এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > লক্ষ্য ২০১৯,তাই ফের দলীয় কর্মীদের অনুশাসন নিয়ে কড়া হুঁসিয়ারী দিলেন অনুব্রত

লক্ষ্য ২০১৯,তাই ফের দলীয় কর্মীদের অনুশাসন নিয়ে কড়া হুঁসিয়ারী দিলেন অনুব্রত

লোকসভা ভোটের দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে ফের একবার দলীয় কর্মীদের সতর্কবার্তা দেন অনুব্রত মন্ডল। বিজেপি হটাও কর্মসূচিতে কোনো রকম গা ঢিলেমি বরদাস্ত করা হবে না সহকর্মীদের। মানুষের পাশে গিয়ে না দাঁড়ালে,উন্নয়ণমূলক কর্মসূচিতে নিষ্ক্রিয়তা দেখালে দল থেকে বহিষ্কার করার কড়া নিদান দিলেন বীরভূমের জেলা সভাপতি। বোলপুরে জেলার দলীয় বৈঠক ছিল এদিন। সেখানেই উপস্থিত হয়ে দলীয় কর্মীদের হুঁসিয়ারী দিলেন অনুব্রত বাবু। স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন, দলে থেকে ভালো কাজ করতে না পারলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলে থাকার কোনো প্রয়োজন নেই। আর কোনো দুর্নীতিমূলক কর্মকান্ডে যদি তৃণমূলের নাম জড়ায় তাহলে তার জন্য দলের তরফ থেকে শাস্তিযোগ্য ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিন দলীয় বৈঠকে উপস্থিত হয়ে জেলা পরিষদের সভাপতি,সহ সভাপতির নাম ঘোষণা করলেন তিনি। সঙ্গে আগামী পাঁচ বছরের জন্য তাঁদের কর্মসূচি কী থাকবে সেটা নিয়েও সঠিক দিশা দেখান তিনি। বিস্তারে আলোচিত হয় বিষয়টি। বৈঠকের পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে জানালেন গত পাঁচবছর জেলা পরিষদের রাস্তাঘাটে উন্নয়ণের কাজ ভালোই এগিয়েছে। তবে নয়া নির্বাচিত জেলা পরিষদের সভাপতিকে উদ্দেশ্য করে তিনি বললেন,গ্রামের মানুষদের চলাফেরাতে যাতে কোনো অসুবিধা না হয় সেদিকে বিশেষ খেয়াল রাখতে। তার জন্য নেওয়া যাবতীয় কর্মসূচি আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে সম্পূর্ণ করে ফেলতে হবে। সঙ্গে সভাধিপতির কাজের প্রশংসা করে বললেন, গত পাঁচবছরে উন্নয়ণের কাজ ভালোই করা হয়েছে। উল্লেখ্য,ভালো কাজের নিদর্শন রাখার জন্যে ফের পাঁচ বছরের জন্য জেলা পরিষদের সভাপতি করা হল বিকাশ রায় চৌধুরীকে আর সহ সভাপতি হলেন নন্দেশ্বর মন্ডল। তবে সভাপতি এবং সহসভাপতিরকে চাঁচাছোলা কথায় জানিয়ে দিলেন তিনি,অন্যায়মূলক কর্মকান্ডের সঙ্গে তৃণমূলের নাম জড়ালেই কোনোভাবেই রেয়াত করা হবে না। মানুষের পাশে মানুষের হয়ে কাজ করার নির্দেশ দিলেন তিনি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

প্রসঙ্গত,সম্প্রতি বোলপুরের গীতাঞ্জলি প্রেক্ষাগৃহে দলীয় নেতাদের নিয়ে বৈঠক করেও একইরকমভাবে সহযোদ্ধাদের হুঁসিয়ারী দিয়েছিলেন অনুব্রত বাবু। সেখানে ১৯ টি ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি এবং সহ সভাপতির নাম ঘোষণা করেছিলেন তিনি। বারবার বৈঠক এবং জনসভায় একইরকম বার্তা দিয়ে লোকসভা ভোটের আগে দলীয় কর্মসূচি সম্পর্কে সতর্ক করছেন তৃণমূলের এই হেভিওয়েট নেতা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!