেওয়ার কী আছে, দম থাকলে লড়ুন না, কার কত শক্তি দেখা যাবে।” সরাসরি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে টার্গেট করে বার্তা দিলেন,’আপনি কোন কেন্দ্র থেকে লড়বেন ঘোষণা করুন।

আপনি কী করে জেতেন দেখে নেব।’ সঙ্গে জুড়ে বললেন, সাহস থাকলে তৃণমূল জনসভায় হম্বিতম্বি না করে যেন সামনাসামনি লড়াই করে। লোকসভা ভোটেই বিজেপি দেখিয়ে দেবে তৃণমূলকে উপড়ে ফেলতে বিজেপির এক মুহূর্তও লাগবে না। আর বিজেপির বিজয়রথ লোকসভা ভোট জিতেই শেষ হবে বলে হুঁসিয়ারী দিলীপ ঘোষের। তৃণমূলকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে বললেন,শাসকদল পারলে বিজয়রথ আটকে দেখাক।

শুধু অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কেই নয়, তৃণমূলের প্রতিনিধিদলের তিনসুকিয়া কান্ডে অসম যাওয়া নিয়েও তোপ দাগেন দিলীপ ঘোষ। বললেন,অসমের অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতিকে আরো উত্তপ্ত করতে চাইছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অসমের আগুনে তাঁর রাজনৈতিক রুটি সেঁকতে সুবিধা হবে ভেবেই এই ফন্দি এঁটেছেন তিনি। ভুলে গেছেন গতবারের পরিস্থিতি।

গতবার অর্থাৎ এনআরসি ইস্যুতে মাস কয়েক আগেই তৃণমূলের একটি প্রতিনিধি দল অসমে গিয়ে পরিস্থিতির জটিলতা বাড়িয়ে এসেছিল। সেই ঘটনার কথা স্মরণ করিয়েই বর্তমানের উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে অসম যাওয়া থেকে বিরত থাকতে তৃণমূলকে পরামর্শ দেন রাজ্যবিজেপি নেতা। যদিও অসমের বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল এবার তৃণমূলের প্রতিনিধি দলকে স্বাগত জানিয়েছেন।

এর পাশাপাশি,দিলীপ ঘোষ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও কটাক্ষ করলেন। বললেন,”আপনাদের মুখ্যমন্ত্রী তো আবার প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী। তা তিনি কোন কেন্দ্র থেকে দাঁড়াবেন? যে কেন্দ্র থেকেই দাঁড়ান না কেন,উনিও কী করে জেতেন,আমরা দেখে নেব।”

দিলীপ ঘোষের দাবী,আসলে তৃণমূল বিজেপির উত্থান দেখেই ঘাবড়ে গিয়েছে। তাই বিজেপিকে আটকাতে বিকল্প পথ খোঁজা চেষ্টা করছে। মানুষ ভোট দিলে তৃণমূলের কোনো প্রার্থীই জিতবে না,গো হারা হারবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। বিজেপিকে সব জায়গায় আটকানোর চেষ্টা চালানোর অভিযোগ তুলেও সরব হন রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। বললেন,বিজেপিকে আটকাতে মাঠে পুলিশ নামাচ্ছে তৃণমূল। তবে বিজেপির কিছুই করতে পারবে না তাঁরা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

বললেন, ‘আমাদের মতো বুঝে নেব। সব নাটক তথনই বন্ধ হয়ে যাবে। যত নাটক করে নিক, নতুন বছর পড়লেই সব আনন্দ নিরানন্দ হয়ে যাবে তৃণমূলের।’ এভাবেই চাঁচাছোলা ভাষায় ১৯’এর লোকসভা ভোটে বাংলা থেকে জোড়াফুল উৎখাতের হুঁসিয়ারী দিলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!